সরকার দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে: ডিসি মনিরুজ্জামান

সরকার দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে: ডিসি মনিরুজ্জামান

খুলনা জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদার বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে বিপুল আত্মত্যাগের বিনিময়ে আমারা পেয়েছি একটি লাল-সবুজ পতাকা ও সার্বভৌমত্ব বাংলাদেশ। এইমুহুর্তে আমরা দেশে দুটি গুরুত্বপূর্ণ সময় পার করছি। যার একটি হলো যার নেতৃত্বে আমরা স্বাধিনতা পেয়েছি বাঙালী জাতির সেই মহান নেতা বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী। আরেকটি হলো স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী। জাতির জনক সুখি সমৃদ্ধি যে সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখে ছিলেন সে লক্ষেই সরকার দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।

ইতোমধ্যে আমরা স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উপনিত হয়েছি। আমরা যখন উন্নত রাষ্ট্রের স্বপ্ন দেখছি ঠিক সেই মুহুর্তে মহামারি করোনা আমাদের সামনে বাধা হয়ে দাড়িয়েছে। সংক্রমণ কখনো বাড়ছে আবার কখনো কমছে, এরকম প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে আমাদেরকে যেতে হচ্ছে। জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে উপজেলা, জেলা, জাতীয় এমনকি আর্ন্তজাতিক পর্যায়ে আমাদের নানা কর্মসূচি ছিল। কিন্তু করোনার কারনে যার অনেক কিছুই আমাদের সিমিত করতে হয়েছে। মুজিব বর্ষকে সামনে রেখে মানানীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষনা দিয়েছেন মুজিব বর্ষে কোন মানুষ গৃহহীন থাকবে না।

এ কর্মসূচির আওতায় ইতোমধ্যে সারাদেশে প্রায় ১লাখ ১৯হাজার ভূমিহীন দরিদ্র পরিবার জমি সহ ঘর পেয়েছে। সকলের সহযোগিতায় এটি বাস্তবায়ন হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের মতো মহৎ উদ্যোগ বিশ্বে মানবিক ইতিহাস সৃষ্টি করেছে। উপজেলা পর্যায় হলো প্রাথমিক পর্যায় এখানে টিম ওয়ার্ক যতো ভালো হবে সরকারি সিদ্ধান্ত সহ যেকোন কাজ বাস্তবায়নে ততো ভালো এবং সহজ হয়। জেলা প্রশাসক বলেন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণ ও উন্নত রাষ্ট্র গঠনে আমাদের সামনে যে লক্ষ রয়েছে জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিবিদ, সরকারি কর্মকর্তা সহ সকলকে সম্মিলিত ভাবে তা বাস্তবায়ন করতে হবে। তিনি সেবার মানসিকতা নিয়ে কাজ করার জন্য সরকারি কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের প্রতি আহবান জানান। তিনি মঙ্গলবার বিকালে পাইকগাছা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও দপ্তর প্রধানদের সাথে মতবিনিমিয় কালে এসব কথা বলেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সরকার বিভাগ খুলনার উপ-পরিচালক মোঃ ইকবাল হোসেন, উপজেলা চেয়ারম্যান আনোয়ার ইকবাল মন্টু, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শেখ শাহাদাত হোসেন বাচ্চু, সহকারী কমিশনার ভুমি মোঃ শাহরিয়ার হক, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শিয়াবুদ্দিন ফিরোজ বুলু, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডিজিএম রেজায়েত আলী, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ বিষ্ণু পদ বিশ্বাস, মৎস্য কর্মকর্তা পবিত্র কুমার দাস, প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান খান, সমাজ সেবা কর্মকর্তা সরদার আলী আহসান, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জয়নায় আবদীন, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ইমরুল কায়েস, সমবায় কর্মকর্তা বেনজির আহম্মেদ, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা প্রদীপ কুমার পোদ্দার, দারিদ্র বিমোচন কর্মকর্তা বিপ্লব কান্তি বৈদ্য, সহকারি প্রোগ্রামার মৃদুল কান্তি দাস, মুক্তিযোদ্ধা রণজিৎ সরকার, তোকারম হোসেন প্রমুখ।

যাযাদি/ এমডি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে