logo
বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই, ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

  ফাহমি জাহান   ১২ মে ২০১৯, ০০:০০  

ঈদে চাই নতুন জামা

ঈদে চাই নতুন জামা
রোজা শুরু হয়েছে। জানাচ্ছে ঈদ আসছে। সঙ্গে আনছে খুশির জোয়ার। এ খুশি শিশুদেরই বেশি থাকে। ঈদের পোশাক ঘিরে তাদের যত জল্পনা-কল্পনা। বড়দের পোশাক কেনা হোক বা না হোক, ছোটদের পোশাক কেনা চাই-ই। অভিভাবকও সবচেয়ে আকর্ষণীয় সুন্দর পোশাকটি কিনে দিতে চান সন্তানকে। বাজার ঘুরে দেখা গেল, বিভিন্ন রং ও নকশায় অলঙ্কৃৃত করা হয়েছে শিশুদের পোশাক। এবার দেশীয় ঐতিহ্যবাহী কাপড় শিশুদের পোশাকে নতুন মাত্রা যোগ করেছে।

মেয়েদের আনারকলি, একটু ঘের দেয়া লম্বা কামিজ যেমন চলবে, তেমনি ছেলেশিশুদের পাঞ্জাবিতে এ লাইন কাটের ব্যবহার বেশি এবার। আর শিশুরা সারা দিন জমকালো পোশাক পরে থাকতে পারে না। সেজন্য সুতি, ডেনিম বা জিনসের প্যান্ট, খাটো হাতার শার্ট, ফতুয়া, টপস অনায়াসে পরতে পারে।

মেয়েশিশুদের জন্য পার্টি ফ্রক, ঘাগরা চোলি, টিউনিক ক্র্যাপ্রি ও লেগিংস চলবে। পাশাপাশি সালোয়ার-কামিজও পরতে পারে এবারের ঈদে। কাতান, টিসু্য, মসলিন ও সার্টিনের ব্যবহার ভালো লাগবে পার্টি পোশাকে। এ ছাড়া সুতির কাপড় তো রয়েছেই। আর এ লাইন কাটের চল থাকবে এবার। নকশায় প্রাধান্য পাবে কারচুপি, অ্যামব্রয়ডারিসহ হাতের কাজ। আর শিশুদের জন্য বরাবরের মতো বেছে নেয়া হয়েছে উজ্জ্বল রং।

ঈদটা হবে গরমে। তাই এ সময় দরকার আরামদায়ক পোশাক। গরমকে বিবেচনা করে হাতাসহ ও হাতা কাটা- দুই ধরনের পোশাকই থাকছে। ছেলেমেয়ে উভয়ের জন্য থাকবে থ্রি কোয়ার্টার প্যান্ট। দাওয়াতে যাওয়ার সময় বেছে নিতে পারেন জমকালো সিল্ক, অ্যান্ডির পাঞ্জাবি।

ওভেন ফেব্রিকস, স্ট্রাইপ ফেব্রিকস, সুতি, ডেনিম কাপড়ের চল বেশি থাকবে। হাতার ডিজাইনে দেখা যাবে বৈচিত্র্য। রঙের ক্ষেত্রে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে নীল, সবুজ, সাদা ও হলুদকে। সুতির কাপড় দিয়ে তৈরি করা হয়েছে ছেলেদের শার্ট। বড় ও ছোট দুই ধরনের হাতাই ব্যবহার করা হয়েছে শার্টে।

দেশীয় ফ্যাশন হাউসগুলো সাজানো হয়েছে শিশুদের রং বেরঙের পোশাক দিয়ে। ঈদ সামনে রেখে আড়ং মেয়েশিশুদের জন্য এনেছে ফ্রিল দেয়া পার্টি ফ্রক, হাতের জমকালো কাজ করা সালোয়ার-কামিজ, ঘাগরা চোলি। সালোয়ার ও প্যান্টের কাজে নকশা এবং কাটে দেখা গেছে বৈচিত্র্য। ছেলেশিশুদের পাঞ্জাবিতে কাপড় হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে অ্যান্ডি, সিল্ক, মসলিন ও খাদি। উৎসবের আমেজ ফুটিয়ে তোলা হয়েছে বিভিন্ন রকম হাতের কাজ দিয়ে। যাত্রায় শিশুদের পোশাকের কাটিংয়ে নান্দনিক নকশা করা হয়েছে। এখানে অ্যান্ডি, সুতির কাপড় প্রাধান্য পেয়েছে। এ ছাড়া ভিন্নতা আনতে মেয়েদের পোশাকে ব্যবহার করা হয়েছে বেল্ট আর ছেলেদের পোশাকের মধ্যে আছে ফতুয়া, শার্ট ও পাঞ্জাবি।

এ ছাড়া দেশাল, বাংলার মেলা, কে ক্র্যাফট, অঞ্জন'স, গার্লস ক্লোজেট, নন্দন, নিপুণ, নিউমার্কেট, গাউছিয়াসহ ছোট-বড় সব ফ্যাশন হাউসে শিশুদের নান্দনিক পোশাক পাওয়া যাবে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে