কালাপাহাড়িয়ায় ব্রিজের অভাবে ভোগান্তি চরমে

কালাপাহাড়িয়ায় ব্রিজের অভাবে ভোগান্তি চরমে

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে মেঘনা বেষ্টিত কালাপাহাড়িয়ায় খালের উপরে একটি ব্রিজ না থাকায় যাতায়াতের ক্ষেত্রে হাজার হাজার মানুষের ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে। খালটি কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়নের বিবিরকান্দি গ্রাম পূর্বকান্দি সাহেব বাজার নামে একটি বাজার এবং ওই গ্রামের সংযোগ স্থলে অবস্থিত।

জানা গেছে, ওই এলাকার প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার মোস্তাক আহাম্মেদ এর জীবদ্দশায় তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় সেখানে সাহেববাজার নামে একটি বাজার প্রতিষ্ঠিত হয়। পার্শ্ববর্তী বিবিরকান্দি গ্রাম সহ আশে পাশের -৪টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ রাত পোহালেই সেই বাজারে যাতায়াত করে থাকেন। কিন্তু তাদের যাতায়াতের ক্ষেত্রে বাঁধা হলো এই খালটি। এটি বৃহত্তর মেঘনা নদী থেকে উৎপত্তি এবং গ্রামের মাঝে অবস্থিত একটি সরু খাল। আগে থেকেই ওই গ্রাম গুলোর লোকজন যাতায়াতের সুবিধার্থে খালের উপরে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করে খালটি পারাপার হচ্ছে। কিন্তু বাঁশের সাঁকো কিছু দিন পর পরই ভেঙ্গে যায়।

কখনো ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে আবার কখনো স্থানীয়রা স্বেচ্ছা শ্রমের ভিত্তিতে সাঁকোটি নির্মাণ করে থাকেন। কিন্তু ভাবে আর কত দিন? চার দিকে প্রমত্তা মেঘনা। মাঝ খানে কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়ন যেন একটি দ্বীপপূঞ্জ। সেখানে এতো দিন কোন পাকা রাস্তা ছিলনা। ২০০৮ সনে বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর ওই ইউনিয়নের বেশ কিছু রাস্তা পাকাকরণ করা হয়েছে। কিন্তু ওই খালের উপর নির্মাণ করা হয়নি একটি ব্রীজ। বর্তমানে ভুক্তভোগী এলাকাবাসি ওই খালের উপর ্একটি পাকা ব্রীজ নির্মাণ করার উপর জোর দাবী তুলেছেন।

পূর্বকান্দি গ্রামের বাসিন্দা জিয়া প্রধান জানান, ওই খালের উপর একটি পাকা ব্রীজ নির্মাণ করা হলে এলাকাবসির সাহেববাজার নামে বাজারটি তে যাতায়তের ক্ষেত্রে দূর্দশা অনেটাই লাঘব হবে।

এই বিষয়ে আলাপ করার জন্য কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কে এম ফয়জুল হক ডালিমের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি অসুস্থতা জনিত কারণে ভারতে অবস্থান করায় তার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

যাযাদি/ এম

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

ক্যাম্পাস
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
হাট্টি মা টিম টিম
কৃষি ও সম্ভাবনা
রঙ বেরঙ

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে