logo
বুধবার, ০৫ আগস্ট ২০২০, ২১ শ্রাবণ ১৪২৬

  তারার মেলা রিপোর্ট   ০২ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

বছরটা হতে পারে মিমের

'আমি খুব ভাগ্যবতী যে, ক্যারিয়ারের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত নামিদামি পরিচালকদের সঙ্গে কাজ করেছি, বিগ বাজেটের ছবি করার সুযোগ পেয়েছি এবং গল্প ও শৈল্পিক নির্মাণের ছবিতে কাজ করেছি। এটা সত্যিই অনেক পজিটিভ একটা বিষয়। দর্শক আমাকে কতটা গ্রহণ করেছেন সেটাই হচ্ছে বিষয়। দর্শক যদি পছন্দ করেন তাহলে আমি তাদের জন্য কাজ করব আর দর্শক যখন আমাকে আর চাইবেন না- তখন আর কাজ করব না।'

বছরটা হতে পারে মিমের
বিদ্যা সিনহা মিম
লাক্স-চ্যানেল আই সুন্দরী প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শোবিজাঙ্গনে আগমন ঘটে বিদ্যা সিনহা মিমের। এ প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়ে সবার নজরে আসেন তিনি। সে বছরেই চলচ্চিত্রে নাম লেখান হুমায়ূন আহমেদ পরিচালিত 'আমার আছে জল' ছবির মাধ্যমে। এরপর শাকিব খানসহ সময়ের আলোচিত নায়কদের বিপরীতে অভিনয় করে নিজের দূ্যতি ছড়ান। অনবদ্য অভিনয়ের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও অর্জন করেছেন মিম। ক্যারিয়ারের এক যুগে তিনি এখন ঢাকাই ছবির অপরিহার্য নায়িকায় পরিণত হয়েছেন। শুধু ঢাকাই সিনেমাতেই নয়, টলিউডের সিনেমাতেও চাহিদা রয়েছে তার। ক্যারিয়ারের শুরুতে মিম চলচ্চিত্রের পাশাপাশি নাটক ও বিজ্ঞাপনেও মডেল হয়েছেন। সাবলীল অভিনয়ের জন্য তিনি ছোট পর্দাতেও আলোচিত ছিলেন। তবে চলচ্চিত্রে তার ব্যস্ততা বেড়ে যাওয়ায় ছোট পর্দা থেকে নিজেকে সরিয়ে এনেছেন। এখন চলচ্চিত্রেই তার ব্যস্ততা। তার ধ্যান-জ্ঞান এখন চলচ্চিত্র নিয়েই। মিম জোয়ারে গা ভাসিয়ে চলার নায়িকা নন। তাই প্রস্তাব পাওয়া মাত্রই সব ধরনের চলচ্চিত্রে কাজ করেন না। গল্প ও চরিত্রের গুরুত্ব বুঝে অভিনয় করেন তিনি। গেল বছরে মিমকে একটি মাত্র সিনেমায় দেখা গেছে। 'সাপলুডু' ছবি দিয়ে বছরজুড়ে আলোচনায় ছিলেন তিনি। গোলাম সোহরাব দোদুল পরিচালিত এ ছবিটি মুক্তির পর নতুন করে আলোচনায় আসেন মিম। মিমের অভিনয় ফের প্রশংসা কুড়ায়। এ প্রসঙ্গে মিম বলেন, 'সাপলুডু' ছবিটি বেশ প্রশংসিত হয়েছে। এ ছবিতে আমাকে স্ট্রাগল করা একজন মেয়ের চরিত্রে দেখা গেছে। আরেফিন শুভর সঙ্গে এটা ছিল আমার দ্বিতীয় চলচ্চিত্র।' 'সাপলুডু' মুক্তির রেশ কাটতে না কাটতেই নতুন ছবির জানান দিলেন চলচ্চিত্রের এ গস্নামার নায়িকা। নতুন বছরটি হয়তো তার জন্যই অপেক্ষা করছে। নতুন বছরে মুক্তির অপেক্ষায় আছে একাধিক ছবি। সেই সঙ্গে শিডিউল খাতায় যুক্ত করছেন নিত্যনতুন কাজ। বাংলাদেশ ও কলকাতা দুই বাংলার ছবিতে দেখা যাবে তাকে। বছরের শুরুতেই চমক নিয়ে আসছেন মিমি। তরুণ নির্মাতা রায়হান রাফির 'পরাণ' ও 'ইত্তেফাক' সিনেমার মাধ্যমে নতুন বছরে হাজির হচ্ছেন বিদ্যা সিনহা মিম। আগামী ভালোবাসা দিবসকে সামনে রেখে মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে 'পরাণ'। ইতোমধ্যেই শেষ হয়েছে ছবির দৃশ্যধারণ ও সম্পাদনার কাজ। ছবিতে মিম ছাড়াও রয়েছে ইয়াশ রোহান ও শরীফুল রাজ।

এদিকে মিম অভিনীত ও রায়হান রাফির আরেকটি ছবি 'ইত্তেফাক'। সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন লোকেশনে ছবিটির শুটিং চলছে। আগামী বছরের মার্চের মধ্যে ছবিটির শুটিং শেষ হবে বলে জানান মিম। একই বছরে ছবিটি মুক্তি পাবে বলেও নিশ্চিত করেন তিনি। 'ইত্তেফাক' ছবিতে মিমের বিপরীতে অভিনয় করেছেন অভিনেতা সিয়াম আহমদ। এ দুটি চলচ্চিত্র ছাড়াও মিমের নতুন বছরে আরও কয়েকটি ছবি নিয়ে কথা চলছে। মিম বলেন, 'পরান' ও 'ইত্তেফাক' এই দুই চলচ্চিত্র ছাড়াও ৩টি চলচ্চিত্র নিয়ে প্রযোজকদের সঙ্গে কথাবার্তা চলছে। চিত্রনাট্য পছন্দ হওয়াসহ সবকিছু মিলে গেলে নতুন বছরে আরো বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করব।'

২০১৯ সালে চলচ্চিত্রে অনেক ঘটনাই ঘটেছে। চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংগঠনের নির্বাচনসহ নানা ঘটনার জন্ম দিয়েছে। বছরটি নিয়ে মিম বলেন, 'গেল বছরটি ভালোই কেটেছে। শিল্পী সমিতি, প্রযোজক সমিতিসহ বিভিন্ন সংগঠনের নির্বাচন হয়েছে। সংগঠনগুলো নানা উদ্যোগও হাতে নিয়েছে। সবাই মিলে কাজ করলে চলচ্চিত্রের উন্নতি হবে। আমরা এখন অনেক ভালোর দিকে এগোচ্ছি। একঝাঁক তরুণ মেধাবী নির্মাতা এখন খুব ভালো কাজ করছে। তাইতো কাজের ব্যাপক পরিবতর্ন হয়েছে। নতুন ধারার কাজ হচ্ছে এখন। '

মিমের ভবিষ্যৎ কেমন হবে? মিমের জবাব, 'এটা আসলে যার যার টিকে থাকার বিষয়। আর দর্শক-ইতো আসল। দর্শক যাকে গ্রহণ করে নেবেন, সেই টিকে থাকবে।

তবে সঠিক দিক-নির্দেশনাটাও প্রয়োজন। আমি খুব ভাগ্যবতী যে, ক্যারিয়ারের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত নামিদামি পরিচালকদের সঙ্গে কাজ করেছি, বিগ বাজেটের ছবি করার সুযোগ পেয়েছি এবং গল্প ও শৈল্পিক নির্মাণের ছবিতে কাজ করেছি। এটা সত্যিই অনেক পজিটিভ একটা বিষয়। দর্শক আমাকে কতটা গ্রহণ করেছেন সেটাই হচ্ছে বিষয়। দশর্ক যদি পছন্দ করেন তাহলে আমি তাদের জন্য কাজ করব আর দর্শক যখন আমাকে আর চাইবেন না- তখন আর কাজ করব না।'

চলচ্চিত্রের বাইরেও বিভিন্ন মাধ্যমে কাজ করছেন বিদ্যা সিনহা মিম। গেল বছরে একটি মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানির বিজ্ঞাপনে কাছ করেছেন তিনি। প্রচারও হচ্ছে সে বিজ্ঞাপন। শুধু তাই নয়, নিজেকে ফিট রাখতে প্রতিনিয়ত ঘাম ঝরাচ্ছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এ অভিনেত্রী। সব মিলিয়ে মিমের বৃহস্পতি এখন তুঙ্গে। সময়ের অন্যসব নায়িকার চেয়ে ব্যস্ততায় কিছুটা হলেও এগিয়ে তিনি। অন্যদিকে কলকাতার পরিচালক ও দর্শকের কাছেও একটু একটু আস্থার পাত্রী হয়ে উঠছেন এ লাক্স তারকা।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে