ব্যাপক সংঘর্ষ-ধরপাকড়

কৃষ্ণাঙ্গের মৃতু্যতে অগ্নিগর্ভ যুক্তরাষ্ট্র

ম সহিংস বিক্ষোভ অযৌক্তিক মন্তব্য বাইডেনের ম যুক্তরাষ্ট্রে এবার পুলিশের গুলিতে স্কুলশিক্ষার্থী নিহত
কৃষ্ণাঙ্গের মৃতু্যতে অগ্নিগর্ভ যুক্তরাষ্ট্র
মিনিয়াপোলিসে বিক্ষোভকারী-পুলিশ মুখোমুখি

যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের গুলিতে এক কৃষ্ণাঙ্গের মৃতু্যতে ফিরল গত বছরের 'বস্ন্যাক লাইভস ম্যাটার' আন্দোলনের উত্তাপ। গত রোববার মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের মিনিয়াপোলিসে ডন্টে রাইট নামে ২০ বছর বয়সি এক যুবককে হত্যা করে পুলিশ। এর ঠিক এক বছর আগে একই শহরে আরেক কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যার অভিযোগ উঠেছিল সাবেক এক পুলিশের বিরুদ্ধে। ঘটনাস্থল থেকে ১৬ কিলোমিটার দূরে এক আদালতে গত দুই সপ্তাহ ধরে যার শুনানি চলছে। আর যে কারণে আগে থেকেই উত্তপ্ত ছিল মিনিয়াপোলিস। এরই মধ্যে নতুন করে হত্যার ঘটনার পর আরও 'অগ্নিগর্ভ' হয়ে ওঠে পরিস্থিতি। রোববারের পর সোমবার টানা দ্বিতীয় রাতেও বিক্ষোভে উত্তাল ছিল শহরের উত্তরাঞ্চল। সংবাদসূত্র : বিবিসি, রয়টার্স, আল-জাজিরা

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের তথ্যমতে, নগরীর ব্রম্নকলিন সেন্টারে বিক্ষোভকারীরা কারফিউ ভঙ্গ করে আন্দোলন অব্যাহত রাখে এবং পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। জবাবে পুলিশও ফ্ল্যাশ গ্রেনেড এবং কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে। এ ছাড়া পুলিশ এ পর্যন্ত প্রায় ৪০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে বলে জানা গেছে।

এদিকে প্রতিবাদকারীরা ডন্টে রাইটের স্মরণে মোমবাতি প্রজ্বলন করে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ব্রম্নকলিন সেন্টারের পুলিশ সদর দপ্তরের বাইরে শত শত বিক্ষোভকারী জড়ো হয়ে ডন্টে রাইটের নামে স্স্নোগান দিতে থাকে। মিনিয়াপোলিস শহর থেকে জায়গাটি মাত্র কয়েক কিলোমিটার দূরে। এ ছাড়া বিক্ষোভের সময় কিছু দোকানপাটে লুটপাট চালায় তারা।

পুলিশ বিভাগ জানিয়েছে, রোববার স্থানীয় সময় দুপুর ২টা নাগাদ ট্রাফিক আইন ভাঙার দায়ে ডন্টে রাইটকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আর ঠিক সেই মুহূর্তেই জানা যায়, তার বিরুদ্ধে আগে থেকেই গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে। অভিযোগ, পুলিশ রাইটকে গ্রেপ্তার করতে গেলে ফের গাড়িতে উঠে পড়ার চেষ্টা করে সে। তখন তাকে গুলি করা হয়। গুলিবিদ্ধ অবস্থাতেই তিনি গাড়ি চালিয়ে এগোনোর চেষ্টা করলে অন্য একটি গাড়িতে ধাক্কা মারেন। সেখানেই মৃতু্য হয় তার।

ওই যুবকের মা জানিয়েছেন, ঘটনার সময় তাকে ফোন করেছিলেন ডন্টে রাইট। ফোনেই বাদানুবাদের আওয়াজ পান মা। এরপর ফোন কেটে যায়। তিনি বলেন, 'আমার ছেলের দেহ মাটিতে ফেলে চলে যায় পুলিশ। কেউ আমার সঙ্গে কথাও বলতে চায়নি। বারবার অনুরোধ করার পরও।'

সোমবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টায় কারফিউ জারি করা হয়। ওই সময় চারটি কাউন্টিতে বিপুলসংখ্যক আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার সদস্য মোতায়েন ছিল। এরপর মধ্যরাতে সংবাদ সম্মেলন করে মিনেসোটা রাজ্য পুলিশ পেট্রোলের কর্নেল ম্যাট ল্যাঙ্গার বলেন, বিক্ষোভকারীদের শান্ত রাখতে কর্মকর্তারা আন্দোলনকারী নেতাদের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করেছিলেন। দুর্ভাগ্যবশত সেই চেষ্টা সফল হয়নি এবং জনতার আকাঙ্ক্ষাকে প্রভাবিত করতে সক্ষম হননি তিনি।' তিনি আরও বলেন, 'ব্রম্নকলিন সেন্টারে পুলিশ সদর দপ্তরের ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা করেছিল বিক্ষোভকারীরা। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাদের ছত্রভঙ্গ করার সিদ্ধান্ত হয়।'

সহিংস বিক্ষোভ অযৌক্তিক মন্তব্য বাইডেনের

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের মিনিয়াপোলিস শহরে পুলিশের গুলিতে কৃষ্ণাঙ্গ যুবক ডন্টে রাইটের মৃতু্যর ঘটনায় বিচারের দাবিতে রাস্তায় সহিংস বিক্ষোভকে অযৌক্তিক বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। একই সঙ্গে পুলিশের গুলিতে কৃষ্ণাঙ্গ যুবক নিহতের ঘটনাকে 'মর্মান্তিক' বলেও উলেস্নখ করেছেন তিনি। স্থানীয় সময় সোমবার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, 'মিনিয়াপোলিস শহরে যেটা ঘটেছে, সেটা সত্যিকার অর্থেই মর্মান্তিক। কিন্তু আমাদের অপেক্ষা করতে হবে এবং দেখতে হবে তদন্তে কী তথ্য বেরিয়ে আসে।'

পুলিশের গুলিতে এবার স্কুলশিক্ষার্থী নিহত

অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের টেনেসিতে পুলিশের গুলিতে হাইস্কুলের এক শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির গণমাধ্যম। সোমবার স্থানীয় সময় বিকাল ৩টার দিকে নক্সভিলের পূর্ব অস্টিন-ইস্ট ম্যাগনেট হাই স্কুলে গুলির এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ বলছে, ওই শিক্ষার্থীই প্রথম ক্যাম্পাসের একটি কক্ষ থেকে গুলি ছুড়ে এক কর্মকর্তাকে আহত করে। পরে পুলিশের পাল্টা গুলিতে শিক্ষার্থী নিহত হয়। আহত পুলিশ সদস্য হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বলে নক্সভিল পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পায়ের ওপরের অংশে গুলিবিদ্ধ পুলিশ সদস্যের অস্ত্রোপচার লেগেছে। তিনি শিগগিরই 'আশঙ্কামুক্ত অবস্থায় পৌঁছাবেন' বলেও আশা করা হচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে