​শান্তি চুক্তির ২৪তম বর্ষপুর্তি উপলক্ষে বাঘাইছড়িতে মারিশ্যা ২৭বিজিবির বর্নাঢ্যা আয়োজন

​শান্তি চুক্তির ২৪তম বর্ষপুর্তি উপলক্ষে বাঘাইছড়িতে  মারিশ্যা ২৭বিজিবির বর্নাঢ্যা আয়োজন

পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তির ২৪তম বার্ষিকী বৃহস্পতিবার । প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রথম মেয়াদকালে ১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর সরকার এবং পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (পিসিজেএসএস) মধ্যে এই চুক্তি সই হয়। এই চুক্তি স্বাক্ষরের মধ্য দিয়ে তিন পার্বত্য জেলায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের অবসান ঘটে।

চুক্তিতে সরকারের পক্ষে সই করেন সে সময়ের জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ্ এবং জনসংহতি সমিতির পক্ষে সই করেন জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লার্মা ওরফে সন্তু লার্মা।

চুক্তি স্বাক্ষরের মধ্য দিয়ে অবসান ঘটে শান্তিবাহিনীর দীর্ঘ প্রায় দুই দশকের সংগ্রামের। শান্তিচুক্তির ফলে প্রাথমিকভাবে শান্তি বাহিনীর সদস্যরা অস্ত্র জমা দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসে। সরকার তাদের সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করে।

সরকার ও জনসংহতি সমিতির মধ্যে স্বাক্ষরিত এই চুক্তি বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হয়েছিল। শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়ার পর থেকে পাহাড়ে শান্তির সুবাতাস বইতে শুরু করে। চুক্তির ফলে স্বাভাবিকতা ফিরে আসায় দূর পাহাড়ের বুক চিরে রাত-দিন ছুটছে যানবাহন। এক সময় জেলার বাইরের অন্য জেলার সঙ্গে যোগাযোগ করার মতো কোনো ব্যবস্থা ছিল না। পাহাড়ের পর্যটন স্পট সাজেক ছিল আতঙ্কিত ও বিচ্ছিন্ন। যোগাযোগ ছিল নিষিদ্ধ। চুক্তির ফলে সেই সাজেক পর্যটন স্পট আজ সর্বত্র সুনাম ছড়িয়েছে। গড়ে উঠেছে বড় বড় হোটেল-রেস্তোরাঁ। প্রতিনিয়ত আসছে শত শত পর্যটক।

এছাড়া সারাদেশে সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় পার্বত্য এলাকায় বিগত সময়ে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। পাহাড়ে শান্তির পাশাপাশি সেখানে বসবাসকারীদের আর্থ-সামাজিক জীবনেও এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে।

শান্তি চুক্তির ২৪তম বর্ষপূর্তি উদযাপন উপলক্ষে রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে বর্ণাঢ্য শোভা যাত্রার আয়োজন করে ২৭ বিজিবি মারিশ্যা জোন।

বর্নাট্য শোভাযাত্রাটি ২৭ বিজিবি মারিশ্যা জোনের জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল আনোয়ার হোসেন ভুইঁয়া পিএসসি, আর্টিলারী নেতৃত্বে মারিশ্যা জোনের প্রধান ফটক থেকে শুরু হয়ে উপজেলার চৌমুহনী চত্ত্বরে এসে উন্মুক্ত মঞ্চে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় মিলিত হয়।

এতে বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সুদর্শন চাকমার সভাপতিত্বে এবং কাচালং মডেল সরাকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক সিরাজুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ২৭ বিজিবি মারিশ্যা জোনের জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল আনোয়ার হোসেন ভুইঁয়া পিএসসি, আর্টিলারী।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদ পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ুম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাগরিকা চাকমা, পৌর মেয়র জাফর আলী খান, ওসি বাঘাইছড়ি আনোয়ার হোসেন খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আলী হোসেন, সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন আল মামুন মামুন সহ আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

আলোচনা সভায় পাহাড়ী ও বাঙ্গালী সম্প্রদায়ের প্রায় পাঁচ শতাধিক মানুষ উপস্থিত ছিলেন। উপস্থিত বক্তারা শান্তি চুক্তির সুফল তুলে ধরেন। পরে শান্তি চুক্তির সৌজন্যে ২৫০টি অসহায় পরিবারের মধ্যে মাঝে কম্বল বিতরণ করেন বিজিবি অধিনায়ক।

এছাড়াও সন্ধায় বিজিবি পরিচালিত এগত্তর পার্কে সম্প্রীতি কনসার্টের আয়োজন করে মারিশ্যা জোন।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

ক্যাম্পাস
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
হাট্টি মা টিম টিম
কৃষি ও সম্ভাবনা
রঙ বেরঙ

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে