শনিবার, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ২ মাঘ ১৪২৭

অপ্রতিরোধ্য মেহজাবীন চৌধুরী

অপ্রতিরোধ্য মেহজাবীন চৌধুরী
মেহজাবীন চৌধুরী

শোবিজের এ সময়ের আলোকিত এক নাম মেহজাবীন চৌধুরী। টানা কয়েক বছর ধরে টিভির পর্দায় সমান তালে দু্যতি ছড়িয়ে যাচ্ছেন তিনি। মেহজাবীনের নাটক মানেই দর্শকদের বাড়তি আগ্রহ। তার অভিনয়ে দর্শক হাসেন, কাঁদেন আবার রোমান্টিকতায় ফিরে পান নতুন কিছু। শুধু তরুণ প্রজন্মই নয়, সব শ্রেণির দর্শকের প্রিয় হয়ে ওঠেছেন এই অভিনেত্রী। নিয়মিত নাটক না দেখা দর্শকরাও আয়েশ করে বসেন মেহজাবীনের অভিনয়ের কারিশমা দেখতে। ২০০৯ সালে লাক্স সুন্দরী প্রতিযোগিতায় সেরা হয়ে রঙিন পথে যাত্রা শুরু হয়েছিল মেহজাবীনের। সেই সেরাটা এখনো ধরে রেখেছেন অভিনয় গুণে। সাবলীল আর অনবদ্য অভিনয়ে দর্শকদের মুগ্ধ করে রেখেছেন। তার কিছু আলোচিত অভিনয় অবিস্মরণীয় হয়ে আছে বাংলা নাটকে। বিশেষ করে 'বড় ছেলে' নাটকে মেহজাবীনের অভিনয় হৃদয়ে দাগ কাটেনি এমন দর্শক খুঁজে পাওয়া কঠিন। ২০১৭ সালের ঈদ আয়োজনে প্রচারিত এ নাটকটি তাকে পৌঁছে দেয় এক অনন্য উচ্চতায়। এর পর থেকে আগের তুলনায় বিশেষ নাটকের জন্য চাহিদা বেড়ে যায় মেহজাবীনের। এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি বিজয় দিবসের নতুন একটি নাটকের শুটিং শেষ করেছেন মেহজাবীন। বললেন, 'বিজয় দিবসের একটি নতুন নাটকে কাজ করেছি। নাম 'তৃতীয় জন'। পরিচালনা করেছেন তুহিন হোসেন। এটি আরটিভিতে প্রচারিত হবে। বিজয় দিবসের এই একটি নাটকেই কাজ করা হয়েছে।'

বিশেষ মৌসুমে তো বটেই সারা বছরই তার ব্যস্ততা থাকে অভিনয়ে। তবে করোনার কারণে টানা তিন মাসেরও বেশি সময় গৃহবন্দিতে থেকেছেন মেহজাবীন। বেশি যে একঘেয়েমি সময় কেটেছে তার, এমনটি নয়। অনেকের মতো বিষিয়ে ওঠেনি তার বন্দি সময়। সময়টাকে উপভোগ করার চেষ্টা করেছেন। তিনি বলেন, 'নিজের মতো করে সময় কাটানোর চেষ্টা করেছি। বাসাতেই পরিবারের সঙ্গে থেকেছি। সবার সঙ্গে আড্ডা দেয়ার মধ্যে সময় কেটেছে। ঘরের কাজ করেছি। তাছাড়া পছন্দের রেসিপিগুলো শেখার মধ্যে রান্না করাটাও শিখেছি।' এছাড়া করোনায় নিজের ইউটিউব চ্যানেলের জন্যও বেশ কিছু ভিডিও প্রকাশ করেছেন মেহজাবীন। লকডাউনের পর আগের মতো কাজ না করলেও ব্যস্ততা ছাড়েনি তাকে। নতুন নতুন নাটক টেলিফিল্মে অভিনয় করছেন। রোমান্টিক নাটকে বেশি দেখা গেলেও একই চরিত্রে নিজেকে আবদ্ধ রাখেননি মেহজাবীন। বৈচিত্র্যময় চরিত্রে নিজেকে বারবার প্রমাণ করেছেন। কখনো প্রেমিকা, কখনো ভিক্ষারী, গার্মেন্টস শ্রমিক, পাগল, বয়স্কানারী, প্রতিবাদী চরিত্রসহ অসংখ্য চরিত্রে নিজেকে মেলে ধরেছেন। ছড়িয়েছেন অভিনয়ের মুগ্ধতা। তারপরেও করা হয়নি অনেক চরিত্র আছে বলে জানালেন তিনি। মেহজাবীন বলেন, 'নাটকে এখনো অনেক ধরনের ক্যারেক্টার করা বাকি আছে। সেগুলো করতে চাই আগে। অপেক্ষায় আছি সেইসব চরিত্রগুলো নিয়ে।'

এই অভিনেত্রী নাটকে জুটি বেঁধেছেন সময়ের প্রায় সব ছোটপর্দার নায়কের বিপরীতে। অপূর্বর ও আফরান নিশোর সঙ্গে বেশি কাজ করলেও প্রত্যেকের সঙ্গে তিনি মানানসই। তবে প্রিয় বন্ধু কিংবা সহশিল্পী নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি তিনি। এ নিয়ে তিনি বলেন, 'আমার প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার কেউ নন। আর মিডিয়ায় আমার প্রিয় বন্ধু সবাই। সহশিল্পী হিসেবে যখন যার সঙ্গে কাজ করি তখন তাকেই কাছের মনে হয়েছে। সবাই আমার প্রিয়। সবার সঙ্গে কাজ করতেই আমার ভালো লাগে।'

ছোটপর্দার বাইরে প্রায় সব শিল্পীরই চলচ্চিত্র নিয়ে স্বপ্ন থাকে। সিনেমায় আসছেন মেহজাবীন এমন প্রত্যাশা তার ভক্তদের বহুদিনের। অনেকবার খবরও প্রকাশ হয়েছে তার সিনেমা নিয়ে। কিন্তু দিনশেষে সবই গুজব বা ভুল শিরোনামের খবর বলেই বিবেচিত হয়েছে। মাস দুয়েক আগেও খবর প্রকাশ হয় চলচ্চিত্রে কাজ করতে যাচ্ছেন মেহজাবীন। সেই ছবির নাম 'জায়া'। এটি নির্মিত হবে একটি ওটিটি পস্নাটফর্মের জন্য। খবরটি বেশ চমক তৈরি করেছিল। এ অভিনেত্রীর ভক্তরা খুশি হয়েছিলেন। মেহজাবীন গণমাধ্যমকে জানান, তার সিনেমা করা নিয়ে এবারের প্রকাশিত সংবাদটিও ভুল। সংশোধন করে দিয়ে বললেন, 'জায়া' কোনো চলচ্চিত্র নয়। গত মঙ্গলবার তারার মেলার সঙ্গে কথোপকথনে তিনি বলেন, 'আসলে 'জায়া' কোনো পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র কিংবা ওয়েব ফিল্ম নয়, এটি একটি ওয়েব অরিজিন্যাল। এটির কাজ এখনো শুরু হয়নি। এ বছরে কোনো কাজ শুরু হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। এর আগে একবার দিন তারিখ ঠিক হয়েছিল কিন্তু কাজ হয়নি। এরপর আমরা শিডিউল মেলাতে পারছি না। শিহাব শাহীন ভাই এখন অন্য কাজ নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন। আসছে নতুন বছরে কাজ শুরু হবে।

তবে কি আলোচিত এ অভিনেত্রী চলচ্চিত্রে কাজ করবেন না? ভক্তরা কি তাকে দেখবেন না সিনেপর্দায়? এ নিয়ে মেহজাবীন বলেন, 'সাত আট বছর ধরেই সিনেমাতে অভিনয়ের ডাক পাচ্ছি। আমার মনে হয়, আমি নাটক করছি আর নাটকেই বেশি সময় দেয়া উচিত। আগেই বলেছি, নাটকে অনেক ধরনের ক্যারেক্টার করা বাকি আছে। সেগুলো করতে চাই আগে। ভবিষ্যতে সিনেমা করব কি-না সেটা এখন বলা উচিত হবে না।'

বিজ্ঞাপনেও আলো ছড়িয়েছেন মেহজাবীন। ব্যবসায়িক স্বার্থে বিভিন্ন কোম্পানি তার জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগাতে চান। এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি তাকে শুভেচ্ছাদূত হিসেবে বেছে নিয়েছে বিশ্বের প্রিমিয়াম স্মার্টফোন ব্র্যান্ড টেকনো মোবাইল। টেকনো মোবাইলের ব্র্যান্ড ও প্রোডাক্ট কমিউনিকেশনের উদ্যোগে সম্প্রতি চুক্তিবদ্ধও হয়েছেন তিনি। মেহজাবীন বলেন, 'এর আগেও আমি কয়েকটি কোম্পানির শুভেচ্ছা দূত হয়েছি। সর্বপ্রথম শুভেচ্ছা দূত হয়েছিলাম লাক্সের ২০১২ সালে। এবার টেকনোর সঙ্গে যুক্ত হলাম। আশা করছি, এ যাত্রার অভিজ্ঞতা বেশ আনন্দময় হবে।'

এখন নাটকের মান নিয়ে প্রায়ই কথা শোনা যায়। বাজেট, গল্প, নির্মাণে দুর্বলতাসহ নানা অভিযোগে জর্জরিত টিভি নাটক। তবে শিল্পীরও কিছু করণীয় থাকে। এ নিয়ে মেহজাবীন বলেন, 'স্ক্রিপ্টে ব্যতিক্রম চরিত্র থাকলে নাটকেও ব্যতিক্রম চরিত্র আসবে। স্ক্রিপ্ট পছন্দ না হলে বড় জোড় কাজটি বাদ দিয়ে দেওয়া যায়। আমরা অনেক সময় চেষ্টা করি ছোট ছোট কিছু পরিবর্তন করে গল্পটিকে আরও ভালো করার। অন্য কোনো গল্পের সঙ্গে যেন এটা মিলে না যায় সেই চেষ্টা থাকে সব সময়। নাটকের পুরো টিমেরই চেষ্টা থাকে একটা ভালো কিছু করার।' নানা সংকটে আমাদের টিভি নাটক। তারকারা এসব সংকট নিয়ে বহুবার বলেছেন। কিন্তু পরির্বতন হচ্ছে না। ক্রমশ যেন বাড়ছে। মেহজাবীন বলেন, 'নাটকে বাজেটের অত্যধিক গুরুত্ব। অনেক সময় বাজেটের উপর নাটকের মান নির্ভর করে। অনেক সময় প্রেসার নিয়ে কাজ করতে হয়। অল্প সময়ে ভালো কাজের চেষ্টা করতে হয়। আর সম্ভাবনার শেষ নেই। অনেক সংকটের মধ্যেও কাজ করছি আমরা। দর্শকদের বিনোদন দেওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছি। এই চেষ্টাটাই অনেক বড় ব্যাপার।'

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে