বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১

স্বামীকে 'নারী' বলে অপমান স্ত্রীর, বিয়ে বিচ্ছেদের অনুমতি দিলেন আদালত

আইন ও বিচার ডেস্ক
  ২৬ ডিসেম্বর ২০২৩, ০০:০০

জনসমক্ষে স্বামীকে 'নারী' বলে মন্তব্য করা স্ত্রীর অমানবিক মানসিকতার ফসল। স্বামীকে তার অফিসে গিয়ে প্রকাশ্যে ওই মন্তব্য করতে পারেন না স্ত্রী। ওই মন্তব্য কোনো পুরুষের কাছে যথেষ্ট অপমানজনক। একটি বিয়েবিচ্ছেদের মামলার পর্যবেক্ষণে এমনই জানাল দিলিস্ন হাইকোর্ট। আদালত ওই স্বামী এবং স্ত্রীকে বিয়েবিচ্ছেদের অনুমতি দিয়েছেন। আদালতের মন্তব্য, একে অপরের প্রতি সম্মান না দেখালে স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক দাঁড়িয়ে থাকতে পারে না।

বিবাহবিচ্ছেদের মামলায় দিলিস্ন হাইকোর্টে এক স্বামী অভিযোগ করেন, স্ত্রী তার বিরুদ্ধে অসত্য অভিযোগ করেছেন। অফিসে গিয়ে সহকর্মীদের সামনে নারী বলে মন্তব্য করেছেন। আদালতের পর্যবেক্ষণ, নারী সম্বোধন যে কোনো পুরুষের পক্ষে অপমানকর। বিচারপতি সুরেশকুমার কাইত এবং বিচারপতি নীনা বনসল কৃষ্ণার ডিভিশন বেঞ্চ জানায়, একটি বিয়ের মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো স্বামী এবং স্ত্রীর মধ্যে বিশ্বাস এবং সম্মান। এ ক্ষেত্রে স্ত্রী তা বজায় রাখতে পারেননি। কোনো ব্যক্তি নিজের স্ত্রীর কাছে থেকে এই ধরনের অসম্মানজনক আচরণ সহ্য করা উচিত নয়।

ওই দম্পত্তির বিয়েবিচ্ছেদের অনুমতি দেয় আদালত। বিয়েবিচ্ছেদের জন্য পর্যাপ্ত কারণ রয়েছে বলে মনে করেন আদালত। বিচারপতি কাইতের পর্যবেক্ষণ, স্বামীর বিরুদ্ধে তার স্ত্রীর একাধিক অশালীন মন্তব্য আদালত ভালো চোখে দেখছে না। কোনো স্ত্রীর এই ধরনের বেপরোয়া, মানহানিকর, অপমানজনক মন্তব্য স্বামীর ভাবমূর্তিকে ক্ষুণ্ন করে। এটা অমানবিকতার পরিচয়। হাইকোর্টের মন্তব্য, যে কোনো সফল বৈবাহিক সম্পর্ক পারস্পরিক শ্রদ্ধা এবং বিশ্বাসের ওপর নির্মিত হয়। কোনো সম্পর্ক অর্ধসত্য, অর্ধমিথ্যা, অর্ধসম্মান এবং অর্ধবিশ্বাসের ওপর দাঁড়িয়ে থাকতে পারে না। তাই, এই মামলায় ছ'বছরের দাম্পত্য জীবনের ইতি ঘটাতে পারেন মামলাকারী।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে