ভালো নেই সালমান খান

ভালো নেই সালমান খান

সময়টা ভালো যাচ্ছে না বলিউড সুপারস্টার সালমান খানের। একদিকে বেশ কিছুদিন বিভিন্নভাবে তাকে হত্যার হুমকি দেওয়া হচ্ছে, অন্যদিকে তার সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত দুইটি সিনেমা বক্স অফিসে তেমন ব্যবসা করতে পারেনি। এসব বিষয় নিয়ে সম্প্রতি ভারতের বিখ্যাত জ্যোতিষী পন্ডিত জগন্নাথ গুরুর দারস্থও হয়েছিলেন 'ভাইজান' 'সুলতান' খ্যাত এই তারকা। জ্যোতিষী জানিয়েছেন, আগামী কয়েক বছর সালমান খানের ভালো যাবে না! তার 'তৃতীয় ঘরে' নাকি আগমন হয়েছে রাহুর। যে কারণে 'সালস্নু'কে ঘিরে রয়েছে একগুচ্ছ সমস্যা। ওই জ্যোতিষী বলেন, 'সালমন খান একজন সুপারস্টার। কিন্তু আগামী কিছু বছর রাহুর অবস্থানের জন্য তার ওপর পড়বে এক নেতিবাচক প্রভাব। মানসিক অশান্তির মধ্যে দিয়ে যেতে হতে পারে তাকে।' এ সময়ে সালমান খানের শারীরিক ঝুঁকি আছে বলেও জানান তিনি। তাই থাকতে হবে সতর্ক। বর্তমানে 'কাভি ঈদ কাভি দিওয়ালি' সিনেমার শুটিং নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন এই অভিনেতা। এই সিনেমা নিয়ে ভগ্নিপতি আয়ুষ শর্মার সঙ্গে মনোমালিন্য হয়েছিল তার, বদলেছে পরিচালকও। এদিকে কুখ্যাত গ্যাংস্টার 'লরেন্স বিষ্ণই'র দেওয়া হত্যার হুমকি তো মাথার উপর রয়েছেই! বর্তমানে 'ভাইজান' সিনেমার কাজ রয়েছে সালমান খানের হাতে। এছাড়া তার 'টাইগার থ্রি' সিনেমাটি মুক্তির প্রহর গুনছে।

৫৬ বছর বয়সি সালমান খানের বলিউডে জনপ্রিয়তার কোনো সীমারেখা নেই। এমনকি শুধু ভারত নয়, বিদেশেও চর্চায় থাকেন তিনি। থাক সেসব কথা। সালমানকে ঘিরে নানান চর্চা চলতেই থাকবে কথা হচ্ছে, ঝামেলা যেন কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না এই বলিউড সুপারস্টার সালমান খানের। কিছুদিন আগে আইনি ঝামেলায় জড়িয়ে পড়েছিলেন তিনি। এখন আবার ক্রমাগত প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে তাকে। বর্তমানের সময়টা মোটেও ভালো কাটছে না সালমানের। কিছুদিন আগেই জনপ্রিয় পাঞ্জাবি গায়ক সিধু মুসে ওয়ালাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আসে সালমান খানকে হত্যার হুমকি দেওয়ার খবর। বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, মুসে ওয়ালাকে হত্যার পেছনে যে ব্যক্তিকে সন্দেহ করা হচ্ছে, একই ব্যক্তি আছেন সালমানকে হত্যার হুমকির পেছনেও। তিনি আর কেউ নন, অভিনেতার 'পুরনো শত্রম্ন' লরেন্স বিঞ্চোই। এর আগেও কয়েকবার সালমানকে হত্যার হুমকি দিয়েছেন তিনি। সালমানকে প্রাণনাশের হুমকি পাওয়ার পর মুম্বাই পুলিশের রাতের ঘুম প্রায় উড়ে যেতে বসেছিল। তবে স্বস্তির খবর, মুম্বাই পুলিশ এরই মধ্যে এই মামলার অনেকটা কিনারা করে ফেলেছে। পুলিশের তদন্তেও উঠে এসেছে, ভাইজানকে হত্যার হুমকি দেওয়ার পেছনে আসল ব্যক্তিটি হলেন গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোই।

ঘটনার সূত্রপাত গত ৬ জুন। প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে সালমানের বাবা সেলিম খান এক উড়ো চিঠি পেয়েছিলেন। চিঠিতে হুমকি দেওয়া হয়,র্ যাপার সিধু মুসে ওয়ালার মতোই হাল হবে। এরপর ঘটনার তদন্তে নামে মুম্বাই পুলিশ ও ক্রাইম ব্রাঞ্চ। ৯ জুন মুম্বাই ক্রাইম ব্রাঞ্চের একটি বিশেষ দল দিলিস্নতে গিয়ে লরেন্সের গ্যাংকে কয়েক ঘণ্টা জেরা করে। জেরায় জানা যায়, 'ভাইজান'কে হুমকি দেওয়ার পেছনে লরেন্স বিষ্ণোইর গ্যাংয়ের হাত আছে। জেলবন্দি লরেন্স নিজেই পুরো পরিকল্পনাটি করেন। তার দলের সদস্য বিক্রমজিত সিং বরাড়কে দেন হুমকি দেওয়ার দায়িত্ব। বিক্রমের নির্দেশেই হুমকি দেওয়া হয় সালমানকে। বিক্রম বর্তমানে কানাডাতে। তার বিরুদ্ধে দুই ডজনের বেশি মামলা আছে। বিক্রমের নির্দেশে লরেন্স গ্যাংয়ের তিন সদস্য রাজস্থানের জালোর থেকে মুম্বাইয়ে এসেছিলেন হুমকির চিঠি দিতে। মুম্বাইয়ে তারা দেখা করেন গ্যাংয়ের অন্যতম সদস্য সৌরভ মহাকালের সঙ্গে। মুম্বাই ক্রাইম ব্রাঞ্চের মধ্যেই সৌরভ মহাকালকে প্রায় ছয় ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। জেরার মুখে মহাকাল জানিয়েছেন সালমানকে হুমকি দেওয়ার কারণ। সেটা আর কিছুই না, তাদের গ্যাংয়ের প্রচার। স্রেফ নিজেদের গ্যাংয়ের প্রচারের জন্যই অভিনেতাকে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়। এ তথ্য ছাড়াও মহাকালকে জেরার সময় অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উঠে এসেছে। যে ব্যক্তি হুমকির চিঠিটি দিয়েছিলেন, তাকেও চিহ্নিত করতে পেরেছে পুলিশ।

কেবল হুমকি দেওয়াই নয়, সালমান খানকে হত্যার চেষ্টাও করা হয়েছে। নিজের বাসভবনের সামনে অল্পের জন্য মৃতু্যর হাত থেকে বেঁচে গেছেন তিনি। পুলিশের সূত্রের বরাত দিয়ে খবরটি প্রকাশ করেছে ভারতীয় একটি গণমাধ্যম। তবে কবে অভিনেতাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়, সেটা জানা যায়নি। হত্যার হুমকি পাওয়ার পর সালমানের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়।

কিন্তু সালমান সকালে যখন সাইকেল চালাতে যান, তখন সঙ্গে নিরাপত্তারক্ষী নেন না। তার নিরাপত্তায় এই ফাঁক ধরেই হত্যার পরিকল্পনা করা হয়। পুলিশ জানায়, সালমানকে হত্যার উদ্দেশ্য নিয়ে শার্পশুটার তার বাড়ির বাইরে লুকিয়ে ছিলেন। নিজের রাইফেলটি লুকিয়েছিলেন বিশেষভাবে তৈরি একটি হকিস্টিকের খাপে। সব পরিকল্পনামতোই এগোচ্ছিল, সালমানও সময়মতোই বেরিয়েছিলেন। তবে সাইকেল ভ্রমণে নয়, একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে। তাকে অনুষ্ঠানে নিতে সালমানের বাড়ি 'জলসা'র বাইরে হাজির ছিল মুম্বাই পুলিশের গাড়ি। তা দেখেই শেষ পর্যন্ত অভিনেতাকে হত্যার পরিকল্পনা বাতিল করে শার্পশুটার।

এ ঘটনা নিয়ে সালমান বা মুম্বাই পুলিশের আনুষ্ঠানিক বক্তব্য পাওয়া যায়নি। ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো অভিনেতাকে হত্যাচেষ্টার পেছনেও লরেন্স বিষ্ণোইয়ের হাত আছে বলে জানিয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে