বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

গোধূলির বাতাসে ছাতিমের মিষ্টি ঘ্রাণে মুখরিত বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়

ম রবিউল ইসলাম, ববি
  ২৯ অক্টোবর ২০২২, ০০:০০
হেমন্তকে বরণের ফুল ছাতিম, ছাতিম ফুল প্রকৃতিকে সুবাসিত করে জানান দিচ্ছে হেমন্তের আগমন। গোধূলির বাতাসে ছাতিমের মধুর সৌরভে মুখরিত প্রকৃতি। বাতাসের সঙ্গে সঙ্গে ভেসে আসে ছাতিমের সুমিষ্ট ঘ্রাণ। সূর্য যখন পশ্চিম আকাশে ডুবু ডুবু গোধূলিবেলা তখন থেকেই প্রকৃতিতে ছড়াতে শুরু করে ছাতিমের সুবাস। বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) মূল ফটকের সামনে বরিশাল-পটুয়াখালি মহাসড়কের পাশে ঝাঁকড়া পত্রপলস্নবে দাঁড়িয়ে থাকা উঁচু এ গাছ প্রকৃতিতে ছড়িয়ে দিচ্ছে ছাতিমের মোহময়ী গন্ধ। শেষবিকেল থেকে একটু একটু করে ছড়াতে শুরু করে ছাতিমের মায়াবী এই ঘ্রাণ থাকে গভীর রাত পর্যন্ত। শিক্ষার্থীরা হাঁটা-চলার পথে মনোমুগ্ধকর গাছভরা ফুলের পানে অপলক দৃষ্টিতে দেখে বিমোহিত হয়। পথচারীরাও পথ চলতে চলতে পত্রপলস্নবের মধ্যে ফুটে থাকা ছাতিমের সৌন্দর্যে হয় মাতোয়ারা। পড়ন্ত বিকালে ক্যাম্পাসের মূল ফটকের সামনে আড্ডায় আর গল্পে শিক্ষার্থীরা গাছভর্তি সবুজ সজীব সাদা গুচ্ছ গুচ্ছ ফুল দেখে চোখ জুড়ায়। গোধূলি লগ্ন থেকেই ছাতিমের সুবাসিত তীব্র ঘ্রাণে ভরে ওঠে ববির পুরো ক্যাম্পাস। ম-ম গন্ধে ভরে ওঠে প্রকৃতি। সুমিষ্ট ঘ্রাণ জানালার ছোট্ট ফাঁকা দিয়ে উঁকি দেয় কক্ষে। জ্যোছনাস্নাত রাতে ঝুলে থাকা ফুল যেন সুন্দরী কোনো রমণীর আলুলায়িত কেশ। চিরসবুজ দুধ কষভরা সুশ্রী গাছ। পাতা প্রায় ১৮ সেমি লম্বা, মসৃণ, উপর উজ্জ্বল সবুজ, নিচ সাদাটে। শরতের শেষে সারাগাছ ভরে গুচ্ছবদ্ধ, তীব্রগন্ধী, সবুজ-সাদা ছোট ছোট ফুল ফোটে। ফল সজোড়, থোকায় থোকায় ঝুলে থাকে। এর আদি আবাস ভারত, চীন ও মালয়েশিয়া। সধপৎড়ঢ়যুষষধ জাতের ছোট ছাতিম বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলে জন্মে। ফুল সাদা ও আকারে কিছুটা বড়। এ গাছের সংস্কৃত নাম সপ্তপর্ণী। অঞ্চলভেদে একে ছাতিয়ান, ছাইত্যানসহ নানা নামে ডাকা হয়। ববি গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ইন্দ্রাণী সরকার বলেন, 'শরতের শেষ ও হেমন্তের আগমনে আমাদের ক্যাম্পাসের সৌন্দর্যকে বাড়িয়ে দেয় এই সবুজ পত্রপলস্নবের মধ্যে ফুটে থাকা সাদা ছাতিম ফুল ও তার সুমিষ্ট ঘ্রাণ। শ্রেণিকক্ষে এই ফুলের সুমিষ্ট ও তীব্র ঘ্রাণ আমাদের মনকে সজীব করে।' বাংলা বিভাগের ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আলামিন হোসেন বলছিলেন, ক্যাম্পাসে হাঁটা-চলা বা আড্ডার সময় ঝাপটা বাতাসে সুন্দর মধুমাখা গন্ধ নাকে ভেসে আসে। সন্ধ্যা ও রাতের পুরো সময়টাজুড়ে ছাতিম ফুলের ম-ম গন্ধে সুবাসিত হয়ে থাকে। ছাতিম গাছ যেন শিশি উপুড় করে সন্ধ্যার বাতাসে গন্ধ ঢেলে দেয়। রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তীব্র ও মাদকতাময় হয়ে ওঠে এই গন্ধ।
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে