শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

সাকিব এসেছিল আমি না করে দিয়েছি : হাফিজ উদ্দিন

যাযাদি ডেস্ক
  ১৯ মার্চ ২০২৪, ১৩:১০
ছবি-যায়যায়দিন

বাংলাদেশের ক্রিকেট তারকা ও সংসদ সদস্য সাকিব আল হাসানকে নিয়ে গত কয়েকদিন বেশ আলোচনা হচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার পক্ষে বিপক্ষে অনেকে যুক্তি তুলে ধরেছেন। কিন্তু যারা সাথে ছবি ভাইরাল হয়েছে সেই মেজর (অব.) হাফিজ আজ সংবাদ সম্মেলন করে সব খোলাসা করেছেন।

সাকিব আল হাসান নিজেই বিএনএমে যোগ দেওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন। আমার কাছে এসে রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করে সে। মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে বনানীতে নিজ বাড়িতে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমদ বীরবিক্রম।

তিনি বলেন, সাকিব আল হাসান আমার কাছে এসে রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেন। আমার কাছে উৎসাহ না পেয়ে তিনি চলে যায়। নির্বাচনের ৪ থেকে ৫ মাস আগে আমার কাছে আসেন সাকিব। সে সময় তার সঙ্গে কয়েকজন অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা ছিলেন।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত ছবিটি নিয়ে মেজর (অব.) হাফিজ বলেন, বিভিন্ন গণমাধ্যম মাঝে মাঝে বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশ করে। সাকিবের সঙ্গে আমার ছবিটি নিয়ে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে তা জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন খাতে নিতে ব্যবহার করা হয়েছে। আমি এমন কিছু করিনি যার জন্য লজ্জ্বিত হতে হবে।

তিনি বলেন, আমি ৩২ বছর ধরে বিএনপির সঙ্গে রয়েছি। আমার পক্ষে দল ত্যাগ করা সম্ভব নয়। বয়স হয়েছে আমি আর কিছুদিনের মধ্যে অবসরে যাবো। সামরিক বাহিনীর কয়েকজন অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমার কাছে আসেন নতুন একটি দল খোলার জন্য। তারা হয়তো ভেবেছে আমি বিএনপি ত্যাগ করতে পারি কারণ বিএনপির সঙ্গে মাঝে মাঝে আমার দ্বিমত থাকে। কিন্তু এধরনের কোন বিষয় নেই। আমি বিএনপির সঙ্গেই আছি। আমি বিএনএমে যোগ দেইনি।

বিএনএম গঠনের সময় নিজের উপর ‘সরকারি চাপ’ প্রসঙ্গে হাফিজ বলেন, ‘ক্ষমতাসীনদের চাপ বাড়তে লাগলো। সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ ঘোষণাই দিয়ে দিলেন, হাফিজ উদ্দীন নতুন দল গঠন করবেন। আমি বিষয়টি নিয়ে গভীরভাবে চিন্তা করেছি। এরপর নির্বাচনের দুই মাস আগে সংবাদ সম্মেলন করে বলেছি, বিএনএম বা অন্য দলে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা নাই। শেষ পর্যন্ত এই দলেই থাকবো। বর্তমানে আমি অবসরের চিন্তা করছি। শারীরিকভাবে অসুস্থ।’

নিজেকে ‘ওপেন বুক’ উল্লেখ করে হাফিজ বলেন, ‘আমার সবকিছু ওপেন। আমি তো গোপনে কিছু করিনি। আমি স্বাধীন দেশের নাগরিক।’

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে হাফিজ উদ্দীন বলেন, ‘বিএনএমের সাধারণ সম্পাদক তাকে (সাকিব আল হাসান) নিয়ে এসেছিলেন। জনগণের সঙ্গে কোনও সম্পর্ক নাই তাদের। তারাই সরকারের আনুকূল্যে দল করেছে। চার-পাঁচজন লোক। ওইটা বিএনএমের ফরম ছিল সম্ভবত।’ এই চার-পাঁচ জন পূর্ব পরিচিত বলেও জানান তিনি।

‘সাকিবকে সেদিনই অনুৎসাহিত করেছি। আমিও তাকে বলেছি। আমি তো পরেরদিনই প্রতিবাদ করেছি, যে বিএনএমে যোগ দেবো না।’ বলেন আরেক প্রশ্নের উত্তরে হাফিজ উদ্দীন।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে