ম্যাককিওনের প্রথম

ম্যাককিওনের প্রথম
অস্ট্রেলিয়ান সাতারু এমা ম্যাককিওন -ওয়েবসাইট

ব্যক্তিগত ও দলীয় ইভেন্টে এর আগে অনেক পদকই পেয়েছেন এমা ম্যাককিওন। সোনার ঝিলিক ছিল সেখানেও। কিন্তু একটা আক্ষেপের জায়গাও ছিল। ব্যক্তিগত ইভেন্টে কখনো সেরা হতে পারেননি। এতদিনের অদেখা সেই সোনার হাসি অবশেষে ফুটে উঠল অস্ট্রেলিয়ার এই সাঁতারুর মুখে। টোকিও অ্যাকুয়াটিকস সেন্টারে শুক্রবার ১০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে ৫১ দশমিক ৯৬ সেকেন্ড সময় নিয়ে অলিম্পিকের রেকর্ড গড়ে সোনা জেতেন ম্যাককিওন।

গত আসর ও এবারের আসর মিলিয়ে দু'টি দলীয় সোনা, দু'টি দলীয় রুপা, দু'টি দলীয় ব্রোঞ্জ ও একটি ব্যক্তিগত ব্রোঞ্জ জয়ের পর শেষতক ব্যক্তিগত ইভেন্টে সোনার পদকে চুম্বন চিহ্ন এঁকে দিতে পারলেন ২৭ বছর বয়সি এই সাঁতারু। এবারের অলিম্পিকসে সাঁতার থেকে এটি নিয়ে পঞ্চম সোনার পদক পেল অস্ট্রেলিয়া। এমা ম্যাককিওনের বাবা রন ম্যাককিওনও ছিলেন সাঁতারু। ১৯৮০ ও ১৯৮৪ অলিম্পিকিস সাঁতারে অংশ নিয়ে পৌঁছতে পারেননি পদকের লড়াই পর্যন্ত। এমার দুই বছরের বড় ভাই ডেভিড ম্যাককিওন ২০১২ অলিম্পিকসে বাদ পড়েন ৪০০ মিটার ফ্রিস্টাইলের হিট থেকে। পারিবারিক সেই আক্ষেপ আগেই ঘুচিয়েছেন এমা ম্যাককিওন। এবার ব্যক্তিগত একটা ঘাটতির জায়গাও পূরণ হলো।

১০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে হিটে ৫২ দশমিক ১৩ সেকেন্ড সময় নিয়ে সেরা হয়ে ম্যাককিওন ইঙ্গিত দিয়েছিলেন দারুণ কিছুর। পদকের লড়াইয়ে আরও কম সময় নিয়ে বাজিমাত করে উচ্ছ্বাসে ভাসছেন নিউ সাউথ ওয়েলসের উলংগং থেকে উঠে আসা এই সাঁতারু। তিনি বলেন, 'আমি কখনই অলিম্পিকস বা বিশ্ব প্রতিযোগিতায় ব্যক্তিগত ইভেন্টে সোনা জিতিনি। অলিম্পিকের পদকের বেদিতে সবচেয়ে উঁচু জায়গাতে উঠতে পারা-সব মিলিয়ে এটাই অলিম্পিক।'

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে