• সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১১ মাঘ ১৪২৭

দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক

ব্রেক্সিট :বিদায়ের এক মাস আগেও চুক্তি অধরা

ব্রেক্সিট :বিদায়ের এক মাস আগেও চুক্তি অধরা
ডেভিড ফ্রস্ট ও মিশেল বার্নিয়ে

আর মাত্র এক মাস পর যুক্তরাজ্যের পাকাপাকিভাবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ত্যাগ করার কথা থাকলেও ভবিষ্যৎ দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক নিয়ে বোঝাপড়ার কোনো লক্ষণ এখনো পর্যন্ত দেখা যাচ্ছে না। বিশ্লেষকদের মতে, যেকোনো মূল্যে চুক্তি স্বাক্ষর করতে প্রস্তুত নয় কোন পক্ষই। সংবাদসূত্র : ডয়চে ভেলে, এএফপি

চলতি বছরের ৩১ শে জানুয়ারি যুক্তরাজ্য আনুষ্ঠানিকভাবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগ করলেও অন্তর্র্বর্তীকালীন দুই পক্ষের মধ্যে সম্পর্কে প্রায় কোনো রদবদল ঘটেনি। কিন্তু আর মাত্র এক মাস পর সেই সম্পর্ক পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে।

বিগত কয়েক মাস ধরে আলোচনা চালিয়েও দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য চুক্তি সম্পর্কে বোঝাপড়া সম্ভব হয়নি। একেবারে শেষ প্রহরে এসে সেই লক্ষ্য পূরণ হবে কি না, তাও স্পষ্ট নয়। লন্ডনে মুখোমুখি আলোচনাতেও মতবিরোধ কাটানো সম্ভব হয়নি। আরও দুই-তিন দিনের মধ্যে সেই অসাধ্য সাধন হবে কিনা, তাও স্পষ্ট নয়।

এমন প্রেক্ষাপটে মঙ্গলবার দুই পক্ষ পরস্পরকে সময়ের অভাব সম্পর্কে সতর্ক করে দিয়েছে। ইইউ ও যুক্তরাজ্যের একাধিক নেতা বোঝাপড়ার প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দিলেও 'যেকোন মূল্যে' বাণিজ্য চুক্তির বিরোধিতা করেছেন।

ইইউর প্রধান মধ্যস্থতাকারী মিশেল বার্নিয়ে ও যুক্তরাজ্যের প্রধান মধ্যস্থতাকারী ডেভিড ফ্রস্ট এখনো বোঝাপড়ার সম্ভাবনা নিয়ে স্পষ্ট কোনো পূর্বাভাস দেননি। বার্নিয়ে বলেন, 'আলোচনায় সংকল্পের কোনো ঘাটতি নেই। অন্যান্য প্রশ্নে কিছু অগ্রগতি সত্ত্বেও ব্রিটিশ জলসীমায় মাছ ধরার অধিকারকে কেন্দ্র করে আপোসের লক্ষ্ণণ দেখা যাচ্ছে না।' এদিকে, আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী মাইকেল মার্টিন এখনো চুক্তির আশা ছাড়তে প্রস্তুত নন।

জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেল বলেন, 'ইইউ ও যুক্তরাজ্য ভবিষ্যৎ সম্পর্ক স্থির করতে বোঝাপড়ায় ব্যর্থ হলে সেটা হবে অত্যন্ত খারাপ এক দৃষ্টান্ত।' অবশ্য তিনি এটাও বলেন যে, 'শেষ পর্যন্ত চুক্তি সম্ভব না হলেও ইইউ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে প্রস্তুত।'

বোঝাপড়ার আশা যত ক্ষীণ হচ্ছে, চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের প্রস্তুতিও তত গতি পাচ্ছে। যুক্তরাজ্য সরকার দেশের ব্যবসাবাণিজ্য প্রতিষ্ঠানগুলোকে সেই পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত থাকার ডাক দিয়েছে। সীমান্তে শুল্ক ও অন্যান্য নিয়ন্ত্রণের চাপ সামলাতে সরকার এরই মধ্যে কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে।

তবে যুক্তরাজ্যের অনেক প্রতিষ্ঠান আসন্ন জটিল প্রক্রিয়া সামলাতে প্রস্তুত নয় বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। অনেক ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান সরকারের প্রস্তুতি সম্পর্কেও সংশয় প্রকাশ করেছে। তাদের মতে, আসন্ন চ্যালেঞ্জের মাত্রা সম্পর্কে সরকারের কোনো বাস্তব ধারণা নেই। এছাড়া ইইউর সঙ্গে সম্পর্কের রূপরেখা অত্যন্ত অস্পষ্ট থাকায় প্রস্তুতি সম্ভব হচ্ছে না। সরকার শুধু 'স্বল্পমেয়াদী বিঘ্ন' সম্পর্কে সতর্ক করে দিচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে