logo
রবিবার, ০৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৬

  ক্রীড়া ডেস্ক   ২৯ মে ২০২০, ০০:০০  

শিরোপার আরও কাছে বায়ার্ন

শিরোপার আরও কাছে বায়ার্ন
বুন্দেসলিগায় মঙ্গলবার বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে গোল করার পর বায়ার্ন মিউনিখের খেলোয়াড়দের উচ্ছ্বাস -ওয়েবসাইট
শীর্ষ ও দ্বিতীয় স্থানের ব্যবধান চার পয়েন্টের। শীর্ষে থাকা বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে জিততে পারলে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ব্যবধান কমিয়ে আনবে ১ পয়েন্টে। আর এতে বুন্দেসলিগা হয়ে উঠবে আবারও জমজমাট। অন্যদিকে বায়ার্ন জিতলে ৭ পয়েন্টে এগিয়ে গিয়ে শিরোপার গতিপথ একরকম এঁকেই ফেলবে। উত্তেজনার ডালি সাজিয়ে তাই হাজির হয়েছিল এবারের 'ডের ক্লাসিকের'। কিন্তু মঙ্গলবার রাতে সিগনাল ইদুনা পার্কের বারুদে উত্তেজনার সেই ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতে শিরোপার আরও কাছে বায়ার্ন।

অনেক দিন থেকেই জার্মানিতে একক রাজত্ব চলছে বায়ার্নে। ঐতিহ্য ও প্রতিপত্তিতে পিছিয়ে থাকলেও বায়ার্নের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতাটা করতে পারে ডর্টমুন্ডই। শেষ যখন চ্যাম্পিয়ন হয়নি বায়ার্ন, সে বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ডর্টমুন্ডই। টানা দুইবার। এবার শিরোপা পুনরুদ্ধার করতে জার্মান ক্লাসিকোতে জয়টা খুব প্রয়োজন ছিল তাদের। কারণ, আগেই ব্যবধানটা ছিল চার পয়েন্টের। এবার তা বেড়ে হলো ৭। কারণ, ২৮ ম্যাচ শেষে বায়ার্নের পয়েন্ট ৬৪, আর দ্বিতীয় স্থানে থাকা ডর্টমুন্ডের পয়েন্ট ৫৭।

তবে ম্যাচের ম্যাচের প্রথম মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারতো ডর্টমুন্ড। হালান্ডের শট বায়ার্ন গোলরক্ষক ম্যানুয়েল নয়ারের পায়ের ফাঁক গলে লক্ষ্যেই দিকেই যাচ্ছিল। কিন্তু একেবারে গোললাইন থেকে তা ফিরিয়ে দেন জেরোমি বোয়েটাং। দশম মিনিটে অবশ্য বল জালে জড়িয়েছিল ডর্টমুন্ড। কিন্তু অফসাইডের কারণে তা বাতিল হয়। পরের মিনিটে জশুয়া কিমিচের ক্রসে থমাস মুলার মাথা ছোঁয়াতে পারলেই গোল পারলেই এগিয়ে যেতে পারত বায়ার্নও।

ঘরের মাঠেও ব্যাভারিয়ানদের আটকাতে পারেনি ডর্টমুন্ড। করোনাভাইরাসের কারণে বন্ধ লিগ পুনরায় শুরু হলেও দর্শক-সমর্থন পাচ্ছে না স্বাগতিক দল। ডর্টমুন্ডকেও ফাঁকা স্টেডিয়ামে খেলতে হয়েছে বায়ার্নের বিপক্ষে। দাপুটে পারফরম্যান্সে করোনা-পরবর্তী লিগ শুরু করলেও সেটা ধরতে পারল না। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচেই প্রথম হারের মুখ দেখল তারা।

এবার চ্যাম্পিয়ন বায়ার্নকে ভালোমতোই চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছিল বরুসিয়া। এ ছাড়া তাদের মুখোমুখি লড়াই এমনিতেই সবসময় রোমাঞ্চকর। মঙ্গলবার রাতেও উত্তেজনার কমতি ছিল না। উপভোগ্য এক ম্যাচ প্রদর্শিত হয়েছে সিগনাল ইডুনা পার্কে। সমান তালে লড়াই চালিয়েছে দল দুটি। বল পজেশন সমান ৫০ শতাংশ। ডর্টমুন্ডের শট ১১, বায়ার্নের ১২। আর গোলমুখে সফরকারীদের ৬ শটের বিপরীতে ডর্টমুন্ড নিয়েছে ৫ শট।

উপভোগ্য ম্যাচে পার্থক্যটা গড়ে দিয়েছেন ইয়োশুয়া কিমিচ। ৪৩ মিনিটে তার গোলে এগিয়ে যায় বায়ার্ন। দ্বিতীয়ার্ধে গোল শোধে নিজেদের সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করলেও পারেনি বরুসিয়া। এতে শিরোপার আশা একরকম শেষ হয়ে গেছে তাদের। সমান্তরালে শিরোপা ধরে রাখার পথে বড় লাফ দিয়েছে বায়ার্ন। ২৮ ম্যাচ শেষে বায়ার্নের পয়েন্ট ৬৪, আর দ্বিতীয় স্থানে থাকা ডর্টমুন্ডের পয়েন্ট ৫৭। ফুটবল বিশ্বের শীর্ষ লিগগুলোর মধ্যে সবার আগে শুরু হয়েছে বুন্দেসলিগা। মাঠে ফেরার অপেক্ষায় আছে লা লিগা। অনুশীলন চলছে ইংল্যান্ড ও ইতালিতেও।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে