অর্থনৈতিক উন্নয়নে তিন বাধা এমসিসিআইর মূল্যায়নযাযাদি রিপোর্ট দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে এখন ৩টি বড় বাধা রয়েছে। এগুলো হচ্ছে অপর্যাপ্ত অবকাঠামো, বিনিয়োগকারীদের আত্মবিশ্বাসের অভাব এবং বিদ্যুৎ-গ্যাসের স্বল্পতা। এসব বাধার কারণে অর্থনীতির উন্নয়ন সক্ষমতা অনুযায়ী হচ্ছে না। বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফিরিয়ে আনতে হলে দ্রুত এসব বাধা দূর করতে হবে। মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (এমসিসিআই) 'বাংলাদেশের ত্রৈমাসিক অর্থনৈতিক পর্যালোচনায়' এসব অভিমত দেয়া হয়েছে। বুধবার ২০১৭ অর্থবছরের শেষ (এপ্রিল-জুন) প্রান্তিকের মূল্যায়ন প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সংগঠনটি।
মূল্যায়ন প্রতিবেদনে, সার্বিকভাবে দেশের অর্থনীতি বেশ ভালোভাবে এগোচ্ছে। তবে গতি সম্ভাবনার তুলনায় কম। ২০১৭ অর্থবছরের কৃষি খাতের প্রবৃদ্ধি ভালো হয়েছে। কিন্তু এ খাতের টেকসই প্রবৃদ্ধির জন্য ধারাবাহিক অর্থায়ন প্রয়োজন। এ ছাড়া সেবা ও উৎপাদনশীল খাতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে। তবে বিভিন্ন ক্ষেত্রে এ দুটি খাতে সরকারের আরও বেশি সহায়তা দেয়া প্রয়োজন। বিশেষ করে অবকাঠামো ঘাটতি, গ্যাস ও বিদ্যুতের বিতরণ সমস্যার কারণে উৎপাদনশীল খাত সক্ষমতা অনুযায়ী উৎপাদন করতে পারছে না। এসব সমস্যা দূর করতে সরকারকে সঠিক পদক্ষেপ নিতে হবে। এমসিসিআই বলছে, বিদ্যুৎ বিতরণ পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। তবে তা চাহিদার তুলনায় কম। বর্তমানে ১০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুতের চাহিদা রয়েছে। এর বিপরীতে ৭ জুন উৎপাদন হয়েছে ৯ হাজার ৪৭৯ মেগাওয়াট। মূলত গ্যাসসংকট ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য কয়েকটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র বন্ধ থাকায় উৎপাদন কম হয়েছে। এ মূল্যায়ন প্রতিবেদনে কৃষি, শিল্প উৎপাদন, নির্মাণ, বিদ্যুৎ, সেবা খাত, অর্থ ও পুঁজিবাজার, আমদানি-রপ্তানি, প্রবাসী আয়, বৈদেশিক সহায়তা, সরাসরি বৈদেশিক বিনিয়োগ, বাণিজ্য-ঘাটতি, মুদ্রা বিনিময় হার, মূল্যস্ফীতিসহ অর্থনীতির প্রধান প্রধান সূচকের সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরা হয়।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৭ অর্থবছরে শিল্প খাতের প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১০ দশমিক ৫০ শতাংশ, যা আগের অর্থবছরের তুলনায় দশমিক ৫৯ শতাংশ কম। তবে জিডিপিতে শিল্প খাতের অবদান বেড়েছে দশমিক ৯৪ শতাংশ। ২০১৬ অর্থবছরে জিডিপিতে শিল্প খাতের অবদান ছিল ৩১ দশমিক ৫৪ শতাংশ, সেটি ২০১৭-তে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩২ দশমিক ৪৮ শতাংশ। উৎপাদনশীল খাতে উপখাতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১০ দশমিক ৯৬ শতাংশ, যা আগের অর্থবছরের চেয়ে দশমিক ৭৩ শতাংশ কম।
চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বর) প্রাক্কলন করে এমসিসিআই বলছে, শান্তিপূর্ণ রাজনৈতিক অবস্থানের কারণে প্রথম প্রান্তিকে আমদানি-রপ্তানি ও রেমিটেন্স প্রবাহ বাড়বে।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close