মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

নতুন করে ইতিহাস গড়লেন টেইলর সুইফট

মাতিয়ার রাফায়েল
  ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০০:০০
নতুন করে ইতিহাস গড়লেন টেইলর সুইফট

বিশ্বজুড়ে অসংখ্য অনুসারী আছে মার্কিন পপ তারকা টেইলর সুইফটের। ক্যারিয়ারে দারুণ সময় পার করছেন তিনি। সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে তার নতুন অ্যালবাম 'দ্য টর্চার্ড পোয়েটস ডিপার্টমেন্ট'। মুক্তির পরই অ্যালবামটি বিশ্বের জনপ্রিয় মিউজিক পস্ন্যাটফর্ম স্পটিফাইয়ে ইতিহাস তৈরি করেছে। আমেরিকার ইতিহাসের সঙ্গীত ক্যারিয়ার বেশ ঐশ্বর্য্য বেশ আশা জাগানিয়া। একজন যখন বয়সের ভারে ধরাশায়ী তখন তরুণদের মনে আশা জাগানিয়া। এ রকম উজ্জ্বল ক্যারিয়ার নিয়ে এইতো একজন সারা দুনিয়াজুড়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন তো অন্যদিকে আরেক জন ধিকিধিকি উঠে আসছেন।

সে রকম দারুণ সময় পার করছেন মার্কিন পপ তারকা টেইলর সুইফট। তাতে সর্বশেষ সংযোজন নতুন অ্যালবাম 'দ্য টর্চার্ড পোয়েটস ডিপার্টমেন্ট'। এর মধ্যে অ্যালবামটি স্পটিফাইয়ে ইতিহাস তৈরি করেছে। মিউজিক পস্ন্যাটফর্মটিতে দিনে সবচেয়ে বেশি শোনা অ্যালবাম এখন 'দ্য টর্চার্ড পোয়েটস ডিপার্টমেন্ট'। সে হিসেবে দিনে সবচেয়ে বেশি শোনা সঙ্গীতশিল্পী টেইলর সুইফট।

টেইলর সুইফটের নতুন অ্যালবাম রিলিজ হয় ১৯ এপ্রিল। ৩১টি গান সংবলিত অ্যালবামের অধিকাংশেই রয়েছে রোমান্টিক অভিব্যক্তি। রয়েছে ভালোবাসার অভিজ্ঞতা, হারানোর বেদনা ও বিক্ষত হৃদয়। এ থিমের বাইরে সঙ্গীতের সংখ্যা নেহায়েত হাতে গোনা। অ্যালবামের প্রথম ১৬টি গান উন্মুক্ত করা হয় যুক্তরাজ্যের স্থানীয় সময় ভোর ৫টার দিকে। ঠিক কয়েক ঘণ্টা পরই আসে বাকি ১৫টি ট্র্যাক। সুইফট বলেন, 'বিভিন্ন সময়ের পরিক্রমায় গড়ে ওঠা অনেক মতামত ও অভিব্যক্তি উঠে এসেছে অ্যালবামটিতে। কাগজের ওপরে কালির দাগের মধ্য দিয়ে লেখকের অশ্রম্ন পবিত্র হয়ে ওঠে। যখন আমরা বিষাদঘন গল্পটি বলে ফেলি, তখন আমরা তার থেকে মুক্ত হতে পারি। তারপর সবচেয়ে বেশি যেটা থাকে, তা হলো আহত এক কবিতা।'

অ্যালবামের মধ্য থেকে সুইফটের ফোর্টনাইট গানটি স্পটিফাইয়ের ইতিহাসে কোনো একদিনে সব থেকে বেশি শোনা গানে পরিণত হয়েছে। লিরিকে ফুটে উঠেছে দুই সপ্তাহের একটা ভালোবাসার সম্পর্কের কথা, যার মধ্য দিয়ে জীবন চলছে। এছাড়া রয়েছে 'ডাউন ব্যাড', 'ফ্রেশ আউট দ্য স্স্ন্যামার', 'ফ্লোরিডা', 'আলকেমি' ও 'সো লঙ', 'লন্ডন'-এর মতো গান। মনে করা হয় সো লঙ, লন্ডন লেখা হয়েছে তার সাবেক প্রেমিক ও ব্রিটিশ অভিনেতা জো আলউইনকে নিয়ে। তাদের মধ্যে সম্পর্ক ছিল ছয় বছরের। সুইফট লন্ডন গিয়েছিলেন, সে স্মৃতিকাতরতাই উঠে এসেছে লিরিকে। আরেকটি গান রয়েছে 'থ্যাংক ইউ আলমি' নামে। সম্ভবত এটা তার সাম্প্রতিক সময়ে কিম কারদাশিয়ানের সঙ্গে চলা টানাপড়েনের জেরে লেখা।

মার্কিন সংবাদ মাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান থেকে জানা যায়, স্পটিফাইতে দিনে সবচেয়ে বেশি শোনা অ্যালবাম এখন 'দ্য টর্চার্ড পোয়েটস ডিপার্টমেন্ট'। টেইলর সুইফট তার নতুন অ্যালবাম নিয়ে বলেন, বিভিন্ন সময়ের পরিক্রমায় গড়ে ওঠা অনেক মতামত ও অভিব্যক্তি উঠে এসেছে অ্যালবামটিতে। সবাইকে ধন্যবাদ অ্যালবামটা সাদরে গ্রহণ করার জন্য। আমি সব সময় চেষ্টা করি স্মৃতিগুলোকে চিরকালের জন্য ধরে রাখতে। আশা করব, আপনারা অ্যালবামের গানের লেখাগুলো মন থেকে অনুভব করতে পারবেন।

গত বছর সুইফট গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডসের মঞ্চে ১১তম অ্যালবামের ঘোষণা দিয়েছিলেন। তখন তিনি জানিয়েছিলেন, ভালোবাসা আর কবিতায় সবকিছুই বৈধ। নতুন অ্যালবাম প্রকাশের মধ্য দিয়ে এরাস টু্যরের পাশাপাশি টেইলরের মুকুটে নতুন পালক যুক্ত হলো। এরাস টু্যর এ বছরও অব্যাহত থাকবে- যার আওতায় রয়েছে এশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রের বড় শহরগুলো।

প্রায় তিন দশক ধরে গাইছেন তিনি। জনপ্রিয়তা, স্বীকৃতি- কী পাননি। তবু গত বছরটি যেন আগের সব অর্জন ছাপিয়ে গেলেন টেলর সুইফট। পেশায় তিনি সংগীতশিল্পী বটে, কিন্তু ২০২৩ সালে তার যা পারফরম্যান্স, তাতে টাইম সাময়িকীর চোখে সব মাধ্যমের অন্যতম আলোচিত ব্যক্তিত্ব তিনি। আর এবার তো তাকে আরো উজ্জ্বল করে তুললেন।

তাই গত বছরটিতে তার ক্যারিয়ারে উজ্জ্বল রেখা দেখে এটাকে কেমন মনে করেন তখন তার জবাবে টেলর বলেন, 'এতটা গর্ব আর আনন্দ আগে কখনোই অনুভব করিনি। মনে হচ্ছে, সৃজনশীলতার দিকে থেকে পূর্ণতা পেয়েছি, এর আগে নিজেকে এতটা মুক্ত মনে হয়নি।'

টাইম সাময়িকীর 'পারসন অব দ্য ইয়ার' বা বর্ষসেরা ব্যক্তিত্বের স্বীকৃতি পেয়ে এভাবেই নিজের প্রতিক্রিয়া জানান টেলর সুইফট। বেশিরভাগ সময় এই সাময়িকীর স্বীকৃতি পান বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা। সুইফটের মতো গীতিকার ও সঙ্গীতশিল্পীর এই স্বীকৃতি তাই ব্যতিক্রমই বলতে হবে। তবে চলতি বছর সুইফটের কনসার্ট নিয়ে যেভাবে মাতামাতি হয়েছে, সেটাকে অনেক সমালোচক তরুণ বয়সের ম্যাডোনার সঙ্গে তুলনা করেছেন।

সুইফটের গানের সাংস্কৃতিক প্রভাব তো বটেই, আছে বিরাট অর্থনৈতিক প্রভাবও। টাইম বলছে, বিনোদনকর্মী হিসেবে সুইফটের অবদানের জন্যই তাকে বর্ষসেরা ব্যক্তিত্বের খেতাব দিয়ে সম্মাননা জানানো হয়েছে। সাময়িকীটির প্রধান সম্পাদক স্যাক জ্যাকবস লিখিত বিবৃতিতে গত বছরই সুইফট সম্পর্কে বলেছেন, 'টেলর সুইফট সীমানা পেরিয়ে যাওয়ার উপায় খুঁজে পেয়েছেন, পেরেছেন আলোর উৎস হতে... সুইফট এক বিরল ব্যক্তিত্ব, যিনি একই সঙ্গে নিজের গল্পের লেখক ও নায়ক।' একই সঙ্গে বলা হয়েছে, এখন এই গ্রহের কেউ সুইফটের মতো করে এত মানুষকে নাড়িয়ে দিতে পারেন না।

গত বছরে ১৭ মার্চ যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা থেকে নিজের ষষ্ঠ কনসার্ট টু্যর শুরু করেছিলেন। এর মধ্যেই ইরাস টু্যর একটার পর একটা রেকর্ড গড়ে ইতিহাসে জায়গা করে নিয়েছে। টু্যরটি শেষ হবে ২০২৪ সালের ৮ ডিসেম্বর, কানাডার ভ্যাঙ্কুভারে। তার অনেক আগেই এটি কোনো নারী শিল্পীর সবচেয়ে বেশি আয় করা কনসার্ট টু্যরে পরিণত হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে