রোববার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯

ইবিতে প্রথমবার নাইট ফুটবল টুর্নামেন্ট 'মাঠে চল, খেলা হচ্ছে'

ম আজাহারুল ইসলাম, ইবি
  ২৬ নভেম্বর ২০২২, ০০:০০
তখন ঘড়িতে রাত সোয়া ৮টা। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের জিয়া মোড়ে দাঁড়িয়ে আছেন ল' অ্যান্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী তরঙ্গ, অবসান, ফাহাদ, মামুনসহ অনেকেই। হঠাৎ ফাহাদ সবাইকে বলছিলেন 'ফুটবল মাঠে চল, খেলা হচ্ছে'। তখন তরঙ্গ ভেবেছিল আইসিসি টি-২০ ক্রিকেট বিশ্বকাপের খেলা মাঠে প্রজেক্টরে দেখাচ্ছে। তাই স্কোর দেখতে মোবাইল হাতে নিয়ে ঢুকে পড়ল 'ক্রিকবাজ'-এ। সাথে হো হো করে হেসে উঠল বাকিরাও। এ সময় জিয়া মোড়ে ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছিল। হল/মেস থেকে বের হয়ে শিক্ষার্থীদের গন্তব্য একটাই 'ফুটবল মাঠ'। এজাতীয় দলের কোনো খেলা নয়। তবুও বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস দেখা যাচ্ছিল শিক্ষার্থীদের চোখে-মুখে। উচ্ছ্বাস থাকবেই না কেন? যতদূর জানা গেছে রাতের বেলায় ফুটবল খেলার আয়োজন এটিই প্রথম। খেলাটি ফুটবলপ্রেমীদের মনেও জায়গা করে নিয়েছে। খেলা শুরু হয়েছিল সোমবার (৭ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৮টায়। ইবির ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত এই টুর্নামেন্টে ১-০ গোলের ব্যবধানে পদ্মা দলকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে রূপসা দল। খেলাকে ঘিরে বিকেল থেকেই চলছিল মাঠের সাজসজ্জা। সন্ধ্যা নামার সাথে সাথে জ্বলে উঠল বাতি। এ যেন ফুটবল মাঠকে অন্যরকম এক রূপ দিয়েছে। আয়োজকরা জানায়, দুই দিনব্যাপী সেভেন সাইড ফুটবল টুর্নামেন্টে ৮টি দল অংশ নেন। প্রতি দলে খেলোয়াড় ছিলেন সাতজন করে। এতে সেমিফাইনালে ব্রহ্মপুত্র দলকে হারিয়ে পদ্মা ও গড়াইকে হারিয়ে পদ্মা ফাইনাল নিশ্চিত করে। ফাইনাল খেলায় পেস্নয়ার অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন রূপসা দলের গোলরক্ষক পাপন। এ ছাড়া টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ গোল দিয়ে পেস্নয়ার অব দ্য টুর্নামেন্ট হয়েছেন পদ্মা দলের ইমানুল সোহান। ট্রফি প্রদানকালে সহকারী প্রক্টর ডক্টর আমজাদ হোসেন, শরিফুল ইসলাম জুয়েল, ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোহাইমিনুল ইসলাম মিশু, সাধারণ সম্পাদক ইমানুল সোহান, ইবি প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবু হুরাইরা, শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাত, বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরাসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েক শত শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের মোজাম্মেল বলেন, ইবিতে এই প্রথম রাতের বেলা ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হলো। সব কিছু ফেলে মাঠে ছুটে এসেছি খেলা দেখতে। নিয়মিত ও আরও বড় পরিসরে এমন আয়োজন হোক এটাই প্রত্যাশা। ডক্টর আমজাদ হোসেন বলেন, 'প্রযুক্তির এই যুগে ক্যাম্পাসকে মাদকমুক্ত ও শিক্ষার্থীদের মাঠমুখী করতে এই আয়োজন বিশেষ ভূমিকা রাখবে। ভবিষ্যতে এই ধারা অব্যাহত থাকুক এই প্রত্যাশা।
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে