বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০
walton

মামলার শুনানিতে হঠাৎ হাজির খুন হওয়া কিশোর!

আইন ও বিচার ডেস্ক
  ১৪ নভেম্বর ২০২৩, ০০:০০

একটি খুনের মামলার শুনানি চলাকালীন আদালতে হঠাৎ হাজির হলো ১১ বছর বয়সি এক কিশোর। জানা গেল তার নিজের হত্যা মামলার শুনানি চলছে। কিশোর অভিযোগ করলেন তাকে খুনের মিথ্যা মামলা সাজিয়েছেন তার বাবা। কিশোরের দাদু এবং মামাবাড়ির বাকি সদস্যদের বিপদে ফেলতেই এই ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। আদালতে সশরীরে উপস্থিত হয়ে মামলাটিকে মিথ্যা প্রমাণিত করেছে ওই কিশোর।

উত্তর প্রদেশের পিলিভিটের বাসিন্দা ওই কিশোর ছোটবেলাতেই মাকে হারিয়েছে। অভিযোগে জানা যায়, পণের দাবিতে তার বাবা তার মাকে মারধর করতেন। সেই মারের চোটেই একদিন তার মা'র মৃতু্য হয়। ওই ঘটনার পর মহিলার বাবা জামাইয়ের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগও দায়ের করেছিলেন। কিন্তু পুলিশ কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।

এরপর শিশুটি কার কাছে থাকবে তা নিয়ে বাবা এবং দাদুর মধ্যে আইনি লড়াই চলেছে দীর্ঘ দিন। তাতে সুবিধা করতে না পেরে অভিযুক্ত শিশুর দাদু এবং মামাদের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করেন। কিশোরের মৃতু্যর মিথ্যা মামলা সাজিয়ে তাদের বিপাকে ফেলা হয়েছে বলে অভিযোগ।

খুনের মামলা দায়ের হওয়ার পর কিশোরের দাদু এবং মামাদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এই মিথ্যা অভিযোগের বিরুদ্ধে প্রথমে এলাহাবাদ হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন ধৃতরা। পরে সুপ্রিম কোর্টে মামলা ওঠে। সেই মামলার শুনানি যখন আদালতে চলছে, তখন আচমকা সুপ্রিম কোর্টের এজলাসে হাজির হয় খুন হয়ে যাওয়া সেই কিশোর। সে আদালতে দাঁড়িয়ে বাবার বিপক্ষে বয়ান দেয় এবং দাদুদের মুক্তির আবেদন জানায়।

এর পরেই উত্তর প্রদেশ সরকার, পিলিভিটের পুলিশ সুপারকে নোটিস পাঠান শীর্ষ আদালত। মামলাকারীর বিরুদ্ধে কোনো কড়া পদক্ষেপ করা যাবে না বলেও জানান বিচারপতিরা। আদালতের নির্দেশে গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে