কাতারের মতো সৌদি অবরোধের আশঙ্কায় এবার লেবাননযাযাদি ডেস্ক প্রতিবেশী কাতারের সঙ্গে যেমন করেছে, তেমন অবরোধ লেবাননের ওপরও চাপিয়ে দেয়ার পরিকল্পনা করেছে সৌদি আরব- এমন আশঙ্কা দেশটির রাজনীতিক ও ব্যাংকারদের। সৌদি আরবের দাবি না মানা পর্যন্ত্ম ওই অর্থনৈতিক অবরোধ চলতে থাকবে বলেও মনে করছেন তারা। সংবাদসূত্র : রয়টার্স
বিশ্বের বৃহত্তম তরল প্রাকৃতিক গ্যাস রপ্তানিকারী এবং মাত্র তিন লাখ জনসংখ্যার দেশ কাতারের বিপুল পরিমাণ ব্যাংক রিজার্ভ থাকায় তারা ওই অবরোধের চাপ সামাল দিতে পারছে। কিন্তু লেবাননের প্রাকৃতিক সম্পদ বা নগদ অর্থ কোনোটাই না থাকায় দেশটির লোকজন উদ্বিগ্ন হয়ে উঠেছে।
চার লাখেরও বেশি লেবাননি উপসাগরীয় দেশগুলোতে কাজ করছে। তাদের পাঠানো বছরে সাত থেকে আট বিলিয়ন ডলারের রেমিট্যান্সই লেবাননের আয়ের প্রধান উৎস। অর্থনীতিকে বাঁচিয়ে রাখতে ও সরকারি কার্যক্রম চালাতে এই আয়ের ওপরই নির্ভর করতে হয় ঋণে জর্জরিত দেশটিকে। লেবাননের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, 'এরই মধ্যে শোচনীয় হয়ে পড়া লেবাননের অর্থনীতির জন্য এটি একটি গুরম্নতর হুমকি। তারা যদি রেমিট্যান্সের এই প্রবাহ বন্ধ করে দেয়, তাহলে বিপর্যয় ঘটবে।'
সৌদি আরবে অবস্থানকারী লেবাননের পদত্যাগকারী প্রধানমন্ত্রী সাদ হারিরির কাছ থেকেই নিষেধাজ্ঞার হুমকির বিষয়ে জানা গেছে। ৪ নভেম্বর সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদ থেকে টেলিভিশনে সম্প্রচারিত এক ঘোষণায় প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন তিনি। সৌদি আরবের চাপেই তিনি পদত্যাগ করেছেন বলে মনে করছেন লেবাননের রাজনৈতিক নেতারা।
রিয়াদের পুরনো মিত্র হারিরি রোববার সম্ভাব্য আরব নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে নিজ দেশকে সতর্ক করেছেন। এতে উপসাগরীয় দেশগুলোতে বসবাস করা লাখ লাখ লেবাননির জীবনে বিপর্যয় নেমে আসবে বলেও সতর্ক করেছেন তিনি। নিষেধাজ্ঞা এড়াতে লেবাননকে সৌদি আরবের কী কী শর্ত মানতে হবে, সেটাও ব্যাখ্যা করেছেন তিনি। এর মধ্যে প্রধান শর্তটি হলো- লেবাননের ইরান-সমর্থিত শিয়াগোষ্ঠী হিজবুলস্নাহকে আঞ্চলিক দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়া বন্ধ করতে হবে, বিশেষ করে ইয়েমেনে।
হারিরির পদত্যাগ লেবাননকে সুন্নি সৌদি আরব ও শিয়া ইরানের বাড়তে থাকা শত্রম্নতার ঘূর্ণাবর্তে ফেলে দিয়েছে। বাদশাহ সালমানের ৩২ বছর বয়সী ছেলে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নেতৃত্বাধীন সৌদি নীতিতে লেবাননের সঙ্গে সংঘর্ষে না জড়ানোর সৌদি কৌশলও অতীত হয়ে গেছে। অপরদিকে, পরিস্থিতি সামাল দিতে হিজবুলস্নাহ উপরে উপরে কিছু ছাড় দিলেও চূড়ান্ত্ম কোনো ছাড় দেবে না বলেই মনে করছেন বিশেস্নষকরা।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close