উইকেটকে কাঠগড়ায় তুললেন ইমরুল

'এটা শুধুমাত্র প্রথম খেলা, তাই একটু মরিচা ধরেছে। আশা করি পরের ম্যাচে উন্নতি হবে। পরিকল্পনা কাজ করেছে, নাহিদুলকে শুরুতে বল দেওয়াটা। বিশেষ করে ডানহাতি ব্যাটসম্যানদের বিরুদ্ধে সে ভালো করেছে। তানভীরও ভালো করেছে।' -ইমরুল কায়েস
উইকেটকে কাঠগড়ায় তুললেন ইমরুল

ম্যাচের শুরু থেকেই নিয়মিত উইকেটের পতন। কোনো ব্যাটারই সেট হতে পারলেন না ইনিংস লম্বা করতে। হয়নি বলার মতো কোনো জুটিও। ফলে লো স্কোরিং ম্যাচেও রোমাঞ্চকর লড়াইয়ের সাক্ষী হলো মিরপুর। তবে এমন ব্যাটিংয়ের জন্য উইকেটকেই কাঠগড়ায় তুললেন কুমিলস্না ভিক্টোরিয়ান্সের অধিনায়ক ইমরুল কায়েস।

শনিবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে এদিন কুমিলস্নার লক্ষ্য ছিল মাত্র ৯৭ রানের। কিন্তু সেই লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে ঘাম ছুটে যায়। ১৯তম ওভার পর্যন্ত ব্যাট করতে হয় তাদের। উইকেটও হারায় ৮টি। আর সামান্য কিছু রান বেশি হলে হয়তো ফলাফল ভিন্ন হতেই পারত।

নিজের ব্যাটারদের নিবেদনে কোনো ঘাটতি দেখছেন না ইমরুল। উইকেটের কারণেই এমন বাজে ব্যাটিং হয়ে বলে জানান তিনি। ম্যাচ শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বলেছেন, 'আমাদের ব্যাটিংও আশাব্যঞ্জক, কিন্তু কখনো কখনো ধীর গতির উইকেটে এমন ঘটে থাকে।'

তবে বোলারদেরও উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন কুমিলস্না অধিনায়ক, 'এটা শুধুমাত্র প্রথম খেলা, তাই একটু মরিচা ধরেছে। আশা করি পরের ম্যাচে উন্নতি হবে। পরিকল্পনা কাজ করেছে, বিশেষ করে নাহিদুলকে শুরুতে বল দেওয়াটা। বিশেষ করে ডানহাতি ব্যাটসম্যানদের বিরুদ্ধে সে ভালো করেছে। তানভীরও ভালো করেছে।'

আগেরদিন শুক্রবার একই উইকেটে ভিন্ন চিত্র দেখেছে মিরপুর। প্রথম ম্যাচে লো স্কোরিং ম্যাচ হলেও দ্বিতীয় ম্যাচে হয়ে প্রায় দুইশর কাছাকাছি রান। সে রান তাড়া করে আবার জিতেই গেছে অপর দল। ফলে ব্যাটারদের নিবেদন নিয়ে কিছুটা প্রশ্ন থাকলেও ইমরুল সে পথে হাঁটেননি।

ইমরুলের বলেন, 'একটা দলের মাঝেমধ্যে এমন ম্যাচ হয়, প্রতিদিন কিন্তু হয় না। দল অনুযায়ী আমরা খুবই ভালো দল। প্রতিটা ব্যাটসম্যান তো প্রতিদিন এভাবে খেলবে না। বড় ব্যাটসম্যান যারাই আছেন তারা বড় ইনিংস খেলবেনই। যখন বড় স্কোর করবে তখন দেখবেন পরের ব্যাটসম্যানের জন্য বিষয়টা আরও সহজ হয়ে যাবে।'

কষ্টার্জিত হলেও পূর্ণ দুই পয়েন্ট নিয়ে এবারের বাংলাদেশ বিপিএল করেছে কুমিলস্না। সুখকর অনুভূতি নিয়ে ইমরুল জানালেন, দলের আত্মবিশ্বাস বাড়াতে এই জয় প্রয়োজন ছিল তাদের।

ইমরুল বলছিলেন, 'জিতলে দলের একটা ভালো অনুভূতি হয়। দলের আত্মবিশ্বাস বাড়ে। যেহেতু এটা আমাদের প্রথম ম্যাচ, আমরা আমাদের দলীয় খেলাটা দেখাতে পারিনি। বোলাররা বেশ ভালো করেছে। আমি আশা করছি ব্যাটিংটাও পরের ম্যাচে ঠিক হয়ে যাবে। প্রথম ম্যাচে সবগুলো দলই স্ট্রাগল করে কন্ডিশন ও পরিকল্পনার সঙ্গে। আমি মনে করি যে আমি খুশি যে আমরা ম্যাচটা জিতেছি।'

লো স্কোরিং ম্যাচে উইকেটের প্রসঙ্গে টেনে বলেন, 'দেখেন উইকেট প্রথম হাফে কিছুটা কঠিন ছিল, আমাদের বোলাররা উইকেটের সঙ্গে তাল মিলিয়ে যথেষ্ট ভালো পরিকল্পনামাফিক বোলিং করেছে। কিন্তু লো স্কোরিং ম্যাচে সবসময়ই একটু সমস্যা হয় রান চেজিংয়ের ক্ষেত্রে। একটা পরিকল্পনা করলে সেখানে একটু সমস্যা হয়। একটা উইকেট পড়ে গেলে আরেকজন বোলার এসে চেষ্টা করে কিছু বল ডট দেয়ার। তখন কিন্তু একটা চাপে পড়ে যায়।'

ইমরুলের মতো নিজের বোলারদের প্রশংসায় মেতেছেন সিলেট অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেনও, 'বোলাররা কঠিন লড়াই করেছে। তারা দেখিয়েছে এ উইকেটে তারা কতটা ভালো। উইকেট এমন আচরণ করলে, আপনাকে কিছু করতে হবে না। শুধু ঠিক জায়গায় বোলিং করলেই হয়। আর ১০-১৫ রান করলে ভালো হতো। কিছু কিছু জায়গায় উন্নতি করতে হবে।'

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

ক্যাম্পাস
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
হাট্টি মা টিম টিম
কৃষি ও সম্ভাবনা
রঙ বেরঙ

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে