মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

লিভারপুলের মাঠে আজান, একসাথে তিন হাজার মানুষের ইফতার

যাযাদি ডেস্ক
  ০৯ এপ্রিল ২০২৪, ২০:৪১
ছবি সংগৃহীত

চেলসি ও লিভারপুল এই দুই ক্লাবের সুনাম জগতজুড়ে। বিশ্বের সেরা তারকা ফুটবলাররা এই ক্লাব দুটিতে খেলেন। যে কারণে তাদের সমর্থক রয়েছে বিশ্বজুড়ে। গত রমজানে চেলসি ইফতারের আয়োজন করে বিশ্বজুড়ে হৈ চৈ ফেলে দেয়। এবার সে পথে হাটলো আরেক ক্লাব লিভারপুল। শুধু ইফতার নয়, সঙ্গে নামাজ ও আজানের ব্যবস্থাও করে ক্লাবটি। যে কারনে সামাজিক মাধ্যমে প্রসংসায় ভাসছেন ক্লাবের কর্তাব্যক্তিরা।

জানা যায়, ফুটবল বিশ্বে অ্যানফিল্ড ঐতিহ্যের এক মূর্ত প্রতীক। কতো শত ইতিহাস আর গল্প লেখা হয়েছে লিভারপুলের এই মাঠে, কতো স্মৃতি আর আবেগ মিশে আছে পরতে পরতে। ফুটবলের এই তীর্থস্থান এবার আলোচনায় ভিন্ন এক কারণে, প্রথমবারের মতো আজানের শ্রুতিমধুর ধ্বনি উচ্চারিত হয়েছে এখানে। আয়োজন করা হয় ইফতারেরও।

বিশ্বজুড়ে চলছে পবিত্র রমজান মাস। এর মাঝেই চলছে ইউরোপিয়ান ফুটবলের ব্যস্ততা। মুসলিম ফুটবলাররা তাই ম্যাচের মাঝখানেই করছেন ইফতার। এছাড়া বিভিন্ন ক্লাবগুলো মুসলিম সমর্থকদের সুযোগ করে দিচ্ছে ইফতারেরও। সেই তালিকায় এবার নাম লিখিয়েছে বিখ্যাত ইংলিশ ক্লাব লিভারপুলও।

গত রোববার (৭ এপ্রিল) লিভারপুলের ষাট হাজার দর্শক ধারণ ক্ষমতার মাঠ অ্যানফিল্ডে ইফতার সেরেছেন প্রায় হাজার তিনেক দর্শক। লিভারপুল ফাউন্ডেশনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত এই ইফতার পোগ্রামে অংশগ্রহণ করে প্রায় ২ হাজার ৮০০ মানুষ। সেই সাথে ছিলেন ক্লাবের বেশ কিছু বড় কর্তারাও।

শুধু তাই নয়, ইফতারের পূর্বে পবিত্র কোরআনের তিলাওয়াতও হয় মাঠে। আর ইফতার শেষে অ্যানফিল্ডের মাঠের মাঝখানেই দেয়া হয় আজান। এরপর স্টেডিয়ামের ভেতর আমন্ত্রিত সমর্থকদের সুযোগ করে দেয়া হয় নামাজেরও। যেখানে অংশ নেন মুসলিমরা।

লিভারপুলের এমন আয়োজন বেশ সাড়া ফেলেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। প্রশংসা কুড়াচ্ছে বিশ্বজুড়ে ফুটবল সমর্থকদের কাছ থেকে। বিশেষ করে ফ্রান্স ফুটবল যখন মুসলিম ফুটবলারদের জন্যে ইফতারের সময়টুকো দিতেও রাজি হচ্ছে না, তখন লিভারপুলের এমন আয়োজন স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

অবশ্য এবারই প্রথম নয়। গত বছর চেলসি প্রথম প্রিমিয়ার লিগ ক্লাব হিসেবে এমন ইফতারের আয়োজন করে বেশ সাড়া ফেলে।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
X
Nagad

উপরে