logo
বুধবার, ০৮ জুলাই ২০২০, ২৪ আষাঢ় ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ২৫ জুন ২০২০, ০০:০০  

নবযাত্রায় বিদ্যা সিনহা মিম

'কী করি আজ, ভেবে না পাই'- লম্বা ঘরবন্দি থেকে অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিমের অবস্থা দাঁড়িয়েছিল অনেকটা এরকমই। চাপা আতংকের এই সময়টা কিছুতেই কাটছিল না দুই বাংলার সেলুলয়েড কাঁপানো অভিনেত্রীর। আর অলস সময়েই মাথায় এলো নতুন ফন্দি, নিজের প্রডাকশন হাউস থেকে ইউটিউবের জন্য বানাবেন কনটেন্ট। শুরু হলো 'মিমস কাস্টডি'র যাত্রা। মহামারিকালে মিমকে নতুন আবেশে পেল ভক্তরা। লিখেছেন- রায়হান রহমান

নবযাত্রায় বিদ্যা সিনহা মিম
বিদ্যা সিনহা মিম
'বাসায় থাকতে থাকতে কিছুটা বিরক্ত। ভাবলাম কিছু কাজ করি। তাই নিজের ইউটিউব চ্যানেলের জন্য একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র তৈরি করলাম। 'কানেকশন' নামের এই চলচ্চিত্রটি এরই মধ্যে দর্শকের মাঝে সাড়া ফেলেছে।'- এভাবেই নিজের উচ্ছ্বাসের কথা জানান দিয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিম।

একই বিল্ডিংয়ে দু'টি ফ্ল্যাটে থাকেন তাহসান ও মিম। বাড়ির দারোয়ানকে ফোন করতে গিয়ে বাধে যত ঝামেলা। ভুলে তাহসানকে ফোন দিয়ে বসেন মিম। ভুল থেকেই শুরু হয় ভালোবাসা। কথায় কথা এগোয়, সঙ্গে গল্পও। তৈরি হয় দুজনের মধ্যে অন্যরকম 'কানেকশন'। এমন গল্প নিয়েই স্বল্পদৈর্ঘ্যটি নির্মাণ হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে মিম বলেন, 'তাহসান ভাইয়ের সঙ্গে আমার বোঝাপাড়া দারুণ। আমরা একসঙ্গে বেশ কয়েকটি হিট কাজ করেছি। বিশেষ করে বিজ্ঞাপনগুলো। তাই ভাবলাম গল্পটায় তাহসান ভাইকে দরকার। তার সঙ্গে কথা বললে তিনিও রাজি হলেন। ব্যস! কাজটি হয়ে গেল।'

এটি নির্মিত হয়েছে মিমের নিজের প্রডাকশন থেকে। অবমুক্তও করা হয়েছে এই অভিনেত্রীর নিজের ইউটিউব চ্যানেলে। এখানেই শেষ নয়। মিম এখন নিজের ইউটিউব চ্যানেলের জন্য প্রতিনিয়ত প্রোগ্রাম বানাচ্ছেন। 'মিম'স কাস্টডি' নামের এই অনুষ্ঠানে প্রতিদিনই একজন তারকাকে নিয়ে হাজির হন তিনি। চলচ্চিত্র, অভিনয় জীবন, ব্যক্তিগত জীবন, গুজবসহ নানা বিষয়ে খোলামেলা আলোচনা করেন সেখানে। এরই মধ্যে শো'টা দর্শকের মাঝে বেশ সাড়া ফেলেছে। এর মধ্য দিয়ে মিম প্রথমবারের মতো উপস্থাপনাতেও এলেন। আর এসেই বাজিমাত।

এদিকে শর্তসাপেক্ষ চলচ্চিত্রের শুটিং শুরু হয়েছে। তবে এখনই শুটিংয়ে যেতে নারাজ 'পদ্ম পাতার জল'খ্যাত নায়িকা। তার ভাষায়, 'করোনা পরিস্থিতি আরও কয়েকটা দিন পর্যালোচনা করতে চাই। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলে কাজের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেব।'

মিম আরও বলেন, 'দুর্যোগের পুরো সময় বাসাতেই আছি। মাঝে মাঝে চিত্রনাট্য নিয়ে ভেবেছি। যদিও এই সময়ে নতুন কোনো সিনেমার বিষয়ে কারও সঙ্গে কথা হয়নি। আগেই বেশ কয়েকটি সিনেমায় কাজের কথা হয়েছিল, সেগুলোও করোনার কারণে আটকে আছে। কয়েকটি ছবির শুটিং শেষ হলেও ডাবিংয়ের কাজ বাকি আছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত কোনো কিছুতেই মন বসছে না।'

ঘরে থাকলেও খোঁজ-খবর রাখছেন চলচ্চিত্রের হালচাল সম্পর্কে। একের পর এক সিনেমা হল বন্ধ হওয়ার খবরে তার কপালেও চিন্তার ভাঁজ। তিনি বলেন, 'একটা দুর্যোগ শেষ হলে, তার পরবর্তী সময়ে বেশকিছু প্রতিবন্ধকতা তৈরি হয়। তেমনি করোনার মতো মহামারি শেষ হলেও দীর্ঘমেয়াদি প্রতিবন্ধকতা তৈরি হবে। অন্যান্য খাতের মতো চলচ্চিত্রাঙ্গনেও এর বড়সড় একটি প্রভাব পড়বে বা পড়তে শুরু করেছে। এ ক্ষেত্রে সবাইকে যার যার জায়গা থেকে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে। আশা করছি, দ্রম্নতই আমরা সব প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে উঠব।'

মিম-তাহসানের 'কানেকশন' দর্শকপ্রিয়তা পাওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিম ভক্তরা বেশ হইচই করেছে। কেউ কেউ জানতে চাইছে মিম কি ছোট পর্দায় নিয়মিত অভিনয় করবে? এমন প্রশ্নের সোজা-সাপ্টা উত্তর দিয়েছেন মিম। তিনি বলেন, 'আমি আগেও ছোট পর্দায় কাজ করেছি। মাঝে মধ্যেই করি। বিশেষ দিনগুলোতে ছোট পর্দার জন্য কাজ করতে আমার আপত্তি নেই। চেষ্টা করব এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে। তবে এই মুহূর্তে সবার সুস্থ থাকাটা জরুরি। বেঁচে থাকলে অনেক কাজ করা যাবে।'

খবর আছে কলকাতার কাজেরও। লকডাউনে না পড়লে হয়তো কলকাতায় নতুন আরও একটি চলচ্চিত্রের কাজ শুরু হতো। কিন্তু করোনার কারণে সবকিছু এখন ওলোটপালট। তাছাড়া দেশীয় একাধিক চলচ্চিত্রের কাজ শেষ করেছেন মিম। মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে এক জোড়া ছবি।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে