স্থবির বলিউড-টলিউড

স্থবির বলিউড-টলিউড
'পৃথ্বীরাজ' ছবিতে মানসী চিলস্নার

করোনা ও তার নতুন ঢেউ ওমিক্রনে ফের কোণঠাসা হয়ে পড়ছে ঢালিউড, হলিউউ ও বলিউড- এমনকি টলিউডসহ গোটা বিশ্বের চলচ্চিত্র শিল্প। এরই মধ্যে বাংলাদেশসহ অনেক দেশের তারকারাও আক্রান্ত হয়েছেন করোনায়। তবে করোনার বেশি প্রভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে বলিউড এবং টলিউড তারকাদের মধ্যে। এরই মধ্যে এই দুই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির অর্ধশতাধিক তারকা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের বেশির ভাগের শরীরেই দ্বিতীয়বার থাবা বসিয়েছে কোভিড-১৯। বিশেষ করে মহামারি করেনার নতুন ঢেউ নাস্তানুবুদ করে দিয়েছে টালিগঞ্জের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি। অভিনয়শিল্পীদের গৃহবন্দি করার পাশাপাশি হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছে চলচ্চিত্র শিল্পকেও। করোনার তীব্র প্রকোপের কারণে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে একের পর এক সিনেমা হল।

করোনা সংক্রমণের গ্রাফ উর্ধ্বমুখী হতেই পিছিয়ে যেতে শুরু করেছে প্রস্তুত থাকা ভারতীয় হিন্দি ও বাংলা ছবির মুক্তি। জানুয়ারি মাসে চারটি ছবি মুক্তির কথা ছিল। গত ১৪ জানুয়ারি মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল শ্রীমন্ত সেনগুপ্ত পরিচালিত 'আবার বছর কুড়ি পরে'। কিন্তু মুক্তির ঠিক আগ সময়ে পরিচালক জানালেন, 'এই পরিস্থিতিতে ছবি মুক্তি পাবে না, আমরা আগেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এটা ছবি মুক্তির ঠিক সময় নয়, তাই ১৪ জানুয়ারি মুক্তি পাচ্ছে না আমাদের ছবিটি। সেক্ষেত্রে পরিস্থিতি একটু স্বাভাবিক হলে যত দ্রম্নত সম্ভব আমরা মুক্তির পরিকল্পনা করব।'

'আবার বছর কুড়ি পরে' সিনেমায় অভিনয় করেছেন আবির চট্টোপাধ?্যায়, অর্পিতা চট্টোপাধ্যায়, রুদ্রনীল ঘোষ, তনুশ্রী চক্রবর্তীর মতো তারকা। অন্যদিকে পরিচালক রাজ চক্রবর্তীও আপাতত স্থগিত রেখেছেন তার 'ধর্মযুদ্ধ'র মুক্তি। তিনি এবং শুভশ্রী দুজনই কয়েক দিন আগে কোভিড আক্রান্ত হয়েছিলেন। এখন দু'জনই সুস্থ। রাজ চক্রবর্তী জানিয়েছেন, 'পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে তবে মুক্তির কথা ভাবা যাবে।' সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ২১ জানুয়ারি মুক্তি পেত স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত, ঋত্বিক চক্রবর্তী, শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়, সোহম চক্রবর্তী, পার্নো মিত্র অভিনীত 'ধর্মযুদ্ধ'। আবার পরিচালক অরিন্দম শীলের 'মহানন্দা' আসার কথা ছিল প্রথমে ১৪ জানুয়ারি, পরে ঠিক হয় ১৮ ফেব্রম্নয়ারি আসতে পারে। কিন্তু ছবিটি সহসা মুক্তি পাচ্ছে না। তবে হোলি উৎসবের সময় মুক্তি পাবে 'মহানন্দা' ছবিটি। পরিচালক অরিন্দম বলেন, ভেবেছিলাম ১৮ ফেব্রম্নয়ারি 'মহানন্দা' মুক্তি দেব। কিন্তু সেটা হবে না। এখন মানুষের হলে যাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। সিনেমা অপেক্ষা করতে পারে, আগে স্বাভাবিক জীবন ছন্দে ফিরুক। এই জানুয়ারিতেই মুক্তির কথা ছিল 'মায়াকুমারী' ছবিটির। কিন্তু সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে আগামী পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে মুক্তি দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন ছবিটির নির্মাতা। 'মায়াকুমারী'তে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করছেন আবির চট্টোপাধ্যায়। আগামীকাল শুক্রবার মুক্তির কথা ছিল সায়ন্তন ঘোষালের 'স্বস্তিক সংকেত'। কিন্তু প্রযোজনা সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হলো, করোনার কারণে ছবিটির মুক্তি স্থগিত করা হয়েছে। কবে মুক্তি পাবে, তা পরবর্তী সময়ে জানানো হবে। এ ছবিতে প্রধান তিনটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়, নুসরাত জাহান, রুদ্রনীল ঘোষ।

অন্যদিকে ফেব্রম্নয়ারির শুরুতেই মুক্তির কথা রয়েছে বিগ বাজেটের দুটি বাংলা ছবির। এর মধ্যে এসভিএফ-এর 'কাকাবাবুর প্রত্যাবর্তন' সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের 'জঙ্গলের মধ্যে এক হোটেল' উপন্যাস অবলম্বনে তৈরি। সৃজিত মুখোপাধ্যায় পরিচালিত এই ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ও আরিয়ান ভৌমিক। এখনো পর্যন্ত ঠিক রয়েছে ছবিটি ৪ ফেব্রম্নয়ারি আসবে- তবে পরিস্থিতি বুঝে। একই দিনে মুক্তির কথা 'উইন্ডোজ' প্রযোজিত অরিত্র মুখোপাধ্যায় পরিচালিত 'বাবা বেবি ও' ছবিটির। তবে সবটাই করোনা পরিস্থিতি ওপর নির্ভরশীল। এই ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় যিশু সেনগুপ্ত, শোলাঙ্কি রায়, মৈনাক বন্দ্যোপাধ্যায় প্রমুখ। যেভাবে করোনার ভয়ানক বিস্তার ছড়িয়ে পড়ছে চারপাশে তাতে রাতারাতি সিদ্ধান্ত বদল হওয়ার মতোও ঘটনা ঘটছে। করোনার কারণে পিছিয়ে যেতে পারে বলিউডের বেশ কয়েকটি আলোচিত ছবির মুক্তি- যেগুলো গত বছরই মুক্তির কথা ছিল। তার মধ্যে অন্যতম শাহিদ কাপুর ও মৃণাল ঠাকুর অভিনীত 'জার্সি', অজয় দেবগণ, আলিয়া ভাট অভিনীত 'ট্রিপল আর' প্রভাস-পূজা হেগড়ে জুটির 'রাধে শ্যাম' অক্ষয় কুমার-মানসী চিলস্নার জুটির 'পৃথ্বীরাজ'সহ বেশ কয়েকটি ছবি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

ক্যাম্পাস
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
হাট্টি মা টিম টিম
কৃষি ও সম্ভাবনা
রঙ বেরঙ

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে