বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১

ভারতে চিতাবাঘের ভয়ে আদালতেই এলেন না আইনজীবীরা!

আইন ও বিচার ডেস্ক
  ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০০:০০

কোর্ট চত্বরে চিতাবাঘ ঘুরে বেড়াচ্ছে! বৃহস্পতিবার এ খবর ছড়িয়ে পড়াতে কাজেই এলেন না গাজিয়াবাদ জেলা আদালতের আইনজীবীরা। যদিও বাঘ ঘুরে বেড়ানোর বিষয়টি অস্বীকার করেছে বনবিভাগ।

চিতাবাঘ ঘুরে বেড়ানোর ভিডিও ফুটেজ ছড়িয়ে পড়ায় ভয়ে আদালতেই এলেন না আইনজীবীরা। কয়েকদিন আগে আদালত চত্বরে চিতাবাঘের হানায় ১০ জন আহত হয়েছিলেন। চার ঘণ্টার চেষ্টায় সেই চিতাবাঘটিকে বাগে আনা হয়েছিল। এরপর বৃহস্পতিবার একটি ভিডিও ফুটেজ ছড়িয়ে পড়ে। রটে যায়, গাজিয়াবাদ আদালতের পাশে আইএমটি কলেজে চিতাবাঘ ঘুরে বেড়াচ্ছে। এতেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ফলে আইনজীবীদের পাশাপাশি আদালতে এলেন না কেউই।

\হযদিও বৃহস্পতিবারের বাঘ ঘুরে বেড়ানোর বিষয়টিকে অস্বীকার করেছেন বন আধিকারিক মণীশ সিংহ। তিনি বলেন, 'আদালত চত্বরে কোনো চিতাবাঘ ঢোকেনি। ভিডিওতে যে প্রাণীটিকে দেখা যাচ্ছে সেটি একটি বিড়াল।'

সাবেক বার কাউন্সিল সভাপতি নহর সিংহ জানান, গাজিয়াবাদ বার কাউন্সিলের সঙ্গে আলোচনা করার পর সব আইনজীবী ও কর্মীকে আদালতে আসতে বারণ করা হয়েছিল। আদালত চত্বরের প্রধান গেটও বন্ধ রাখতে বলা হয়। কাবিনগড়ের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার অভিষেক শ্রীবাস্তব এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বলেন, 'বন দপ্তরের নিশ্চয়তা সত্ত্বেও নিরাপত্তার খাতিরে আদালত চত্বরে পর্যাপ্ত পুলিশবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।'

এর আগে বুধবার আদালতে হানা দেয় চিতাবাঘ। আদালত চত্বরে চিতাবাঘ প্রবেশ করায় উপস্থিতির মধ্যে ভয়ানক চাঞ্চল্য বিরাজ করে। আদালতে আচমকা চিতাবাঘ ঢুকে পড়ে এবং আইনজীবীসহ বেশ কয়েকজনকে আহত করে।

স্থানীয় গণমাধ্যমের তথ্যানুযায়ী, চিতাবাঘ দেখার পর মুহূর্তের মধ্যে বদলে যায় গোটা এলাকার পরিবেশ। হুড়োহুড়ি, চিৎকার শুরু হয়ে যায়। চিতা দেখে যে যেদিকে পারেন ছোটাছুটি শুরু করেন। কয়েকজন আইনজীবী একটি ফাঁকা ঘর দেখে সেখানে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেন। এদিকে এমন হলস্না দেখে আরও আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে চিতাবাঘটি। এরপরই কোর্টের বাইরে বসে থাকা এক মুচির উপর গিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে। তাকে জখম করার পর এক পুলিশ কর্মীকেও আক্রমণ করে।

সেখান থেকে আবার ফিরে কোর্টের ভেতর ঢুকে একজন আইনজীবীকেও জখম করে। একটি ভিডিওতে সে দৃশ্য ধরাও পড়েছে। দেখা যাচ্ছে, সেই আইনজীবী একটি লাঠি নিয়ে চিতাবাঘটিকে তাড়াতে গিয়েছিলেন। সেই সময়েই পাল্টা তার ওপর আক্রমণ চালায় প্রাণীটি।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। সহকারী পুলিশ কমিশনার অভিষেক শ্রীবাস্তব বলেন, 'চিতার আক্রমণে ছয়জন আহত হয়েছেন।'

খবর পেয়ে বন দপ্তরের একটি দল চিতাবাঘটিকে উদ্ধার করতে ট্রাঙ্কুলাইজার বন্দুক নিয়ে আদালতে পৌঁছায়। গাজিয়াবাদ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট রাকেশ কুমার এবং অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার দীনেশ পিও ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন। অবশেষে সন্ধ্যায় চিতাবাঘটিকে ধরে ফেলেন বনকর্মীরা।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে