শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

টানা ৫ ঘণ্টা ধরে ইসরাইলে ইরানের হামলা চলে 

যাযাদি ডেস্ক
  ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১:১৫
ছবি সংগৃহিত

ইরান হামলা করবে করবে বলছে কয়েকদিন ধরে। এভাবে যে হামলা চালাবে সেটা ভাবতে পারেনি ইসরাইল। ইসরাইলের পাশে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থাকায় মধ্যপ্রাচ্যের কাউকে পাত্তা দিতো না তারা। এবার নড়েচড়ে বসেছে। কারণ ইরানের হামলার সক্ষমতা দেখে যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্ররা অবাক। তারা বুঝতে পেরেছে ইরান সহজে ছেড়ে দেবার পাত্র নয়। অন্যদিকে সৌদি আরব এব্যাপারে ইরানের পক্ষেয় অবস্থান নিয়েছে।

এদিকে ইসরাইলে ইরানের হামলাটি প্রায় পাঁচ ঘণ্টা স্থায়ী হয়েছিল বলে দুই মার্কিন কর্মকর্তা জানিয়েছেন। ইরানি হামলা প্রশমিত হওয়ার পরপরই রোববার ভোররাতে ইসরাইলের হোম ফ্রন্ট কমান্ড তাদের নাগরিকদের শেল্টার থেকে বের হয়ে আসার অনুরোধ করে। এতে বোঝা যাচ্ছে যে ইসরাইলিরা মনে করছে, ইরানি হামলা শেষ হয়ে গেছে। ইরানও ইতোমধ্যে ঘোষণা করেছে, ১ এপ্রিল দামেস্কে তাদের কনস্যুলেটে হামলার বদলা নেয়া হয়ে গেছে। ইসরাইল আর কিছু না করলে তারা এখানেই থেমে যাবে।

গতকাল শনিবার মধ্যরাতের দিক থেকে রোববার ভোররাত পর্যন্ত ইসরাইলে ইরানি হামলা চলে বলে কর্মকর্তারা জানান। পুরো অঞ্চলে মোতায়েন মার্কিন বাহিনী হামলায় ইসরাইলকে সহায়তা প্রদান করে। তারা যতটা সম্ভব ইরানি ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র রুখে দিয়েছে। যুক্তরাজ্যও একই কাজ করেছে। তাদের মিত্র জর্ডানও ইরানি হামলা রুখতে সর্বাত্মক সহযোগিতা করে।

তবে তাদের সম্মিলিত চেষ্টার মধ্যেও অনেক ক্ষেপণাস্ত্র ইসরাইলে আঘাত হানে। এদিকে ইরান ছাড়াও লেবানন থেকে হিজবুল্লাহ বিপুলসংখ্যক রকেট নিক্ষেপ করে।

ইসরাইলে ইরানি হামলায় কেউ হতাহত হয়নি বলে ইসরাইলি জরুরি সার্ভিস জানিয়েছে। তবে ম্যাজেন ডেভিড অ্যাডম (এমডিএ) ইমার্জেন্সি সার্ভিস জানিয়েছে, তারা ছোটখাট ইঞ্জুরিতে আক্রান্ত মোট ৩১ জনের চিকিৎসা করেছে। তারা শেল্টারে আশ্রয় নিতে যাওয়ার সময় কিংবা ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলার সময় প্যানিক অ্যাটাকে আক্রান্ত হয়েছিল।

এর আগে এমডিএ জানিয়েছিল, তারা ৭ বছর বয়সের এক বালিকাকে হাসপাতালে নিয়ে গেছে। সে মাথায় মারাত্মক আঘাত পেয়েছিল। ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র রুখতে যে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়েছিল, সেটির একটি টুকরায় সে আঘাত পেয়েছিল।

একনজরে ইরানি হামলা * ইরানের ইসলামিক রেভ্যুলশনারি গার্ড কোর (আইআরজিসি) জানিয়েছে, তারা ১ এপ্রিলে দামেস্কে ইরানি কনস্যুলেটে হামলার বদলা নিয়ে ইসরাইলি লক্ষ্যবস্তুগুলোতে কয়েক ডজন ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে।

* ইসরাইলি ভূখণ্ডে ইরানি সামরিক বাহিনীর প্রথম প্রত্যক্ষ হামলাটি হয় শনিবার রাতে, প্রায় ২০.০০ জিএমটিতে।

* তেল আবিব, পশ্চিম জেরুসালেমসহ ইসরাইলজুড়ে বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়। ৭২০টির মতো স্থানে বিমান হামলার সাইরেন শোনা যায়।

* ইসরাইলি সামরিক বাহিনী পরে জানায়, ইরান ২০০-এর বেশি কিলার ড্রোন, ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র, ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে। এগুলোর বেশিভাগই যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের সহায়তায় সীমান্তের বাইরে ভূপাতিত করা হয়েছে। খুবই অল্প কয়েকটি আঘাত দেখা গেছে। এর একটি দক্ষিণ ইসরাইলের একটি ঘাঁটিতে। আর এতে অবকাঠামোর সামান্য ক্ষতি হয়েছে।

* ইসরাইলি সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ড্যানিয়েল হাগারি বলেছেন, হামলায় একটি বালিকা সামান্য আহত হয়েছে। আর কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

* ইসরাইলের হোম ফ্রন্ট কমান্ড ০০.০০ জিএমটির দিকে ইসরাইলিদেরকে বোম্ব শেল্টারে থাকার নির্দেশ প্রত্যাহার করেছে।

* হামলার পর জাতিসঙ্ঘে ইরানি মিশন জানায়, তারা সিরিয়ায় ইরানি কনস্যুলেটে ইসরাইলি হামলার জবাব সম্পন্ন হয়েছে। তবে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলা হয়, ইসরাইল যদি আবার ভুল করে, তবে তাদের আরো কঠোর প্রতিক্রিয়ার মুখোমুখী হতে হবে।

* আজ রোববার নিউ ইয়র্ক সময় বেলা ৪টায় ইসরাইলের অনুরোধে জরুরি সভার আহ্বান করেছে জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদ। ইরাক, জর্ডান, লেবানন ও ইসরাইল তাদের আকাশপথ সাময়িকভাবে বন্ধ করে দিয়েছে। এছাড়া বেশ কয়েকটি এয়ারলাইন্স এই অঞ্চলে তাদের কার্যক্রম স্থগিত করেছে। সূত্র : সিএনএন এবং আল জাজিরা

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে