বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

৪ রানের আক্ষেপ, হেরে গেল বাংলাদেশ

যাযাদি ডেস্ক
  ১১ জুন ২০২৪, ০০:০৭
আপডেট  : ১১ জুন ২০২৪, ১০:৫৯
ছবি সংগৃহিত

জয়ের আশা জাগিয়েও হারলো বাংলাদেশ। মাত্র ৪ রানের জন্য হেরে গেল বাংলাদেশ। যখন শেষ ২ বলে ৬ রান দরকার তখন মাহমুদউল্লাহ সজরে ব্যাট চালান। তবে মাহমুদউল্লাহর ভাগ্য খারাপ, সঙ্গে বাংলাদেশের। এক্কেবারে বাউন্ডারি লাইন থেকে বলটি ধরে ফেলেন দক্ষিণ আফ্রিকার ফিল্ডার। আর তখন স্বপ্ন ভঙ্গ হয় বাংলাদেশের।

এর আগে পরপর তিন উইকেটের পতনের পর বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল একটি জুটির। সেটিরই চেষ্টা করছেন হৃদয়-মাহমুদউল্লাহ। খেলছেন দেখশুনে, সুযোগ পেলেই মারছেন বাউন্ডারি। এখন পর্যন্ত দুজনের জুটি থেকে আসে ৩২ বলে ৩৩ রান। হৃদয় ২৯ ও মাহমুদউল্লাহ ১৪ রানে ব্যাটিং করছেন। বাংলাদেশের প্রয়োজন ৩০ বলে ৩১ রান।

শান্তও ফিরলেন

১ ওভার আগেই বাউন্সে পরাস্ত করেছেন সাকিবকে। এবার নর্টজের শিকার শান্ত। ওপেনিংয়ে নামা এই ব্যাটার ২৩ বলে ১৪ রান করেন। শর্ট বলে পুল করতে গিয়ে টাইমিংয়ে গড়বড় করেন। বল উঠে যায় আকাশে। মিড উইকেতে ক্যাচ নেন মার্করাম। ক্রিজে তাওহীদের সঙ্গী মাহমুদউল্লাহ। এই মুহুর্তে প্রয়োজন জুটির।

ব্যাটে-বলে নিস্প্রভ সাকিব

ব্যাটিং অর্ডারে উপরে উঠে আসেন চার নাম্বারে। কিন্তু সাকিব আবারও ব্যর্থ। নর্টজের বাউন্স বলে মারতে গিয়ে বল তুলে দেন আকাশে। ৪ বলে মাত্র ৩ রান করেন। তার আউটে কিছুটা চাপে বাংলাদেশ। এর আগে বল হাতেও ছিলেন নিষ্প্রভ। মাত্র ১ ওভার বোলিং করে ৬ রান দেন। সাকিবের লম্বা ক্যারিয়ারে ব্যাটে-বলে সমানভাবে নিস্প্রভ থাকা খুব কমই দেখা গেছে। ক্রিজে শান্তর সঙ্গী তাওহীদ।

পাওয়ার প্লের পরেই লিটনের বিদায়

পাওয়ার প্লেতে বাংলাদেশ ১ উইকেট হারিয়ে ২৯ রান করে। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে ফেরেন তানজীদ। বাকি চার ওভার পার করেন লিটন-শান্ত। সামলেছেন প্রোটিয়া পেস আক্রমণ। পাওয়ার প্লের শেষে বোলিংয়ে আসেন মহারাজ। প্রথম বলেই ফেরান লিটনকে। জায়গা থেকে সরে ড্রাইভ করতে চেয়েছিলেন, কিন্তু কাজ হয়নি। বল যায় এক্সট্রা কাভারে থাকা মিলারের হাতে।

৯ রানে ফিরলেন তানজীদ

রাবাদাকে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে পরপর দুই চার মারেন তানজীদ। দেন দারুণ শুরুর আভাস। পরের তিন বল ডট খেলে ওভারের শেষ বলে করেন বোকামি। অফে বেরিয়ে যাওয়া বলে ব্যাট চালিয়ে বসেন, খোঁচা লেগে যায় ডি ককের হাতে। তানজীদ অপর ওপেনার শান্তর সঙ্গে আলোচনা করে রিভিউর পথে হাটেননি। ৯ বলে ৯ রান করেন তিনি। ক্রিজে শান্তর সঙ্গী লিটন।

২০ মাস পর ওপেনিংয়ে শান্ত

প্রথম ম্যাচে শূন্য মেরে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাদ পড়েন সৌম্য। তানজীদের সঙ্গী হিসেবে ওপেনার হিসেবে ছিলেন লিটন। কিন্তু তিনি আসেননি, তানজীদের সঙ্গী হন শান্ত। সবশেষ শান্ত ওপেনিং করেছেন ২০২২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। মাঝে চলে গেছে ২০ মাস, ২৪ ইনিংস। এর আগে শান্ত ১১ ইনিংসে ওপেনিং করেন। সর্বোচ্চ ২০ বার নামেন তিন নম্বরে।

দুর্দান্ত বোলিংয়ে দ.আফ্রিকাকে ১১৩ রানে আটকালো বাংলাদেশ

দুর্দান্ত বোলিং করে বোলাররা তাদের কাজ সেরেছেন দারুণভাবে। এবার বাকি কাজ ব্যাটারদের। ফিল্ডিং করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১১৩ রানে দক্ষিণ আফ্রিকাকে থামায় বাংলাদেশ। সর্বোচ্চ ৪৬ রান করেন ক্লাসেন। ২৯ রান করেন মিলার। আর কেউ বিশের বেশি রান করতে পারেননি। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন তানজীম সাকিব। ৪ ওভারে মাত্র ১৮ রান দেন তিনি। ৪ ওভারে ১৯ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন তাসকিন। ১ উইকেট নেন রিশাদ তবে তিনি সর্বোচ্চ ৩২ রান দেন। সাকিব মাত্র ১ ওভার বোলিং করে ৬ রান দেন। মাহমুদউল্লাহ ৩ ওভারে দেন ১৭ রান। মোস্তাফিজ উইকেট না পেলেও ৪ ওভারে দেন মাত্র ১৮ রান।

শেষে ওভারে জ্বলে উঠলেন রিশাদ

১৯তম ওভারে দারুণ বোলিং করেছেন রিশাদ। আগের ৩ ওভারে ২৮ রান দেওয়া এই লেগি শেষ ওভারে মাত্র ৪ রান দিয়ে ১ উইকেট নেন। ফেরান কিলার মিলারকে। দারুণ ডেলিভারিতে করেন বোল্ড। ৩৮ বলে ২৯ রান করেন মিলার। ক্রিজে দুই নতুন ব্যাটার জানসেন-মহারাজ।

ব্রেক থ্রু এনে দিলেন তাসকিন

জুটির রেকর্ডের পর বোল্ড ক্লাসেন। প্রথম ২৫ রানে নেই ৪ উইকেট। এরপর ক্লাসেন-মিলার জুটি গড়ে যোগ করেন ৭৯ বলে ৭৯। যেটি নিউ ইয়র্কে যে কোনো উইকেটে সর্বোচ্চ রানের জুটি। ১৩ ওভার বাংলাদেশ ছিল উইকেটবিহীন। অবশেষে ইনিংসের ১৮তম ওভারে তাসকিন বোল্ড করে সাজঘরে পাঠান ক্লাসেনকে। তার ব্যাট থেকে আসে ৪৪ বলে সর্বোচ্চ ৪৬ রান।

ক্লাসেন-মিলার জুটির ফিফটি, উইকেটের খোঁজে বাংলাদেশ

দ্রুত ৪ উইকেট তুলে নিলেও পঞ্চম উইকেটের খোঁজে মরিয়া বাংলাদেশ। ইতিমধ্যে ক্লাসেন-মিলার জুটি ফিফটি ছুঁয়েছে। ৫৬ বলে জুটির ফিফটি করেন দুজনে। সিঙ্গেলস-ডাবলসে দুজনের মনোযোগ হলেও সুযোগ পেলেই পার করছেন বাউন্ডারি। কম রানে আটকে রাখতে হলে এই জুটি ভাঙা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই বাংলাদেশের সামনে।

ক্লাসেন-মিলারে প্রতিরোধের চেষ্টায় দ. আফ্রিকা

পাওয়ার প্লেতে মাত্র ২৫ রানে ৪ উইকেট হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা। তানজীম সাকিব একাই নেন ৩ উইকেট। এরপর দলের হাল ধরেন ডেবিড মিলার-হেনরিক ক্লাসেন। শুরুতে ধীরে খেলার চেষ্টা করেছেন দুজনে, তবে সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রানের চাকাও সচল হচ্ছে। এখন পর্যন্ত দুজনের জুটি থেকে আসে ৪৩ বলে ৩৯ রান। ক্লাসেন ২৫ ও মিলার ১৫ রানে ব্যাট করছেন।

পাওয়ার প্লে’তে দ. আফ্রিকার ৪ উইকেট নিলো বাংলাদেশ

দুর্দান্ত বোলিং করে পাওয়ার প্লে’তে দক্ষিণ আফ্রিকার ৪ উইকেট তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ। তার মধ্যে তানজিম হাসান সাকিব ৩টি ও তাসকিন আহমেদ নেন ১টি। ৪ উইকেট হারিয়ে পাওয়ার প্লে’তে ২৫ রান তুলতে পারে প্রোটিয়ারা। এটি দলটির চতুর্থ সর্বনিম্ন। আউট হয়ে ফিরে গেছেন রিজা হেনড্রিকস, কুইন্টন ডি কক, এইডেন মার্করাম ও ট্রিস্টান স্টাবস। ব্যাট করছেন হেনরিখ ক্লাসেন ও ডেভিড মিলার।

তানজিম সাকিবের তৃতীয় শিকার স্টাবস:

নিজের তৃতীয় ওভারে এসে তৃতীয় উইকেট শিকার করেন তানজিম হাসান সাকিব। দলীয় ২৩ রনের মাথায় তার করা শর্ট লেন্থের বলে পুশ করতে গিয়ে কাভারে সাকিব আল হাসানের হাতে ধরা পড়েন স্টাবস। ৫ বল খেলে কোনো রান করতে পারেননি তিনি।

তানজিম সাকিবের পর এবার তাসকিনের আঘাত

নিজের প্রথম ওভারে ৭ রান দেওয়া তাসকিন দ্বিতীয় ওভারেই পান উইকেটের দেখা। তার করা চতুর্থ ওভারের পঞ্চম বলে বোল্ড হয়ে যান অধিনায়ক এইডেন মার্করাম। তার করা বলে ড্রাইভ করতে গিয়ে বোল্ড হয়ে যান প্রোটিয়া অধিনায়ক। ৮ বল খেলে ১ চারে ৪ রান করে যান তিনি।

এবার ডি কককে ফেরালেন তানজিম সাকিব:

পরের ওভারে ফিরে এসেই আরও একটি উইকেট নেন তানজিম হাসান সাকিব। এবার তিনি বোল্ড করেন মারমুখী কুইন্টন ডি কক। অফ স্ট্যাম্পের বল পুল করতে গিয়ে মিস করেন ডি কক। বল স্ট্যাম্প এলোমেলো করে দেয়।

মারমুখী ডি ককে রানের চাকা সচল দ. আফ্রিকার:

উইকেট হারালেও কুইন্টন ডি ককের মারমুখী ব্যাটিংয়ে রানের চাকা সচল আছে দক্ষিণ আফ্রিকার। প্রথম ওভারে তানজিম সাকিবের করা প্রথম ওভারে ১১ রান নেন তিনি। এরপর তাসকিন আহমেদের করা দ্বিতীয় ওভারে নেন ৭ রান। প্রোটিয়াদের ১৮ রানের সবকটিই এসেছে তার ব্যাট থেকে।

শুরুতেই তানজিম সাকিবের আঘাত:

কুইন্টন ডি কক ওভার বাউন্ডারি ও বাউন্ডারিতে তানজিম হাসান সাকিবের করা প্রথম পাঁচ বলে নেন ১১ রান। তবে ষষ্ঠ বলেই উইকেট পান তানজিম। তার করা বল ঠিকমতো খেলতে পারেননি রিজা হেনড্রিকস। বল সরাসরি তার পেছনের পায়ে আঘাত করে। সমস্বরে করা আবেদনে সাড়া দেন আম্পায়ার। হেনড্রিকস গোল্ডেন ডাক মেরে সাজঘরে ফিরে যান।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে দ. আফ্রিকা, বাদ পড়লেন সৌম্য:

বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও দক্ষিণ আফ্রিকা। নিউ ইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক এইডেন মার্করাম। তিনি অবশ্য ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

গতকাল যে পিচে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ হয়েছিল সেই একই পিচে আজ খেলছে বাংলাদেশ- দক্ষিণ আফ্রিকা। ব্যবহৃত পিচ হওয়ায় মার্করাম আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তার মতে এই পিচে রান তাড়া করা কঠিন হবে। তবে শান্ত জানিয়েছেন, টস জিতলে তিনি বোলিংই নিতেন।

দক্ষিণ আফ্রিকা অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে মাঠে নেমেছে। অন্যদিকে বাংলাদেশ দলে একটি পরিবর্তন আনা হয়েছে। সৌম্য সরকারের পরিবর্তে একাদশে এসেছেন জাকের আলী অনিক।

বাংলাদেশ একাদশ: তানজিদ হাসান, জাকের আলী, লিটন দাস (উইকেটরক্ষক), নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), তৌহিদ হৃদয়, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ, রিশাদ হোসেন, তানজিম হাসান, তাসকিন আহমেদ ও মুস্তাফিজ রহমান

দক্ষিণ আফ্রিকা একাদশ : কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক), রিজা হেনড্রিকস, এইডেন মার্করাম (অধিনায়ক), হেনরিখ ক্লাসেন, ডেভিড মিলার, ট্রিস্টান স্টাবস, মার্কো জানসেন, কেশব মহারাজ, কাগিসো রাবাদা, অ্যানরিখ নরকিয়া ও অটনিল বার্টম্যান।

‘ডি’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকা ও বাংলাদেশ উভয় দল হারিয়েছে শ্রীলঙ্কাকে। অন্যদিকে দ্বিতীয় ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েও ডেভিড মিলারের ব্যাটে জয় পায় প্রোটিয়ারা। দুই ম্যাচের দুটিই জিতে ৪ পয়েন্ট নিয়ে তারা আছে শীর্ষে। ২ পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশ আছে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে। আর ২ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে নেদারল্যান্ডস।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে