দেশে ইমোর জনপ্রিয়তা দ্রম্নত হারে বাড়ছে

দেশে ইমোর জনপ্রিয়তা দ্রম্নত হারে বাড়ছে

মেসেজিং অ্যাপ ইমো অ্যানুয়াল প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ২০১৯ সালের তুলনায় ২০২০ সালে তাদের অ্যাপ ব্যবহার করে বাংলাদেশিদের পাঠানো মেসেজের সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ৯ শতাংশ।

বছরজুড়ে বাংলাদেশি ইমো ব্যবহারকারীরা সাড়ে নয় হাজার কোটির বেশি মেসেজ এবং আড়াই হাজার কোটির বেশি অডিও-ভিডিও কল করেছে। এর মধ্যে তিন হাজার কোটির মতো রয়েছে আন্তর্জাতিক মেসেজ আর দেড় হাজার কোটির বেশি আন্তর্জাতিক অডিও-ভিডিও কল রয়েছে।

মেসেজিং অ্যাপ কোম্পানিটি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, 'বাংলাদেশিদের ইমোর ব্যবহার রেকর্ড ছুঁয়েছে। বিশ্বে বাংলাদেশেই ইমোর সবচেয়ে বেশি ব্যবহারকারী। ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত বাংলাদেশে তিন কোটি সত্তর লাখ বার এটি ইন্সটল করা হয়েছে। জানিয়েছেন কোম্পানির কর্তব্যক্তিরা। গণমাধ্যমকে পাঠানো বিবৃতিতে ইমোর ভাইস প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশিদের এ প্রবণতাকে 'অভূতপূর্ব' বলে উলেস্নখ করেছেন।

ইমো অনেক বেশি জনপ্রিয় বিভিন্ন দেশে কর্মরত বাংলাদেশের অভিবাসী কর্মী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের কাছে। যে কোনো অভিবাসী কর্মী ও তাদের আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে কথা বললেই জানা যাবে তাদের মোবাইল ফোনে ইমো ইন্সটল করা আছে।

বাংলাদেশিদের মধ্যে অনলাইন ব্যবহারের প্রবণতা ২০২০ সালে অনেক বেড়েছে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে। তখন লকডাউনের কারণে সরাসরি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ায়, ভার্চুয়াল যোগ বাড়ে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে