রোববার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১

জ্ঞানের গভীরে যেতে হলে পড়তে হবে দর্শন

ম সাফা আক্তার নোলক
  ১৬ জুলাই ২০২২, ০০:০০

দর্শন!!! আমাদের সবার দৈনন্দিন জীবনের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত হলেও, এ বিষয়টি সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা খুব কম মানুষেরই আছে। লোকমুখে প্রচলিত আধ্যাত্মিক কিংবা অসামঞ্জস্য বিষয় হিসেবে লোকমুখে প্রচলিত হলেও এর আসল গুরুত্বটিই সঠিকভাবে আমরা জানি না।

পড়াশোনার আসল উদ্দেশ্য হলো কোনো বিষয় সম্পর্কে গভীরভাবে জানা, জ্ঞান অর্জন করা এবং নিজের মধ্যে উপলব্ধির সৃষ্টি করা। আর জ্ঞানের এই গভীরতায় নিয়ে যায় দর্শন। জ্ঞান অর্জনের মাধ্যমে নিজেকে জানা, মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে শেখায় দর্শন। দর্শন মানুষের মধ্যে জানার আগ্রহ সৃষ্টি করে, গভীরভাবে জ্ঞান সাধন করার উপায় সৃষ্টি করে। দর্শন শিক্ষার্থীদের নৈতিকতার শিক্ষা দেয়। মানুষ যে কাজটি করে আইনের ভয়ে, দর্শনের ধারায় চলমান শিক্ষার্থীরা তা নৈতিকতার ভিত্তিতে করে থাকে। দর্শন হলো সব বিজ্ঞানের, বিজ্ঞান। অথচ বাংলাদেশের পরিপ্রেক্ষিতে এটি কোনো উচ্চমানের বিষয় না।

কি পড়ানো হয় দর্শন বিভাগে

মানুষের জীবন, বিশ্বজগৎ, সমাজ, জ্ঞান, মানুষের চিন্তা-চেতনা, নীতি-নৈতিকতার শিক্ষা সবকিছুই দর্শনের শিক্ষার অংশ। মানবজীবনের এমন কোনো দিক নেই যেটি দর্শনে আলোচ্য বিষয় নয়।

দর্শন পড়ে কি শেখা যায়

দর্শনে অধ্যয়নের মাধ্যমে যে কোনো বিষয় সম্পর্কে গভীরভাবে জ্ঞান অর্জন করা যায়। দর্শনের শিক্ষার্থীরা যে কোনো বিষয়কে বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে যাচাই করে, প্রশ্ন তুলতে পারে, সঠিক যুক্তির সাহায্যে দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারে। নিজেদের মধ্যে নৈতিকতার বিকাশ, জ্ঞানের প্রতি ভালোবাসা ও জ্ঞানের বিশ্লেষণ পরবর্তীতে তাদের চাকরির ক্ষেত্রে ও ব্যক্তিগত জীবনে অনেক এগিয়ে রাখে।

চাকরির ক্ষেত্রে ভবিষ্যৎ

বিষয়ভিত্তিক চাকরি ছাড়া প্রায় সব ক্ষেত্রেই দর্শন বিভাগে পড়ুয়াদের কাজের সুযোগ আছে। সরকারি-বেসরকারি সব পর্যায়ে তাদের কাজের সুযোগ বিদ্যমান। শিক্ষক, গবেষক, সাংবাদিক সব দিকেই দর্শনের শিক্ষার্থী রয়েছে। তা ছাড়া বিসিএস ও ব্যাংক জবের ক্ষেত্রেও দর্শন বিভাগের অনেক শিক্ষার্থী কাজ করছে। বর্তমানে বিভিন্ন কোম্পানিতে দর্শন বিভাগের শিক্ষার্থীদের উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। তাই চাকরি ক্ষেত্রে দর্শনের শিক্ষার্থীদের অনেক সুযোগ রয়েছে।

কোথায় পড়ানো হয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং বিভিন্ন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে দর্শন বিষয়টি পড়ানো হয়।

উচ্চশিক্ষার সুযোগ

দর্শন বিভাগে পড়ুয়াদের দেশে ও বিদেশে মাস্টার্স, পিএইচডি করার সুযোগ রয়েছে। এ ছাড়া বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এ বিষয়টিকে অধিক গুরুত্বসহকারে দেখা হয়ে থাকে। তাই বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এ বিষয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ রয়েছে।

কাদের পড়া উচিত

যাদের কোনো বিষয় সম্পর্কে গভীরভাবে জানার ও অধ্যয়নের আগ্রহ আছে, তাদেরই দর্শন পড়া উচিত। বিশ্বের অন্য দেশগুলোতে দর্শন বিষয়টির গুরুত্ব অনেক, এটি একটি প্রয়োজনীয় বিষয়। প্রতিটি বিভাগেই দর্শন বাধ্যতামূলক হওয়া উচিত কারণ এটি মানবজীবের প্রতিটি বিষয়ের সঙ্গে সম্পর্কিত। সঠিক তথ্যের অভাবে এ বিষয়টি সম্পর্কিত জ্ঞান অনেকেই অজানা। তাই এ বিষয়টি সম্পর্কে সঠিক মূল্যায়ন অধিক জরুরি।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে