জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচার দাবি হানিফেররাজশাহী অফিস মাহবুব-উল-আলম হানিফসাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচারের দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ।
ইসলামিক ফাউন্ডেশন রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের আয়োজনে শনিবার দুপুরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ মিলনায়তনে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বিশেষ দোয়া ও দাওয়াতি মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ দাবি করেন।
অনুষ্ঠানে হানিফ বলেন, 'বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার মধ্য দিয়ে জিয়াউর রহমান রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখল করে এ দেশের মধ্যে যেই বিভাজন তৈরি করেছেন, স্বাধীনতা বিরোধীদের পুনর্বাসন করে যেই বিভাজন তৈরি করেছেন এ কারণেই দেশ আজ বারবার হোঁচট খাচ্ছে। এই জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচার করে যদি এর প্রকৃত তথ্য বের করে আনা যায় তাহলে বিভাজন দূর হবে, আর এ বিভক্ত জাতি থেকে আমরা বেরিয়ে আসতে পারব।'
'এই জিয়াউর রহমান জামায়াতে ইসলামীর গোলাম আযমদের দেশে ফিরিয়ে এনে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। কিন্তু জামায়াত কখনো বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে বিশ্বাস করেনি। তারা ইসলামের নামে রগ কাটা, গলা কাটার আর জঙ্গিবাদের রাজনীতি করে। তারা মূলত মওদুদীবাদে বিশ্বাসী। বিএনপি-জামায়াত সব সময় দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। তাদের ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে'।
বক্তব্য রাখতে গিয়ে ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের প্রসঙ্গ টেনে হানিফ বলেন, 'বিচার বিভাগ সম্পূর্ণ স্বাধীন বলেই আপনারা সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় দিতে পেরেছেন। অন্যথায় পারতেন না। আমি রায় নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাই না। তবে এ নিয়ে যে, বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে তা নিয়ে বলতে চাই। কারণ জাতীয় সংসদ হচ্ছে জনগণের। জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের দ্বারা গঠিত হয় জাতীয় সংসদ। আর আমরা বলি জনগণই হচ্ছে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার মালিক, এ দেশের ক্ষমতার মালিক। সেই জনগণের ক্ষমতাকে আজ ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের মাধ্যমে হরণ করা হয়েছে।'
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
monobhubon
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin