logo
সোমবার ১৪ অক্টোবর, ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ০৮ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০  

সংবাদ সংক্ষেপ

জেল পালিয়ে ১৭ বছরের বনবাস, তবু শেষ রক্ষা হয়নি

য় আইন ও বিচার ডেস্ক

নারী ও শিশুপাচারের দায়ে জেলে গিয়েছিলেন সং জিয়াং। একদিন সুযোগ বুঝেই পালিয়ে যান এ চীনা নাগরিক। এরপর শত চেষ্টাতেও তার কোনো সন্ধান পায়নি পুলিশ। দেখতে দেখতে কেটে গেছে ১৭টি বছর। এতদিন পর অবশেষে ফের বাগে পাওয়া গেছে ওই ব্যক্তিকে।

২০০২ সালে একটি কারাগার থেকে পালিয়েছিলেন সং জিয়াং। দক্ষিণ-পশ্চিম চীনের ইউনান প্রদেশে তার শহরে নিয়মিত অনুসন্ধান চালিয়েও কোনো সমাধান মিলছিল না। কোনো কূল-কিনারা না পেয়ে তাই ড্রোনের সাহায্য নেয়া হয়। অবশেষে সেপ্টেম্বরের প্রথমদিকে ছোট একটা সূত্র খুঁজে পায় পুলিশ।

একদিন ঘন জঙ্গলের মধ্যে নীল রঙের ধাতব বস্তু পড়ে থাকতে দেখা যায়। ড্রোন কাছে যেতেই চোখে পড়ে, গুহার কাছে পড়ে রয়েছে বেশ কিছু গৃহস্থালি জিনিসপত্র। পরে পুলিশ সদস্যরা সশরীরে গিয়ে ওই গুহা থেকে সং জিয়াংকে ফের গ্রেপ্তার করেন।

সং জিয়াং জঙ্গলে গাছের ডালপালা দিয়ে আগুন জ্বালাতেন ও পানি পানের জন্য পস্নাস্টিকের বোতল ব্যবহার করতেন। সাজার ভয়ে এতদিন ধরে পাহাড়ি গুহায় একা একা থেকেও নিস্তার মিলল না, ফের সেই জেলখানাতেই পাঠানো হয়েছে ৬৩ বছর বয়সী এ ব্যক্তিকে।

ভারতীয় নাগরিককে দেশে পাঠানোর নির্দেশ আদালতের

য় আইন ও বিচার ডেস্ক

বিমানবন্দর থেকে দুটি আম চুরির অপরাধে এক ভারতীয় নাগরিককে দেশে ফেরত পাঠানোর আদেশ দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) একটি আদালত। একই সঙ্গে তাকে পাঁচ হাজার দিরহাম জরিমানাও করা হয়েছে।

খালিজ টাইমসে প্রকাশিত খবরের বরাতে এনডিটিভি জানিয়েছে, এক যাত্রীর মালপত্র থেকে দুটি আম চুরি করার দায়ে গত বছর দুবাই পুলিশ ওই ভারতীয়কে গ্রেপ্তার করেছিল, সম্প্রতি জরিমানার অর্থ পরিশোধ করেছেন তিনি।

২৭ বছর বয়সী ওই ভারতীয় ২০১৭ সালের ১১ আগস্ট দুবাই বিমানবন্দরের পণ্যাগারে রাখা একটি লাগেজ খুলে ছয় দিরহাম মূল্যের ওই দুটি আম চুরি করেছিলেন। ২০১৮ সালের এপ্রিলে পুলিশ তাকে ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। এরপর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তদন্ত ও জিজ্ঞাসাবাদে আম দুটি চুরির কথা স্বীকার করেছেন ভারতীয় ওই নাগরিক। জিজ্ঞাসাবাদে ওই ব্যক্তি জানিয়েছেন, দুবাই বিমানবন্দরের তিন নম্বর টার্মিনালে কাজ করতেন তিনি। কন্টেইনার থেকে যাত্রীদের লাগেজ নিয়ে এসে কনভেয়ার বেল্টে তুলে দেয়া ও সেখান থেকে লাগেজ কন্টেইনারে নিয়ে যাওয়া ছিল তার কাজ।

ঘটনার দিন তিনি খুব তৃষ্ণার্ত ছিলেন। পানির খোঁজ করে না পেয়ে দুটি আম সেখান থেকে চুরি করেন। ভারতে পাঠানোর জন্য রাখা ফলের বাক্স খুলে দুটি আম তিনি চুরি করেছিলেন বলে স্বীকার করেছেন। পণ্যাগারের সিসিটিভি ক্যামেরায় বিমানবন্দরের ওই কর্মীকে যাত্রীর লাগেজ খুলতে ও চুরি করতে দেখা যায় বলেও তদন্তে বেরিয়েছে।

জার্মানিতে বিদেশিদের ওপর হামলার বিচার শুরু

য় আইন ও বিচার ডেস্ক

জার্মানির পূর্বাঞ্চলের সাক্সোনি রাজ্যের কেমনিৎস শহরে গড়ে ওঠা এক নব্য নাৎসিগোষ্ঠীর আট সদস্যের বিচার সোমবার শুরু হয়েছে। এদের মধ্যে পাঁচজনের বিরুদ্ধে বিদেশিদের ওপর হামলার

অভিযোগ রয়েছে। ২১ থেকে ৩২ বছর বয়সি ওই আটজন কট্টর ডানপন্থি 'রেভুলিউশন কেমনিৎস'গোষ্ঠীর সদস্য।

গতবছর সেপ্টেম্বরে একটি 'ডানপন্থি সন্ত্রাসী সংগঠন গড়ে তোলার' অভিযোগ আনা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। আগামী বছরের এপ্রিল পর্যন্ত বিচার প্রক্রিয়া চলতে পারে।

গতবছর আগস্টে আলা এস. নামে এক সিরীয় আশ্রয়প্রার্থীর ছুরিকাঘাতে ডানিয়েল এইচ. নামের এক জার্মান প্রাণ হারান। ওই ঘটনার প্রতিবাদে কেমনিৎসে অভিবাসনবিরোধী দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়েছিল। সম্প্রতি সিরীয় ওই নাগরিককে সাড়ে ৯ বছরের কারাদন্ড দেয়া হয়েছে।

কৌঁসুলিদের অভিযোগ, বিচার শুরু হওয়া আটজনের মধ্যে পাঁচজন গতবছর সেপ্টেম্বরে কেমনিৎসে বসবাসরত বিদেশিদের ওপর 'কাচের বোতল, ওয়েটেড নাকল গস্নাভস (একধরনের অস্ত্র) ও ইলেক্ট্রোশক অ্যাপস্নায়েন্স' নিয়ে হামলা করেছিলেন। ওই ঘটনা অক্টোবরের ৩ তারিখ বার্লিনে বড় হামলার পরিকল্পনার 'পরীক্ষামূলক ব্যবস্থা' ছিল বলেও মন্তব্য করেন তারা।

জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের নীতির কারণে ২০১৫ সালে প্রায় এক মিলিয়ন শরণার্থী জার্মানিতে প্রবেশ করেছিল। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত রাজ্য নির্বাচনে সাড়ে ২৭ শতাংশ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় হয়েছে এএফডি।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে