সিলেট ৩ আসনে বিপুল ভোটে জয়ী আ.লীগ প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব

সিলেট ৩ আসনে বিপুল ভোটে জয়ী আ.লীগ প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব

সিলেট-৩ আসনে উপ-নির্বাচনে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব। আওয়ামী লীগের প্রার্থী যুক্তরাজ্য প্রবাসী হাবিবুর রহমান হাবিব (নৌকা) প্রতীক নিয়ে ৮৯ হাজার ৭০৫ ভোট পেয়ে বিজয় লাভ করেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী জাতীয় পার্টির প্রার্থী আতিকুর রহমান আতিক (লাঙ্গল) পেয়েছেন ২৪ হাজার ৬০৪ ভোট। প্রায় ৬৫ হাজার ভোটের ব্যবধানে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হন হাবিব। গতকাল অনুষ্ঠিত হওয়া সিলেট-৩ আসনে উপ-নির্বাচনে চার জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করেন। হাবিবুর রহমান হাবিব ও আতিকুর রহমান আতিক ছাড়াও এ নির্বাচনে বিএনপির বহিষ্কৃত প্রার্থী শফি আহমদ চৌধুরী (মোটরগাড়ি) ও বাংলাদেশ কংগ্রেসের প্রার্থী যুক্তরাজ্য প্রবাসী জুনায়েদ মোহাম্মদ মিয়া (ডাব) প্রতীক নিয়ে অংশগ্রহণ করেন।

এমন ফলাফলের পর বিজয়ী নৌকার প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিবকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী জাতীয় পার্টির প্রার্থী আতিকুর রহমান আতিক। তারা এসময় জেলা প্রশাসক কার্যালয়স্থ ফলাফল সংগ্রহ ও পরিবেশন কেন্দ্রে উপস্থিত ছিলেন। অভিনন্দন জ্ঞাপনকালে হাবিব ও আতিক একে অপরের সঙ্গে কোলাকুলিও করেন।

প্রথমবারের মতো সিলেট-৩ আসনে ইলেট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট গ্রহণ করা হলেও কেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের তেমন উপস্থিতি দেখা যায়নি। সকাল থেকে ভোটগ্রহণের শুরুতে কয়েকটি কেন্দ্রে ভোটারদের মোটামুটি উপস্থিতি থাকলেও বেশিরভাগ কেন্দ্র প্রায় ফাঁকা দেখা গেছে। যেসব কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি ছিলো সেগুলোতে পুরুষের চেয়ে নারী ভোটার বেশি ছিল।

সকাল থেকেই ভোট কেন্দ্র ও নির্বাচনী এলাকায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর নজরদারি থাকায় কোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। শনিবার সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয় এবং শেষ হয় বিকাল ৪টায় । ১৪৯টি কেন্দ্রেই ভোটাররা শান্তিপূর্ণভাবে ভোট প্রয়োগ করেন।

এদিকে লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী আতিকুর রহমান আতিক প্রথমে আঙুলের চাপ জটিলতায় ভোট দিতে পারেননি। পরবর্তীতে বিকেলে ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার কিছু সময় আগে তিনি তার ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এসময় তিনি নির্বাচন যেভাবে হওয়ার কথা ছিল সেভাবে হয়নি। কিছু ক্ষেত্রে ত্রুটি ছিলো-যেমন ইভিএম জটিলতা। এছাড়া তার ভোটারদের প্রভাবিত করারও অভিযোগ করেছেন তিনি।

ইভিএম পদ্ধতিতে অনেকে সুষ্ঠুভাবে ভোট দিতে না পারার অভিযোগ করেছেন সিলেট-৩ আসনের সাবেক সাংসদ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী শফি আহমেদ চৌধুরী। দুপুরে ভোট কেন্দ্র পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এমন অভিযোগ করে বলেন, ভোটের আগে ইভিএম নিয়ে ভোটার ও নির্বাচনী কর্মকর্তাদের আরও প্রশিক্ষণের প্রয়োজন ছিল। বিএনপির বহিষ্কৃত কেন্দ্রীয় এ নেতা বলেন, মানুষ ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দিয়ে অভ্যন্ত নয় এবং তিনি নিজেও জানতেন না ইভিএমের মাধ্যমে কিভাবে ভোট দিতে হয়। এছাড়া নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা অনেক পোলিং কর্মকর্তাদেরও ইভিএম সম্পর্কে তেমন ধারণা নেই। এদিকে নারী ভোটাররা ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দিতে এসে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়ছেন মন্তব্য করে শফি আহমেদ চৌধুরী বলেন, নারী ভোটাররা কেন্দ্রে গিয়ে ব্যালট খুঁজছেন। ইভিএম পদ্ধতি সম্পর্কে তারা কিছুই জানে না। তাই অনেকে সুষ্ঠুভাবে ভোটও দিতে পারছেন না।

প্রসঙ্গত, সিলেটের দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত সিলেট-৩ আসনটিতে মোট ভোটার ৩ লাখ ৫২ হাজার ও ভোটকেন্দ্র ১৪৯টি। গত ১১ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হয়ে এ আসনটির সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগ নেতা মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েসব মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়। তপশীল অনুযায়ী গত ২৮ জুলাই এই আসনের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় এর দুই দিন আগে ভোটগ্রহণ স্থগিত করে আদালত। পরবর্তী সময়ে ৪ সেপ্টেম্বর ভোটগ্রহণের দিন নির্ধারণ করে কমিশন।

যাযাদি/এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে