মৌলভীবাজার সদরে মেডিকেল কলেজ স্থাপনের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন

মৌলভীবাজার সদরে মেডিকেল কলেজ স্থাপনের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন

মৌলভীবাজার জেলা সদরে সরকারি মেডিকেল কলেজ স্থাপনের দাবীতে নতুন করে আবারো চ্গাা হচ্ছে নানা আন্দোলন। এরই প্রেক্ষিতে “আন্দোলনরত সংগঠনসমূহের” আয়োজনে সোমবার মৌলভীবাজার প্রেক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন “আন্দোলনরত সংগঠনসমূহের” নেতা এম মুহিবুর রহমান মুহিব। পরবর্তীতে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন সম্মিলিত সামাজিক উন্নয়ন পরিষদের প্রধান উপদেষ্টা ডা. ছাদিক আহমেদ। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মৌলভীবাজার ডিস্ট্রিক্ট ডেভলপমেন্ট এন্ড ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন অব ওয়ার্ল্ড ওয়াইডের সভাপতি সৈয়দ নওশের আলী খোকন,ডেপুটি ডিস্ট্রিক্ট গর্ভনর রোটারি ডিস্ট্রিক্ট ৩২৮২ সাহাব উদ্দিন আহমেদ।

লিখিত বক্তব্যে এম মুহিবুর রহমান মুহিব বলেন, মৌলভীবাজার সরকারি মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার দাবীতে ২০১৭ সাল থেকে আন্দোলন করে আসছি আমরা। সেই দাবী আজ গণদাবীতে পরিণত হয়েছে। মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালে সরকারি মেডিকেল কলেজ পতিষ্ঠার দাবিতে দেশে- প্রবাসে গোলটেবিল বৈঠক, সেমিনার, আলোচনা সভা, স্মারকলিপি প্রদান, জেলাব্যাপী গণস্বাক্ষর কর্মসূচি, মানববন্ধনসহ আমাদের কর্মসূচি চলমান।

সাম্প্রতিক সময়ে মৌলভীবাজার ০৪ (কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল) সংসদীয় আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য সাবেক চীপ হুইপ ড. উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ তার নির্বাচনী এলাকায় অর্থাৎ কমলগঞ্জে মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার জন্য দাবি জানান, বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই বিষয়ে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে। আমরা তার বক্তব্যে বিস্মিত হয়েছি। আমরা মনে করি, ২৫ লক্ষ মানুষের প্রণের দাবি মৌলভীবাজার সরকারি মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠা সময়ের দাবী। আমরা মনে করি, এখানে বিভাজনের কোন সুযোগ নেই। স্থানীয় সদর আসনের সংসদ সদস্য নেছার আহমদ দৃঢ়ভাবে মৌলভীবাজার সদরেই মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার যে বক্তব্য দিয়েছেন সেই বক্তব্যে আমরা সবাই ঐক্যমত পোষণ করছি।

এদিকে জাতীয় সংসদের সাবেক চিফ হুইপ ও (কমলগঞ্জ- শ্রীমঙ্গল) আসনের এমপি উপাধ্যক্ষ ড.আব্দুস শহীদ সম্প্রতি কমলগঞ্জে মেডিকেল কলেজ স্থাপনের দাবী জানান।

সম্প্রতি সংসদে সম্পূরক বাজেট বক্তৃতায় নিজ নির্বাচনী এলাকা কমলগঞ্জ উপজেলায় একটি সরকারি মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার দাবি করেন তিনি। মেডিকেল কলেজ স্থাপনের যৌক্তিকথা দেখিয়ে তখন তিনি বলেন, এখানে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ৩৫৮ একর জায়গা রয়েছে। তাই ওই স্থানে মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠা হলে জায়গা অধিগ্রহণ করে ক্রয় করার প্রয়োজন হবে না। পরবতীতে তার ওই বক্তব্য জেলাজুড়ে আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়।

এরই প্রেক্ষিতে গেল ৯ জুন যুক্তরাজ্যের একটি টেলিভিশনে দেয়া টকশোতে “মৌলভীবাজার জেলায় মেডিকেল কলেজ দ্রুত বাস্থবায়নে আমাদের করণীয়” শীর্ষক ভাচ্যুয়াল আলোচনায় মৌলভীবাজার-৩ আসনের এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নেছার আহমদ তার প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, আমাদের মধ্যে কোনো বিভাজন নেই। এ জেলার সেকল মানুষ দেশ ও বিদেশে অবস্থান করছেন সবাই চায় মৌলভীবাজার জেলা সদরে মেডিকেল কলেজ স্থাপিত হোক। প্রধানমন্ত্রীও জানেন আমাদের ওখানে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল রয়েছে। সেটিকেই মেডিকেল কলেজে রূপান্তরিত করার কথা। এখানে জানি না কি কারণে কথাটি বলা হয়েছে। আমি নিজেও ঠিক বুঝতে পারছি না।

তিনি উপাধ্যক্ষ ড.আব্দুস শহীদকে ইঙ্গিত করে বলেন, একজন সম্মানীয় ব্যক্তি জমির কথা বলেছেন। জেলা সদরে কি জায়গার অভাব পড়েছে? আমি প্রশ্ন রাখতে চাই। জেলা সদর কি সাগরের পানির উপরে। যে ওখানে মেডিকেল কলেজ করা যাবে না। এই অবান্তর কথাগুলো কোনো অবস্থাতেই ঠিক নয়। তিনি আরও বলেন, মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ১০ একর জায়গা রয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগেরও আরও ৫-৬ একর জায়গা রয়েছে। এ ছাড়া শহরের স্টেডিয়াম সংলগ্ন এলাকায় হাজার একর সরকারি জায়গা রয়েছে। সুতরাং জেলা সদরে যে জায়গার সমস্যা রয়েছে এমনটি সঠিক নয়।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে