করোনা মহামারি

বিশ্বজুড়ে সংক্রমণ কিছুটা কমেছে

জ্জ আক্রান্তের সংখ্যা ৩৪ লাখ, মারা গেছেন প্রায় ১০ হাজার জ্জ ভারতেও সংক্রমণ নিম্নমুখী, তবে মৃতু্য বেড়েছে
বিশ্বজুড়ে সংক্রমণ কিছুটা কমেছে

করোনা মহামারিতে বিশ্বজুড়ে দৈনিক মৃতু্যর সংখ্যা কিছুটা কমেছে। একই সঙ্গে আগের দিনের তুলনায় কমেছে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৪ লাখ ১৭ হাজারের বেশি। একই সময়ে বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন প্রায় ১০ হাজার মানুষ। বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। অন্যদিকে, দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে রাশিয়া। প্রাণহানির তালিকায় এরপরই রয়েছে ব্রাজিল, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, ইতালি, আর্জেন্টিনা ও পোল্যান্ড। এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩৬ কোটি ৭৭ লাখ ৮৩ হাজারের বেশি। অন্যদিকে, মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৫৬ লাখ ৬০ হাজার। সংবাদসূত্র : এএফপি, ওয়ার্ল্ডোমিটার, এনডিটিভি

বাংলাদেশ সময় শুক্রবার রাত ৯টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত, মৃতু্য ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট 'ওয়ার্ল্ডোমিটার'র পরিসংখ্যান থেকে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে মারা গেছেন ৯ হাজার ৯২৭ জন। অর্থাৎ, আগের দিনের তুলনায় মৃতু্যর সংখ্যা সামান্য কমেছে। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে প্রায় ৫৬ লাখ ৬০ হাজার।

একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৪ লাখ ১৭ হাজার ৩৬৬ জন। অর্থাৎ, আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা কমেছে ৮০ হাজারের বেশি। এতে মহামারির শুরু থেকে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৬ কোটি ৭৭ লাখ ৮৩ হাজার ১৯৯ জনে।

গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। এই সময়ের মধ্যে দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন চার লাখ ৯১ হাজার ৯৬০ জন এবং মারা গেছেন দুই হাজার ৫৭৭ জন। করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত সাত কোটি ৪৬ লাখ ৯৫ হাজার ৩৩৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ৯ লাখ দুই হাজার ২৮ জন মারা গেছেন।

অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির

তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে রাশিয়া। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬৬৫ জন এবং নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৮৮ হাজার ৮১৬ জন। এছাড়া মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা এক কোটি ১৪ লাখ চার হাজার ৬১৭ জন এবং মৃতু্য হয়েছে তিন লাখ ২৮ হাজার ৭৭০ জনের।

ভারতে সংক্রমণ নিম্নমুখী

তবে মৃতু্য বেড়েছে

এদিকে, ভারতে করোনার সংক্রমণ নিম্নমুখী রয়েছে। গত মঙ্গলবার থেকেই দেশটিতে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা রয়েছে তিন লাখের নিচে। সেই ধারা অব্যাহত রয়েছে শুক্রবারও। একই সঙ্গে কমেছে সংক্রমণের হারও। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে বেড়েছে মৃতু্য।

ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে দুই লাখ ৫১ হাজার ২০৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর ফলে দেশটিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে চার কোটি ছয় লাখ ২২ হাজার ৭০৯ জনে।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬২৭ জন। ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বৃহস্পতিবার মৃতু্য হয়েছিল ৫৭৩ জনের। করোনা মহামারির শুরু থেকে দক্ষিণ এশিয়ার এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত মোট চার লাখ ৯২ হাজার ৩৫৬ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

ভারতে করোনায় দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যা গত ২৪ ঘণ্টায় ১২ দশমিক তিন শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। দৈনিক সংক্রমণের হারেও হয়েছে কিছুটা উন্নতি। বৃহস্পতিবার দেশটিতে সংক্রমণের হার ছিল ১৯ দশমিক ৫৯ শতাংশ। শুক্রবার তা কমে দাঁড়িয়েছে ১৫ দশমিক ৮৮ শতাংশ। সাপ্তাহিক সংক্রমণের হারও সামান্য কমে হয়েছে ১৭ দশমিক ৪৭ শতাংশ।

করোনায় আক্রান্তের দিক দিয়ে শীর্ষে রয়েছে দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য কেরালা। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যটিতে মোট ৫১ হাজার ৭৩৯ জন নতুন করে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। কেরালার স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, তাদের রাজ্যে করোনায় আক্রান্ত রোগীদের ৯৪ শতাংশই ভাইরাসের ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত। এছাড়া দেশটিতে ওমিক্রনের উপ-ধরন বিএ.২ এর সংক্রমণও বাড়ছে।

ভারতে এই মুহূর্তে সবচেয়ে বড় উদ্বেগের কারণ করোনার সক্রিয় রোগী। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, বর্তমানে দেশটিতে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ২১ লাখের বেশি। এই মুহূর্তে সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা মোট সংক্রমণের পাঁচ দশমিক ১৮ শতাংশ। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সুস্থতার হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৩ দশমিক ৬ শতাংশ। বৃহস্পতিবার এই হার ছিল ৯৩ দশমিক ৩৩ শতাংশ।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১৬৪ কোটি ৪৪ লাখ ৭৩ হাজার ২১৬ ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মোট দেশটিতে টিকা পেয়েছেন ৫৭ লাখ ৩৫ হাজার ৬৯২ জন। ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, দেশের প্রাপ্তবয়স্ক জনসংখ্যার অন্তত ৭২ শতাংশ করোনা টিকার উভয় ডোজ সম্পন্ন করেছেন। এছাড়া ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের মধ্যেও প্রায় ৫৪ শতাংশ করোনা টিকার প্রথম ডোজ পেয়েছেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

ক্যাম্পাস
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
হাট্টি মা টিম টিম
কৃষি ও সম্ভাবনা
রঙ বেরঙ

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে