​অযোধ্যায় হিন্দুরা গ্রামপ্রধান করলেন কুরআনের হাফেজকে

​অযোধ্যায় হিন্দুরা গ্রামপ্রধান করলেন কুরআনের হাফেজকে

উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যার বাবরি মসজিদ নিয়ে কম জল ঘোলা হয়নি। শেষ পর্যন্ত হিন্দুত্ববাদীদের জয় হয়েছে। বাবরি মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির গড়ার অনুমতি পেয়েছে উত্তরপ্রদেশ সরকার। বাবরি মসজিদের জন্য বিকল্প জায়গাও দেয়া হয়েছে। খবর নিউজ ১৮’র।

তবে এবার সেই উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যায় এক অনন্য নজির স্থাপিত হলো। সেখানে পঞ্চায়েত নির্বাচনে অযোধ্যার রাজনপুর গ্রাম থেকে জয়ী হয়েছেন একজন মুসলিম প্রার্থী। হিন্দু সংখ্যাগরিষ্ঠ গ্রামটির বাসিন্দারা একজন কুরআনে হাফিজ আজিম উদ্দিনকে তাদের গ্রাম প্রধান হিসেবে নির্বাচিত করেছে।

মজার বিষয় হচ্ছে, রাজনপুর গ্রামে হাফিজ আজিম উদ্দিনের পরিবারই একমাত্র মুসলিম পরিবার। এরপরই প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এই নির্বাচনে বেশ কয়েকজন প্রার্থীকে পরাজিত করেছেন হাফিজ আজিম উদ্দিন। তিনি অযোধ্যার রুদাউলি সংসদীয় আসনের রাজনপুর গ্রামের মাবাই ব্লকের বাসিন্দা।

এই নির্বাচনের ফলই বলে দেয় যে, মানুষজন এখনও ধর্ম-বর্ণের ঊর্ধ্বে উঠেই তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে। এই গ্রাম এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে। আর ভ্রাতৃত্ববোধের পারফেক্ট উদাহরণ হিসেবে উঠে এসেছে।

হাফিজ আজিম উদ্দিন বলেন, `গ্রামবাসীর ভালোবাসা এবং সমর্থন আমাকে মনোনয়ন নেয়ার শক্তি দিয়েছে এবং শেষ পর্যন্ত আমি জয়ী হয়েছি। এই গ্রামে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রয়েছে। আমরা একটা বড় পরিবারের মতো।'

তিনি বলেন, `এই গ্রামে তিনটি মন্দির আছে। আমি জানি গ্রামের মানুষজন আমার জয়ের জন্য তাদের দেবতার কাছে প্রার্থনা করেছে। এমনকি তারা রোজাও রেখেছে। আমি জয়ের পরই তারা রোজা ভাঙে। আমার প্রতি তাদের এতটাই ভালোবাসা রয়েছে।'

হাফিজ আজিম উদ্দিনের বাবাও এই গ্রামের প্রধান ছিলেন। হাফিজ আজিম উদ্দিন বলেন, আমার দুই ভাই বিদেশে এবং এক ভাই শিক্ষক। পুরো গ্রাম একটা বড় পরিবার। এখানে সবাই সবাইকে সাহায্য করতে মুখিয়ে থাকে। এখানে সব ধর্মীয় উৎসব যথাযথ মর্যাদায় পালন করা হয়।

যাযাদি/এসআই

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে