বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯
walton1

নোবিপ্রবিতে আন্তর্জাতিক কনফারেন্সে দেশি বিদেশি গবেষকদের মিলনমেলা

এস আহমেদ ফাহিম
  ০৮ অক্টোবর ২০২২, ০০:০০
চতুর্থ শিল্প বিপস্নবের যুগে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের ব্যবহার প্রতিনিয়ত বাড়ছে। যার ফলে তথ্যপ্রযুক্তিতে উন্নয়ন ঘটছে। এই উন্নয়নে পিছিয়ে নেই বাংলাদেশ। তথ্যপ্রযুক্তির উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের ব্যবহারের প্রসার ঘটাতে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) ১ম বারের মতো ্‌য়ঁড়ঃ; মেশিন ইন্টেলিজেন্স অ্যান্ড ইমার্জিং টেকনোলজিস-২০২২ ্‌য়ঁড়ঃ; শীর্ষক আন্তর্জাতিক কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়েছে। দুদিনব্যাপী কনফারেন্সটি ২৩ সেপ্টেম্বর শুরু হয় এবং ২৪ সেপ্টেম্বর পুরস্কার বিতরণীর মধ্যদিয়ে সমাপ্তি ঘটে। কনফারেন্সে বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়সহ ২০টির অধিক দেশের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গবেষকরা শতাধিক গবেষণাপত্র উপস্থাপন ও সেশনের কীনোট বক্তব্য প্রদান করেন। করোনা মহামারিতে দীর্ঘ বিরতির পর আয়োজিত এই কনফারেন্স যেন গবেষকদের মিলনমেলায় পরিণত হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী (এমপি) এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সদস্য প্রফেসর ডক্টর সাজ্জাদ হোসেন। সমাপনী অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরণীতে প্রধান অতিথি ছিলেন কনফারেন্সের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডক্টর মোহাম্মদ দিদার উল আলম এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন কনফারেন্সের পৃষ্ঠপোষক নোবিপ্রবির উপ-উপাচার্য প্রফেসর ডক্টর মোহাম্মদ আব্দুল বাকী এবং কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ডক্টর মোহাম্মদ ফারুক উদ্দিন। সমাপনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন নোবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও শিক্ষা বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডক্টর নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডক্টর ফিরোজ আহমেদসহ বিভিন্ন অনুষদগুলোর ডিন, ইনস্টিটিউটগুলোর পরিচালক, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫টি বিভাগ আইসিই, ইইই, সিএসটিই, এমআইএস ও পরিসংখ্যান বিভাগ এবং আইআইটির যৌথ আয়োজনে কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়। প্রেজেন্টেশন সেশনগুলোতে সেশন চেয়ার হিসেবে ছিলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন অধ্যাপক ও গবেষকরা। অনুষ্ঠানের ইভেন্টগুলোর মধ্যে ছিল, টিউটোরিয়ালস, ওয়ার্কশপস, প্যানেলস, ইন্ডাস্ট্রিয়াল সেশন ও প্রজেক্ট শোকাস্টিং। কনফারেন্সে টেকনিক্যাল ট্র্যাকস হিসেবে ছিল মেশিন লার্নিং অ্যান্ড কগনিটিভ কম্পিউটিং, ইনফরমেশন সিস্টেমস, সেনসিং অ্যান্ড সিকিউরিটি, ইমেজিং, অ্যানালিটিকস অ্যান্ড কম্পিউটিং। কনফারেন্সের পাবলিকেশন পার্টনার স্প্রিঞ্জার এবং টেইলার্স অ্যান্ড ফ্রান্সিস। কনফারেন্সের জেনারেল চেয়ার ছিলেন ইউনিভার্সিটি অব ক্যামব্রিজের পিয়েট্রো লি, জেনারেল কো-চেয়ার অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মোহাম্মদ আলী মনি, টেকনিক্যাল প্রোগ্রাম চেয়ার ছিলেন নোবিপ্রবির আইসিই বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডক্টর মো. আশিকুর রহমান খান এবং ডেফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ডক্টর শামসুল আরেফিন, অর্গানাইজিং চেয়ার ছিলেন এমআইএস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. শাহরিয়ার সেতু, অর্গানাইজিং কো চেয়ার ছিলেন আইসিই বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডক্টর আবিদুর রহমান, পাবলিসিটি চেয়ার ছিলেন এমআইএস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ আব্দুস সালাম, সম্পাদক ছিলেন ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক ডক্টর এস এম মাহবুবুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক ছিলেন আইআইটির সহকারী অধ্যাপক মো. অহিদূর রহমান, পরিসংখ্যান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মিম্মা তাবাসসুম ও আইআইটির সহকারী অধ্যাপক মো. ইফতেখারুল আলম ইফাত। উদ্বোধনীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী (এমপি) বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে আমরা দ্রম্নত এগিয়ে যাচ্ছি। বিশেষত আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স এবং ডেটা প্রসেসিং ক্ষেত্রে আমরা উন্নতি করছি। উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে প্রায়োগিক ও প্রযুক্তিগত বিষয়গুলোর ওপর গুরুত্বারোপ করতে হবে। ভিশন-২০৪১ বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সবাইকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে, তবেই উন্নত ও আধুনিক বাংলাদেশ গড়ে তোলা সম্ভব। নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত আন্তর্জাতিক এ কনফারেন্সের সাফল্য কামনা করছি। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু। সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নোবিপ্রবির উপাচার্য ও কনফারেন্সের প্রধান পৃষ্ঠপোষক প্রফেসর ডক্টর মো. দিদার-উল-আলম বলেন, 'নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে অত্যন্ত সফলভাবে অনুষ্ঠিত হলো মেশিন ইন্টেলিজেন্স অ্যান্ড ইমার্জিং টেকনোলজিসের ওপর আন্তর্জাতিক কনফারেন্স। এ কনফারেন্সে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন গবেষক, শিক্ষাবিদ এবং বিজ্ঞানীরা তাদের গবেষণা প্রবন্ধ তুলে ধরেছেন, এতে আমাদের শিক্ষার্থীরা অনেক কিছু শিখতে পেরেছে। বর্তমানে আমাদের দেশেও আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের ব্যবহার দিন দিন বেড়ে চলেছে, ফলে এই প্রযুক্তি নিয়ে এ ধরনের আন্তর্জাতিক কনফারেন্সের আয়োজন অবশ্যই প্রশংসার দাবি রাখে। জাতির পিতা আমাদের এই দেশটি উপহার দিয়েছেন। আর জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলতে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে গড়ে উঠেছে ডিজিটাল বাংলাদেশ। ভবিষ্যতের উন্নত ও আধুনিক বাংলাদেশ বিনির্মাণে তাই আমাদের সবাইকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। নোবিপ্রবিতে এমন একটি সফল আয়োজনের জন্য যারা পরিশ্রম করেছেন তাদের সবার প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে