রোববার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১
walton

নিয়ে এসে ভালোবাসা ছুঁয়ে দিল বসন্ত

নাজমুল মৃধা
  ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ০০:০০

ভালোবাসা আর প্রকৃতি এ যুগের প্রেমিকযুগল। বসন্ত তার হলদে শরীরে ভ্রমরের ছোঁয়া চায়। তার রূপে মাতোয়ারা হয়েই বাঙালি পুরুষ হলদে পাঞ্জাবিতে ঢেকে দেয় শরীর। প্রিয়তমার কোমল হাতের স্পর্শে সে হেঁটে বেড়ায় পাহাড়-সমতল- আর মনুষ্য মেলায়। বাঙালি নারীর শাশ্বত সাজে শাড়ি হয় বসন্তের পরিচয়। লাল-নীল-হলুদ ফুলের রং যেমন হয় শাড়ির রূপ তেমনি এ সব শোভা পায় হাতের মুঠোয় অথবা চুলের ভাঁজে। অথবা লাল টকটকে শিমূল ফুল নয়তো বাহারি ফুলে মোড়ানো মুকুট স্থান পায় প্রিয়তমার মাথায়। বসন্ত যদি হয় প্রেমিকা ভালোবাসা তার প্রেমিক। কেন বললাম? বসন্ত তো আগে ছিল বাঙালির-বাংলা ভূমির প্রকৃতির উৎসব। আর এখন? বসন্তকে আরও চঞ্চল করে দেয় ভালোবাসা দিবস। দুই উৎসব মিলিত হয় একে-অন্যকে প্রেমসত্তার চূড়ায় পৌঁছে দিতে।

এই যেমন ১৪ ফেব্রম্নয়ারিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ব্যস্ত ছিল বসন্ত আর ভালোবাসা যুগলের প্রেম-ছোঁয়া স্পর্শে। চুড়ির ঝনঝনানি, নূপুরের নিক্বন, গোলাপের পাপড়িতে হৃদয় নাচিয়ে তরুণী তার প্রিয়তমের হাত ধরে হেঁটে গিয়েছে প্যারিস রোড ধরে। প্রেমিক তার হলুদ পাঞ্জাবির পকেটে উপহার লুকিয়ে বেড়িয়েছে পশ্চিমপাড়া। হয়তো হঠাৎ চমকে দিতে, নয়তো ভালোবাসার প্রমাণ দিতে। এত বসন্তে প্রেমের গল্প। শুধু কী তা-ই। বাবার শক্ত হাতের মুঠোয় ছোট সোনামণির কচি হাত খুঁজে ফিরেছে বসন্তের আবহ। প্রকৃতির রূপে মাতোয়ারা হয়ে এদিন কবি লিখেছেন কবিতা। অথবা অগণিত রমণীর ভিড়ে কোনো একাকী পুরুষ খুঁজে ফিরেছে তার প্রিয়তমাকে। শাবাশ বাংলাদেশ মাঠে বন্ধুদের আড্ডায় বসন্ত আর ভালোবাসা খেলা করেছে নিরন্তর শুভকামনায়। হয়তো এদিন কোনো পুরুষ বলে দিয়েছে তার লুকানো প্রেম; প্রেমিকাকে গোলাপ দিয়ে 'আই লাভ ইউ'। এদিন ছেঁড়া কাপড়ে জুতাহীন কচি পায়ে হেঁটে বেড়ানো শিশুকুড়ানিরা পেয়েছে কোনো যুগলের উষ্ণ ভালোবাসা। শিশুকুড়ানিদের দেওয়া তাদের দশ টাকার নোট অথবা পাঁচ টাকার কয়েনে এদিন বসন্ত আর ভালোবাসা দিয়েছে মনুষ্যত্বের বার্তা।

এদিন ইবলিশ মাঠ, পূর্বপাড়া, আমতলা, লিচুতলা, খোলামাঠ আর চারুকলার চত্বরে চত্বরে লেগেছিল ছবি তোলার ধুম। মুঠোফোনের ঝাপসা ক্যামেরায় যেমন নিম্নবিত্তরা খুঁজে পেয়েছে তার ঝাপসা জীবনের ছবি তেমনি দামি স্মার্ট ফোনের সেলফিতে উঠে এসেছে চকচকে উচ্চবিত্তদের ঝকঝকে ছবি। কেউ আরও উপরে। ডিএসএলআরের শক্তিশালী লেন্সে অনেকেই তুলে এনেছে তাদের চেহারার কারুকার্য। সবার উদ্দেশ্য একটাই বসন্ত আর ভালোবাসার আবহ পৌঁছে দেওয়া। হয়তো তারা ফেসবুক, ইন্সটাগ্রামে তাদের ক্যাপশনে লিখে রেখেছে :

ফুল ফুটুক আর নাই ফুটুক

আজ বসন্ত!

অথবা

ভালোবাসা দিবসে সবাইকে শুভেচ্ছা।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে