logo
বুধবার, ০৮ জুলাই ২০২০, ২৪ আষাঢ় ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ২৫ জুন ২০২০, ০০:০০  

স ং বা দ স ং ক্ষে প

স ং বা দ স ং ক্ষে প
নিশ্চুপ পরীমনি

নানা কারণে মন ভালো নেই দেশীয় চিত্রনায়িকা পরীমনির। একদিকে করোনা আতঙ্ক, কাজ-কর্ম বন্ধ রেখে বন্দি জীবন-যাপন করছেন। অন্যদিকে নতুন বিয়ে করেও স্বামীর সঙ্গে রোমাঞ্চ কিংবা দেখা-সাক্ষাৎ হচ্ছে না। যোগাযোগও নেই দুজনের তেমন। বর্তমানে তারা আলাদা থাকছেন- এমন খবরই ভেসে বেড়াচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়াতেও খুব একটা দেখা যাচ্ছে না। নিজের সেলফোনও বন্ধ রাখেন সব সময়। এত চঞ্চলা ও হাস্যোজ্জ্বল এক নায়িকা পরী, যে কিনা কদিন পরপরই নানা কারণে আলোচনায় থাকতেন, সেই পরীর হঠাৎ চুপ হয়ে যাওয়া মেনে নিতে পারছেন না ভক্তরা। পরীমনির ঘরবন্দি একাকী জীবন কীভাবে কাটছে সেটা জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'নতুন সব সিনেমার চিত্রনাট্য পড়ছি। সিনেমা দেখছি।' ওয়েব সিরিজ দেখছি। নিত্যনতুন রান্না করছি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কম সময় দিচ্ছি। অন্যদিকে পরী অভিনীত একের পর এক ছবি পিছিয়ে যাওয়াতেও হতাশ এ নায়িকা। বহুল প্রত্যাশিত পরীমনির 'বিশ্ব সুন্দরী'র মুক্তি পিছিয়ে যাওয়ার পর এবার অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে তার 'বাহাদুরী'র মুক্তি। সব মিলিয়ে সময়টা ভালো যাচ্ছে না পরীমনির।

গুডবাই নেহা

সোশ্যাল মিডিয়াকে এবার গুডবাই জানালেন ভারতীয় কণ্ঠশিল্পী নেহা কক্কর। কয়েকদিনের জন্য সোশ্যাল মিডিয়া থেকে বিদায় নিতে চলেছেন তিনি। কারণ হিসেবে ফ্যানদের জানিয়েছেন, তিনি ভালোই আছেন। তবে ঘৃণা, স্বজন পোষণ, হিংসা এবং বিচার থেকে মুক্ত হওয়ার জন্য তার এই সিদ্ধান্ত। তিনি লিখেছেন, 'ঘুমাতে গেলাম! পৃথিবীটা ভালো হলে আমাকে ডেকে দিও। এমন একটা পৃথিবী, যেখানে থাকবে স্বাধীনতা, ভালোবাসা, সম্মান, যত্ন, আনন্দ, মেনে নিতে শেখা, ভালো মানুষ। থাকবে না ঘৃণা, স্বজন পোষণ, হিংসা, খারাপ লোক বলে বিচার, হিটলার, খুনি, আত্মহত্যা। শুভ রাত্রি।' তিনি আরও লিখেছেন, 'চিন্তা নেই আমি মরে যাচ্ছি না। কয়েক দিনের জন্য সরে দাঁড়াচ্ছি।' এই সময়ে বলিউডের একজন অত্যন্ত জনপ্রিয় সংগীতশিল্পীর এই কাজে অনেকেই বিচলিত। বিনোদন জগতের আড়ালে আসলে যে অনেকটা খারাপ লাগা, অনেক না বলা কথা আছে, তা আরও একবার প্রমাণিত।

শুভ জন্মদিন কারিশমা

বলিউড অভিনেত্রী কারিশমা কাপুরের আজ জন্মদিন। ১৯৭৪ সালের এই দিনে মুম্বাই শহরের স্বনামধন্য কাপুর পরিবারে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। মাত্র সতের বছর বয়সে 'ভারত ভূষণ' নামের একটি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে কারিশমা সেলুলয়েডের পর্দায় পা রাখেন। সেই থেকে শুরু। আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। জিগর, আনাডি, রাজা বাবু, সুহাগ, কুলি নম্বর ওয়ান, গোপি কিষাণ, সাজান চালে শাশুড়াল এবং জিতসহ অনেক ব্যবসাসফল ছবিতে অভিনয় করে পেয়েছেন প্রশংসা ও পুরস্কার। বাজিমাত করেছেন ভারতসহ বিশ্বের অনেক দর্শককে। 'রাজা হিন্দুস্তানি' নামের একটি চলচ্চিত্রে দুর্দান্ত অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে পান ফিল্মফেয়ার পুরস্কার। তার কিছুদিন পর 'দিল তো পাগল হ্যায়'তে অভিনয় করে পেয়েছেন ভারতীয় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। এছাড়াও ফিজ, জুবেইদাসহ অসংখ্য সিনেমায় অভিনয় করে মন জয় করেছেন দর্শকদের। একের পর এক হিট সিনেমা উপহার দিয়ে নিজেকে নিয়ে গেছেন অনন্য এক উচ্চতায়। একটা সময় হিট সিনেমা মানেই কারিশমা কাপুরকে মনে করা হতো। সিনেমার সেই ব্যস্ততা কমে গেলেও কারিশমাকে এখনো সবচেয়ে আবেদনময়ী অভিনেত্রী হিসেবে বিবেচনা করা হয়।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে