বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ঢাকায় জামায়াতের শোডাউন

যাযাদি ডেস্ক
  ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১৫:৫৫
ঢাকায় জামায়াতের শোডাউন

আমিরে জামায়াত ডা. শফিকুর রহমানসহ নেতাকর্মী ও আলেম-ওলামাদের মুক্তি, মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং কেয়ারটেকার সরকার প্রতিষ্ঠার দাবিতে রাজধানীতে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ।

শনিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকালে কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিলটি রাজধানীর সদরঘাট থেকে শুরু হয়ে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে বাংলাবাজারে এক প্রতিবাদ সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

মিছিল ও সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি যথাক্রমে দেলওয়ার হোসাইন, কামাল হোসাইন, কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য অধ্যাপক মোকাররম হোসাইন খানসহ জামায়াতে ইসলামীর বিভিন্ন থানা আমির-সেক্রেটারিসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।

মিছিল-পরবর্তী সমাবেশে ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ বলেন, আওয়ামী সরকারের দুঃশাসনের কবলে পড়ে বাংলাদেশের জনগণ এক দুর্যোগপূর্ণ ক্রান্তিকাল অতিবাহিত করছে। অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারী এই সরকার বাংলাদেশকে আজ সারাবিশ্বের প্রতিপক্ষ হিসেবে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। বিশ্বের মানচিত্রে বাংলাদেশকে একটি ঝুঁকিপূর্ণ দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

তিনি বলেন, আওয়ামী সরকার অপরাধ করতে করতে আজ এমন অবস্থায় পৌঁছে গেছে যে, এখন নিজেরা বাঁচার জন্য দেশের ১৮ কোটি মানুষকে বিপদে ফেলার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।

সরকার ও প্রশাসনের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমরা রক্ত দেব, জীবন দেব তবুও এ দেশকে নিয়ে কোনো ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করতে দেব না। আমাদের নেতারা ফাঁসির মঞ্চে জীবন দিয়েছেন, আমরা হামলা-মামলা, গুম-খুন মোকাবিলা করেছি, আমরা কোনো রক্তচক্ষুকে ভয় পাই না। আমাদের পুলিশ দিয়ে, ছাত্রলীগ, যুবলীগসহ আওয়ামী সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে স্তব্ধ করা যাবে না। আগামীতে যদি এই সরকার মুক্তিকামী জনগণের ওপর আর কোনো অন্যায় আক্রমণ চালায় তাহলে রাজপথেই তা প্রতিহত করা হবে ইনশাআল্লাহ। যারা মনে করেন পুলিশ দিয়ে, পেটুয়া বাহিনী দিয়ে গুলি করে আমাদেরকে দমন করবেন তাদেরকে বলতে চাই, আপনাদের গুলি বুকে ধারণ করেই এ দেশের মানুষকে মুক্ত করব ইনশাআল্লাহ।

ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ আরও বলেন, ‘শেখ মুজিবের সময় আওয়ামী লীগ কম্বল চোর হিসেবে পরিচিতি পেয়েছিল আর আজ শেখ হাসিনার সময় ভোট চোর হিসেবে সারাবিশ্বের কাছে পরিচিতি পেয়েছে। আওয়ামী লীগ মানেই ধর্ষকদের সংগঠন, আওয়ামী লীগ মানেই গুম-খুন ও দেশ বিক্রির সংগঠন, আওয়ামী লীগ মানেই আধিপত্যবাদের কড়াল গ্রাসে আমার সোনার বাংলাদেশ। ফলে এই বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের আর কোনো ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করতে দেওয়া হবেনা। তিনি ক্ষমতাসীন সরকারের প্রধানকে উদ্দেশ করে বলেন, নির্লজ্জের মতো আমেরিকায় অবস্থান না করে দেশে এসে কেয়ারটেকার সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করুন। অন্যথায় রাজপথের সংগ্রামের মাধ্যমেই এ দেশের জনগণ আপনাকে ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য করবে, তখন আর পালানোর পথ খুঁজে পাবেন না।’

তিনি আরও বলেন, এই সরকার জনগণের আন্দোলনে ভীত হয়ে তা প্রতিহত করতেই মূলত জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ নেতারা ও আলেম ওলামাদের বন্দি করে রেখেছে। আমরা আজকের সমাবেশ থেকে অবিলম্বে আমিরে জামায়াত ডা. শফিকুর রহমান, সেক্রেটারি জেনারেল অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার, মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান, মু. সেলিম উদ্দিন, শাহজাহান চৌধুরীসহ সকল শীর্ষ নেতারা ও আলেম ওলামাদের মুক্তির দাবি জানাচ্ছি। নতুবা দেশবাসী রাজপথের দুর্বার আন্দোলনের মাধ্যমেই তাদেরকে মুক্ত করে আনবে ইনশাআল্লাহ। তিনি দেশের মানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে ঢাকাবাসীসহ সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে রাজপথে নেমে এসে ভূমিকা পালনের উদাত্ত আহ্বান জানান।

যাযাদি/এসএস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে