logo
শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

সংবাদ সংক্ষেপ

ঢাকা কলেজে যুক্তিতর্ক কর্মশালা

য় ক্যাম্পাস ডেস্ক

ঢাকা কলেজ সাংবাদিক সমিতি (ঢাকসাস) ও মুক্তিফোরামের উদ্যোগে যুক্তিতর্ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সাধারণ শিক্ষার্থীদের জ্ঞানের পরিধি বাড়িয়ে দিতে ভিন্নধর্মী যুক্তিতর্ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা কলেজের ১০৬ নম্বর কক্ষে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালায় প্রথিতযশা ব্যক্তিরা সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন।

কর্মশালার ১ম ধাপেই বিশিষ্ট লেখক ও কবি আক্তারুজ্জামান আজাদের ??'স্যাটায়ারে রাজনৈতিক সমালোচনা' বিষয়ক উপস্থাপনা প্রশিক্ষণার্থীদের উদ্দীপ্ত করে। এরপর 'আজকের দিনে সাংবাদিকতার অভিজ্ঞতা পদ্ধতি' বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন সাকিব সরকার (ঢাকা ট্রিবিউন), বীথি সপ্তর্ষি (জিটিভি), জীবন আহমেদ (মানবজমিন) এবং মুক্তিফোরামের অনুপম দেবাশীষ রায়।

'প্রবন্ধ ও কলাম লেখার দায়িত্ব ও পদ্ধতি' বিষয়ে প্রশিক্ষণার্থীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট লেখক ও সাংবাদিক ফারুক ওয়াসিফ। এরপর ইন্টারন্যাশনাল ফুড পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের কর্মকর্তা নাহিয়ান বিন খালেদের মনোমুগ্ধকর আলোচনায় যুক্তিতর্কে মেতে ওঠে প্রশিক্ষণার্থীরা। তার আলোচনার বিষয় ছিল 'অর্থনৈতিক রাজনৈতিক ও সামাজিক গবেষণার প্রথম পাঠ'। সর্বশেষ 'মডেল ইউনাইটেড নেশনসে'র প্রক্রিয়া ও পদ্ধতির ওপর আলোচনা করেন মুক্তিফোরামে আরাফ ইবনে সাইফ।

'যুক্তিতর্ক' কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী নাজমুল হাসান সাকিব নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, এই ধরনের কর্মশালায় অংশগ্রহণ করতে পেরে খুব ভালো বোধ করছি। অনেক অজানা বিষয় জানতে পারলাম। আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীরা চাই যেন এই ধরনের আয়োজন অব্যাহত থাকে।

ঢাকা কলেজ সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বিলস্নাল হোসেন সাগর বলেন, আজকের অনুষ্ঠানে সাধারণ শিক্ষার্থীদের অভূতপূর্ব সাড়া আমাদের আশান্বিত করেছে। আমরা আশা করি, সামনে আরও বৃহৎ পরিসরে এ ধরনের আয়োজন করতে পারব। সেই সঙ্গে সার্বিক সহযোগিতার জন্য মুক্তি ফোরামের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

শাবিতে প্রথম ডোপ টেস্টে শিক্ষার্থীদের ভর্তি

য় ক্যাম্পাস ডেস্ক

এই প্রথম দেশে ডোপ টেস্টের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ভর্তির কার্যক্রম শুরু করেছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। এই কার্যক্রমের শুরু হয় গত ১২ নভেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে।

শুধুমাত্র শিক্ষার্থীদের জন্য নয়, সন্দেহভাজন মাদকাসক্ত শিক্ষকদের জন্য থাকবে এই ডোপ টেস্ট বলেছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। তিনি জানান, শিক্ষকদের মধ্যে যদি কেউ মাদকাসক্ত থেকে থাকে তাহলে তাদেরও এই কার্যক্রমের আওতায় আনা হবে। সন্দেহভাজন শিক্ষকদের ওপরেও করা হবে এই ডোপ টেস্ট।

এই কার্যক্রমের ধারাবাহিকতা নিয়ে তিনি জানান, এই কার্যক্রম সারাবছর চলমান থাকবে। প্রতি বছর করা হবে এই ডোপ টেস্ট। আর এই টেস্টের জন্য কোনো টাকা দেওয়ার প্রয়োজন নেই। এ ছাড়াও বিভিন্ন সময় এবং ডিপার্টমেন্টে নিয়মিত অভিযান চালানো হবে এবং যাদের সন্দেহ করা হবে তাদের ডোপ টেস্ট করা হবে। শুধুমাত্র প্রথম বর্ষ নয়, প্রত্যেক বর্ষের ছেলেমেয়েদের ওপরেই এই টেস্ট করা হবে এবং যাদের রেজাল্ট পজিটিভ আসবে তাদের রিহ্যাবের আওতায় আনার ব্যবস্থা করা হবে।

ইবির 'সি' ইউনিটে পাসের হার ১১ শতাংশ

য় ক্যাম্পাস ডেস্ক

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদভুক্ত 'সি' ইউনিটের ফল প্রকাশিত হয়েছে। এবারে এ ইউনিটে মোট পাসের হার ১১ শতাংশ। 'সি' ইউনিটের সমন্বয়কারী প্রফেসর ড. জাকারিয়া রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. হারুন উর রশিদ আসকারীর কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল হস্তান্তর করেন।

এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন প্রক্টর (সাময়িক দায়িত্বপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. পরেশ চন্দ্র বর্মণ, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আব্দুল লতিফ, হিউম্যান রিসোর্চ ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. কাজী আখতার হোসেন, হিসাববিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগের সভাপতি প্রফেসর আব্দুস শহিদ মিয়া এবং অধ্যাপক ড. আবু সিনা।

সংশ্লিষ্ট ইউনিট সূত্রে, এ বছর ভর্তি পরীক্ষায় 'সি' ইউনিটে বাণিজ্য ও অবাণিজ্য বিভাগে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ ইউনিটে মোট আবেদনকারী ছিলেন ৮৯৩০ জন। যার মধ্যে মোট উপস্থিতি ছিল ৭৭২৬ জন শিক্ষার্থী। যেখানে মোট পাস করেছে ৮৩৬ জন।

বাণিজ্য বিভাগে ৩১৫টি আসনের বিপরীতে মোট ৪ হাজার ৭৫২ জন শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এতে মোট ৪৬২ জন শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়। উত্তীর্ণদের মধ্যে থেকে ৩১৫ জনকে মেধাতালিকায় এবং ১৪৭ জনকে অপেক্ষমাণ তালিকায় রাখা হয়েছে। অবাণিজ্য বিভাগে ১৩৫টি আসনের বিপরীতে দুই হাজার ৯শত ৭৪ জন শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এতে মোট ৪৬৭ জন শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়। উত্তীর্ণদের মধ্যে থেকে ১৩৫ জনকে মেধাতালিকায় এবং ৩৩২ জনকে অপেক্ষমাণ তালিকায় রাখা হয়েছে।

\হমেধাতালিকায় স্থানপ্রাপ্তদের ১৯ নভেম্বর অনলাইনে (যঃঃঢ়://ধফসরংংরড়হ.রঁ.ধপ.নফ) বিভাগ পছন্দক্রম দিতে বলা হয়েছে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে