বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি ২০২১, ৬ মাঘ ১৪২৭

গোলরক্ষক জিকোর খেলায় মুগ্ধ জেমি ডে

গোলরক্ষক জিকোর খেলায় মুগ্ধ জেমি ডে

শুক্রবার রাতে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে কাতারের কাছে ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল দল। পুরো ম্যাচে কাতার দলের আক্রমণভাগ পুরো ব্যতিব্যস্ত করে রেখেছে বাংলাদেশের রক্ষণকে। একের পর এক আক্রমণে দম ফেলার ফুরসৎ পারননি তপু বর্মন, বিশ্বনাথ ঘোষরা। ৯০ মিনিটের খেলার প্রায় পুরোটা সময় বল ছিল বাংলাদেশেরই অর্ধে।

পরিসংখ্যান জানান দিচ্ছে, পুরো ম্যাচে অন্তত ৩২ বার গোলের চেষ্টা করেছে কাতার। যার মধ্যে ১৫টি শট ছিল লক্ষ্য বরাবর। কিন্তু এর মধ্যে গোল হয়েছে ৫টি। বাকি যে ১০ বার হতাশ হতে হয়েছে স্বাগতিক কাতারকে, সেই প্রতিবারই গোলের মাঝে বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছেন বাংলাদেশ গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো।

প্রতিযোগিতামূলক ফুটবলে নিজের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে নেমেই ১০টি সেভ দিয়েছেন জিকো। যে ৫টি গোল দিয়েছে কাতার, তাতে জিকোর দায় ছিল খুব অল্পই। এমনকি পেনাল্টিতে করা কাতারের তৃতীয় গোলেও বলের লাইনেই ছিলেন তিনি। শটের অতিরক্তি গতির কারণে তার হাতে লেগেও বল চলে যায় জালে।

পুরো দলের পারফরম্যান্স খুব একটা আশা জাগানিয়া না হলেও, গোলরক্ষকের পারফরম্যান্সে মুগ্ধ বাংলাদেশ কোচ জেমি ডে। তবে তার মতে, স্কোরলাইন ৪-০ হলে ভালো হতো। অহেতুক পেনাল্টি না পেলে পাঁচটির বদলে কাতারের গোল হতো ৪টিই।

ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে জেমি বলেন, ‘আমি মনে করি, জিকোকে খেলিয়ে আমি ঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সে চমৎকার কয়েকটা সেভ করেছে। (প্রতিযোগিতামূলক ফুটবলে) এটা তার প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ। সে অবিশ্বাস্য এবং বিশ্বমানের কিছু সেভ করেছে। তবে স্কোরলাইন ৪-০ হলে ভালো হতো।’

এসময় নিজের শিষ্যদের পাশে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ কোচ আরও বলেন, কাতার এশিয়ার সেরা দল। তারা চার মাস ধরে অনুশীলন করছে। আমরা অনুশীলন করেছি পাঁচ সপ্তাহ। আগের ম্যাচে তারা শক্তিশালী কোরিয়ার বিপক্ষে খেলে এসেছে। আমি মনে করি, তাদের বিপক্ষে ছেলেরা দারুণ খেলেছে।’

তবে দুই দলের পার্থক্যের জায়গাটাও বুঝতে পেরেছেন জেমি। তার ভাষ্য, ‘কাতারের মতো বলের নিয়ন্ত্রণ এবং টেকিনিক্যাল সামর্থ্য আমাদের নেই। তবে ছেলেরা শতভাগ দিয়েছে। এই অল্প সময়ের মধ্যে কাতারের বিপক্ষে খেলার প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য কঠোর পরিশ্রম করেছে।’

এদিকে ৫ গোল দিয়েও যেন সন্তুষ্ট নন কাতারের কোচ ফেলিক্স সানচেজ বাস। তার মতে আরও বেশি গোল হতে পারত, ‘আমরা পাঁচ গোল দিয়েছি, কিন্তু আমার মনে হয় আরও বেশি গোল হতে পারত।’

বাংলাদেশ দেশের মাটিতে হওয়া দুই দলের প্রথম লেগের ম্যাচে কাতারের জয়ের ব্যবধান ছিল ২-০। সেই ম্যাচের কথা টেনে বাস বলেন, ‘দুই ম্যাচের মধ্যে পার্থক্য অনেক। প্রথম লেগের মতো বাংলাদেশ একইভাবে আমাদের বিপক্ষে খেলেছে। কিন্তু আজ আমরা তাদেরকে কোনো সুযোগই দেইনি।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘এখানে বিষয়টা হচ্ছে যে, আমরা যখন ওদের মাঠে খেলতে গিয়েছিলাম, মাঠ খেলার উপযোগী ছিল না। সেখানে খেলা কঠিন ছিল। এখানে তা হয়নি। মাঠ খুব ভালো ছিল এবং এটা আমাদের জন্য বিষয়গুলোকে সহজ করে দিয়েছিল।

যাযাদি/ এসএইচ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে