মাশরাফি-সাকিবদের বেতন বাড়ছেগতবার আমরা প্রায় ১০০ শতাংশ বাড়িয়েছিলাম। ধীরে ধীরে আরও বাড়াব। তবে সেটা খুব বড় মাত্রায় নয়। আর আমাদের সঙ্গে অন্যান্য দেশের তুলনা করা ঠিক হবে না। কারণ ঘরোয়া ক্রিকেটে আমাদের দেশের খেলোয়াড়রা যে টাকা পায় অন্য দেশের খেলোয়াড়রা তা পায় না -আকরাম খানক্রীড়া প্রতিবেদক গত বছর এপ্রিলে ক্রিকেটারদের বেতন বাড়ানো হয়েছিল। বাড়ানো হয়েছিল ম্যাচ ফিও। তাও প্রায় দ্বিগুণ বাড়ানো হয়েছিল। তারপরও এ বছরের শুরম্নতেই জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা সোচ্চার হয়েছিলেন তাদের বেতন বৃদ্ধির জন্য। আর ক্রিকেটারদের দাবির প্রেক্ষিতে এবারও ক্রিকেটারদের বেতন বাড়ানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক ও ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির প্রধান আকরাম খান। পাশাপাশি বিসিবি চুক্তিভুক্ত খেলোয়াড়ের সংখ্যাও কমানো হবে বলে জানিয়েছেন এ পরিচালক।
মঙ্গলবার বিসিবি পরিচালকরা বসছেন আলোচনা সভায়। আর এ সভাতে বেশ কিছু বিষয়ই উঠে আসছে। তার মধ্যে অন্যতম মাশরাফি-সাকিবদের বেতন কাঠামো।
এদিকে চলতি বছরের আগস্ট-সেপ্টেম্বরে দুটি টেস্ট ও তিনটি ওয়ানডে খেলতে বাংলাদেশের অস্ট্রেলিয়া সফর করার কথা থাকলেও এরই মধ্যে অজি বোর্ডটি বিসিবিকে চিঠি মারফত জানিয়েছে, আসন্ন সিরিজটি তারা আয়োজন করতে পারছে না। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) দেয়া চিঠির উত্তরে বিসিবি বিষয়টি নিয়ে আলোচনার পথ উন্মুক্ত রাখার অনুরোধ জানিয়ে একটি চিঠি দিয়েছে। কিন্তু তার দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি দেখা যায়নি। গেল মাসে আইসিসির সভা থেকে ফিরেও এই মর্মে কিছুই জানাতে পারেননি বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। অস্ট্রেলিয়া সফরের অনিশ্চয়তা নিয়েও গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন আকরাম খান। মাশরাফি-সাকিবদের এফটিপি অনুযায়ী বিষয়টি পরিস্কার যে এ বছর আর টাইগারদের অস্ট্রেলিয়া সফর সম্ভবপর হয়ে উঠছে না।
সোমবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের মিডিয়া লাউঞ্জে ক্রিকেটারদের বেতন বৃদ্ধি নিয়ে আকরাম সোমবার বলেছেন, 'গতবার আমরা প্রায় ১০০ শতাংশ বাড়িয়েছিলাম। ধীরে ধীরে আরও বাড়াব। তবে সেটা খুব বড় মাত্রায় নয়। আর আমাদের সঙ্গে অন্যান্য দেশের তুলনা করা ঠিক হবে না। কারণ ঘরোয়া ক্রিকেটে আমাদের দেশের খেলোয়াড়রা যে টাকা পায় অন্য দেশের খেলোয়াড়রা তা পায় না।'
এদিকে বেতন বাড়লেও কেন্দ্রীয় চুক্তিতে খেলোয়াড়ের সংখ্যা কমাতে চাইছে বিসিবি। গত চুক্তিতে ছিলেন ১৬ ক্রিকেটার। এবার সংখ্যাটা কমবে। তবে ঠিক কয়জন বাদ পড়তে যাচ্ছেন তা খোলাসা করে বলেননি আকরাম, 'আমরা প্রস্ত্মাব এখনো চূড়ান্ত্ম করতে পারিনি। কাল ঠিক করে ফেলব। তবে এটা ঠিক, চুক্তিতে খেলোয়াড় কমবে। অনেক কিছু বিবেচনা করতে হচ্ছে। খেলোয়াড়ের সংখ্যা কম থাকলে ভালো হয়।'
খেলোয়াড়দের বেতন প্রায় প্রতি বছরই বাড়িয়ে আসছে বিসিবি। গত বছরের বৃদ্ধিটা ছিল বড় অঙ্কের। 'এ পস্নাস' ক্যাটাগরিতে থাকা মাশরাফি বিন মর্তুজা, মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসানের বেতন আড়াই লাখ থেকে বাড়িয়ে করা হয় ৪ লাখ টাকা। 'এ' ক্যাটাগরিতে থাকা মাহমুদউলস্নাহর ২ লাখ থেকে বাড়িয়ে ৩ লাখ; 'বি' ক্যাটাগরিতে ইমরম্নল কায়েস, মুমিনুল হক, সাব্বির রহমান ও সৌম্য সরকারের দেড় লাখ থেকে বাড়িয়ে ২ লাখ; 'সি' ক্যাটাগরিতে রম্নবেল হোসেন, তাসকিন আহমেদ, মুস্ত্মাফিজুর রহমান ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতদের ১ লাখ থেকে বাড়িয়ে দেড় লাখ এবং 'ডি' ক্যাটাগরিতে নতুন অন্ত্মর্ভুক্ত হওয়া ক্রিকেটারদের বেতন ৭৫ হাজার থেকে বাড়িয়ে করা হয় ১ লাখ টাকা।
অস্ট্রেলিয়া সফর নিয়ে আকরাম খান জানান, এ বছর অজিদের সাথে সিরিজ খেলার সম্ভাবনা খুবই কম।
আকরাম বলেন, 'এ সময় ওরা খেলবে না। এটা অনেক আগেই ওরা জানিয়ে দিয়েছে। এ বছরের সম্ভাবনা খুবই কম। শিডিউলটা ওরা পরের বছর জানাবে।'
বছরের বাকি সময়ের পুরোটাই ব্যস্ত্মতায় কাটবে টাইগারদের। আকরামও সেকথাই বললেন, 'বাংলাদেশ দল এ বছর অনেক ব্যস্ত্ম সময় কাটাবে। জুনে আফগানিস্ত্মান সিরিজ, জুলাইয়ে বাংলাদেশ ওয়েস্ট ইন্ডিজে যাবে, সেখান থেকে ফ্লোরিডায় যাবে টি২০ খেলতে। এরপর সেপ্টেম্বরে দুবাইয়ে এশিয়া কাপ, ফিরেই বিপিএল খেলবে। বিপিএলের পর বাংলাদেশ সফরে আসবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও জিম্বাবুয়ে।'
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close