বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১

দাপটের সঙ্গে পর্দায় ফিরেছেন অক্ষয় কুমার

তারার মেলা ডেস্ক
  ০৪ এপ্রিল ২০২৪, ০০:০০

বলিউডের 'খিলাড়ি'খ্যাত অভিনেতা অক্ষয় কুমার। তার পরবর্তী সিনেমা 'বড় মিয়া ছোট মিয়া'। আলী আব্বাস জাফর পরিচালিত এ সিনেমায় তার সহশিল্পী হিসেবে অভিনয় করেছেন টাইগার শ্রফ। সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে সিনেমাটির ট্রেইলার।

ট্রেইলার প্রকাশ অনুষ্ঠানে সিনেমাটি নিয়ে কথা বলেন অক্ষয় কুমার। অভিজ্ঞতা জানিয়ে এই নায়ক বলেন, 'এটি এমন একটি সিনেমা- যা তৈরি করতে অনেক রক্ত ও ঘাম ঝরেছে। অবশ্যই প্রযোজকের অর্থ খরচ হয়েছে। 'বড় মিয়া ছোট মিয়া' আমার ক্যারিয়ারের এমন একটি সিনেমা- যা নিয়ে আমি গর্ব বোধ করি। আলী আব্বাস জাফরের সঙ্গে কাজের সুযোগ পেয়ে আমি ভীষণ আনন্দিত।'

'বড় মিয়া ছোট মিয়া' সিনেমায় কাজ করতে গিয়ে নতুন বন্ধু পেয়েছেন অক্ষয়। তা জানিয়ে তিনি বলেন, 'এই সিনেমাটির বদৌলতে ইন্ডাস্ট্রিতে আমি একজন বন্ধু পেয়েছি, সে হলো টাইগার শ্রফ। সে আমার মতো, সঠিক সময়ে ঘুমাতে যায় এবং সঠিক সময়ে ঘুম থেকে উঠে।'

অ্যাকশন-থ্রিলার ঘরানার এ সিনেমায় আরো অভিনয় করেছেন- পৃথ্বীরাজ সুকুমার, সোনাক্ষী সিনহা, মানসী চিলস্নার, মনীষ চৌধুরানী প্রমুখ। রাকুল প্রীত সিংয়ের বর জ্যাকি প্রযোজিত এ সিনেমা আগামী ১০ এপ্রিল মুক্তি পাবে।

বিগত বছরগুলোতে অক্ষয় কুমারের সিনেমা বক্স অফিস বাজিমাত করলেও গত বছর তার চিত্র ছিল সম্পূর্ণ বিপরীত। তার অভিনীত 'বচ্চন পান্ডে', 'সম্রাট পৃথ্বীরাজ', 'রক্ষা বন্ধন' ও 'রাম সেতু' সিনেমা বক্স অফিসে একদমই সাড়া ফেলতে পারেনি।

২০২৩ সালের শুরুতে মুক্তি পায় অক্ষয় কুমার অভিনীত 'সেলফি' সিনেমা। কিন্তু এ সিনেমাও বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ে। ৮০ কোটি রুপি বাজেটের সিনেমা খরচের চার ভাগের এক ভাগ ঘরে তুলতে সক্ষম হয়। তবে 'বড় মিয়া ছোট মিয়া' সিনেমার মাধ্যমে দাপটের সঙ্গে পর্দায় ফিরেছেন অক্ষয় কুমার। এবার বক্স অফিসে বাজিমাত করবেন 'বড় মিয়া ছোট মিয়া' সিনেমার মাধ্যমে।

অক্ষয় কুমারের উলেস্নখযোগ্য সিনেমাগুলোর মধ্যে-সুগন্ধ, ড্যান্সার, খিলাড়ি, দিদার, অশান্ত, দিল কি বাজি, কায়দা কানুন, সৈনিক, এলান, ইয়ে দিলাগি জয় কিশান, মহরা, ম্যা খিলাড়ী, ইক্কে পি ইক্কা ইত্যাদি।

দীর্ঘ অভিনয় ক্যারিয়ারে অসংখ্য দর্শকপ্রিয় সিনেমা উপহার দিয়েছেন। এ অভিনেতা গায়ক হিসেবেও আত্মপ্রকাশ করেছেন। তার গাওয়া ভক্তিমূলক 'শম্ভু' শিরোনামের গানটি ইউটিউবে মুক্তি পেয়েছে। 'শম্ভু' গানের কথা লিখেছেন অভিনব শেখর। অক্ষয় ছাড়াও এ গানে কণ্ঠ দিয়েছেন সুধীর, বিক্রম। গানটি নিয়ে নির্মিত হয়েছে মিউজিক ভিডিও। এ গানে মডেল হয়েছেন অক্ষয়। গানের ভিডিওতে শিবের ভক্ত রূপে তাকে নাচতে দেখা যায়। এটি পরিচালনা করেছেন গণেশ আচার্য।

এক বিবৃতিতে অক্ষয় কুমার বলেন, 'আমার হৃদয়ের গভীর থেকে এসেছে 'শম্ভু' গানটি- যা কেবল জয় শ্রী মহাকাল নামে স্পন্দিত হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে আমি শিব ভক্ত। কিন্তু ইদানীং তার সঙ্গে সংযোগ এবং ভক্তি আরো গভীর হয়েছে। আমি অনুভব করি, তিনিই শক্তি, তিনিই প্রেম, তিনিই সাহায্যকারী, তিনিই রক্ষাকর্তা, তিনিই সবকিছুর শেষ, তার কাছেই আমরা আত্মসমর্পণ করতে চাই।'

ব্যক্তিগত জীবনে অভিনেত্রী টুইঙ্কল খান্নাকে বিয়ে করে সুখের সংসার করছেন অক্ষয় কুমার। ২৩ বছরের দাম্পত্য জীবন অক্ষয় কুমার-টুইঙ্কল খান্নার। বিবাহিত জীবনে কত কিছুই ঘটেছে তাদের জীবনে। ভালো সময় যেমন কেটেছে, তেমনই একাধিক অভিনেত্রীর সঙ্গে নাম জড়িয়েছে অক্ষয়ের। কিন্তু যে কোনো পরিস্থিতি বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে যিনি সামাল দিয়েছেন, তিনি অক্ষয়ের স্ত্রী টুইঙ্কল। ইন্ডাস্ট্রির সবার কাছে টিনা নামেই পরিচিত তিনি। অক্ষয়ের সঙ্গে ঘর বাঁধার পর ছাড়েন অভিনয়। এই মুহূর্তে লেখিকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত তিনি। তবে তার হাস্যরসের কদর করেন বলিউডের প্রায় সবাই। যদিও অক্ষয়কে নাকি বিয়েই করতে চাননি টুইঙ্কল। একটি ফিল্মফেয়ার শু্যটে টুইঙ্কলের সঙ্গে অক্ষয়ের প্রথম পরিচয়। তখন থেকেই তিনি টুইঙ্কলের মন জয় করার চেষ্টা করতে থাকেন। কিন্তু রাজেশ-কন্যার মন পাওয়া অত সোজা নয়। তাই বার কয়েক অক্ষয়কে ঘুরিয়েছেন তিনি। শেষমেশ বাজি ধরেন অক্ষয়। তাতেই হেরেই নাকি খিলাড়ি কুমারকে বিয়ে করতে রাজি হন টুইঙ্কল।

রাজেশ খান্না ও ডিম্পল কপাডিয়ার বড় মেয়ে টুইঙ্কল, ইন্ডাস্ট্রির সবার কাছে তিনি আমাদের টিনা। বরসাত, বাদশা, ইন্টারন্যাশন্যাল খিলাড়ি থেকে মেলার মতো ছবিতে অভিনয় করেছেন টুইঙ্কল। ১৯৯৯ সালে 'ইন্টারন্যাশনাল খিলাড়ি' ছবিতে একসঙ্গে অভিনয় করার পর থেকেই অক্ষয়ের জীবনের লক্ষ্য হয়ে যায় টুইঙ্কলকে বিয়েতে রাজি করানো। কিন্তু টুইঙ্কলকে রাজি করানোই যে বড় প্রতিবন্ধকতা।

একটি অনুষ্ঠানে অক্ষয়ই স্বীকার করেছিলেন, টুইঙ্কলকে নিয়ে বাজি ধরেছিলেন অভিনেতা। ২০০০ সালে আমির আর টুইঙ্কল খন্নার ছবি 'মেলা'-র সাফল্য নিয়ে বাজি ধরেছিলেন অক্ষয়। ওই অনুষ্ঠানে অক্ষয় বলেন, 'টুইঙ্কল 'মেলা'র সাফল্য নিয়ে ভীষণ আত্মবিশ্বাসী ছিল। বলেছিল, ছবিটা ওর প্রত্যাশা অনুযায়ী সাফল্য না পেলে বিয়ে করে নেবে।' আর হয়েছেও তাই। ২০০১ সালে অক্ষয়ের সঙ্গে বিয়ে করে নেন তিনি। দেখতে দেখতে এতগুলো বছর পার করে দিয়েছেন তারা একসঙ্গে। পাশপাশি 'মেলা' ছবির ব্যর্থতার পর অভিনয় জীবন থেকেও মুখ ফিরিয়ে নেন টুইঙ্কল। কারণ অভিনয় জগৎ কোনো দিন তার পছন্দের জায়গা ছিল না। এখন লেখালেখির পাশাপাশি প্রযোজনায় মন দিয়েছেন টুইঙ্কল।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে