জাতীয় পতাকা বিকৃতির ঘটনায় এবার আদালতে মামলা

জাতীয় পতাকা বিকৃতির ঘটনায় এবার আদালতে মামলা

বিজয় দিবসের দিনে জাতীয় পতাকা বিকৃতি করার ঘটনায় রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩ জন শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে এবার আদালতে অভিযোগ করা হয়েছে। এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আজ মঙ্গলবার সকালে রংপুর পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালতের বিচারক ফজলে এলাহি খান।

বাদীপক্ষের আইনজীবী আবু সাঈদ সুমন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, রংপুর মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আসিফ হোসেন বাদী হয়ে গতকাল সোমবার মেট্রোপলিটন তাজহাট থানা আমলি আদালতে অভিযোগটি করেন। তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেলে অভিযোগটি মামলা হিসেবে নেওয়া হবে।

এই অভিযোগে ১৩ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। আসামিরা হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রভোস্ট (চলতি দায়িত্ব) তাবিউর রহমান প্রধান, বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার (একাডেমিক) আমিনুর রহমান, ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের প্রভাষক সোহাগ আলী, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রভাষক রহমতউল্লাহ, বাংলা বিভাগের প্রধান পরিমল চন্দ্র বর্মণ, ভূগোল ও পরিবেশবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক শামীম হোসাইন, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কাইয়ুম হোসেন, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক রাম প্রসাদ বর্মণ, মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাহামুদুল হাসান, বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ও মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাসুদ উল হাসান, গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও বিজয় দিবস উদ্যাপন কমিটির আহ্বায়ক আর এম হাফিজুর রহমান, উপপরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ও বিজয় দিবস উদ্যাপন কমিটির সদস্যসচিব সামছুল হক এবং সহকারী রেজিস্ট্রার এম এম ইকবাল।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক মাহামুদুল হক এবং বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান তাজহাট থানায় এ ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন। তাতে উপাচার্যসহ সহকারী অধ্যাপক তাবিউর রহমান প্রধান, অর্থ ও হিসাব দপ্তরের পরিচালক ও বিজ্ঞান অনুষদের ডিন আর এম হাফিজুর রহমান, বাংলা বিভাগের প্রধান পরিমল চন্দ্র বর্মণ, সহকারী প্রক্টর ও মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাসুদুল হাসান, ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের প্রভাষক সোহাগ আলী, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রভাষক মো. রহমতউল্লাহর নাম উল্লেখ করে ৯ জনকে অভিযুক্ত করা হয়।

এছাড়া বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি আরিফুল ইসলাম মহানগরের তাজহাট থানায় এ ঘটনায় পৃথক আরেকটি অভিযোগ করেন। দুটি অভিযোগেরই তদন্ত চলছে। তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেলে অভিযোগগুলো মামলা হিসেবে নেওয়া হবে।

গত ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের দিনে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাধীনতা স্মারক প্রাঙ্গণে বর্তমান প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকা শিক্ষকদের একাংশকে জাতীয় পতাকা অবমাননা ও বিকৃতি করে প্রদর্শনের মাধ্যমে ছবি তুলছেন। পাশাপাশি পতাকাটি মাটিতে পদদলিত হয়ে আছে-এমন ছবি ভাইরাল হয়।

এরপর দেশব্যাপী ঘটনাটি সমালোচনার তুঙ্গে উঠে পড়ে। দেশব্যাপী এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি উঠলে ঘটনার দিন থেকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন চুপ থাকায় জেলা প্রশাসন থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করে।

যাযাদি/ এমএস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে