সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
walton
আদানি -কান্ড

দুর্নীতি করলে কাউকে ছাড় নয় :অমিত শাহ

যাযাদি ডেস্ক
  ২০ মার্চ ২০২৩, ০০:০০
ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ

আমেরিকার বিনিয়োগ ভিত্তিক গবেষণা সংস্থা 'হিনডেনবার্গ রিসার্চ'র প্রতিবেদনে ভারতের শীর্ষস্থানীয় ধনকুবের ও শিল্পপতি গৌতম আদানির বাণিজ্যিক সাম্রাজ্যের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ আনার পর দেশটিতে এ নিয়ে ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়। তবে এতদিন বিষয়টি নিয়ে চুপ ছিলেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। অবশেষে তিনি মুখ খুলেছেন। শুক্রবার অমিত শাহ বলেন, দুর্নীতি করে থাকলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। তিনি দাবি করেন, বর্তমানে যতগুলো দুর্নীতির তদন্ত হচ্ছে, তার মধ্যে শুধু দুটি বিজেপি সরকারের আমলের, বাকি মামলাগুলো ইউপিএ আমলের। সংবাদসূত্র : এনডিটিভি

কংগ্রেসকে কটাক্ষ করে অমিত শাহ বলেন, ২০১৭ সালে উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচনের সময় কংগ্রেসের এক বড় নেত্রী জানিয়েছিলেন, যদি তারা দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দিয়ে থাকেন, তাহলে তদন্ত হোক। অথচ কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা পদক্ষেপ নেওয়ায় তিনিই এখন কান্নাকাটি করছেন।

ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, 'আদালতে না গিয়ে বিরোধীরা চিৎকার-চেঁচামেচি করছেন। আমি জনগণের কাছে জানতে চাই, কারও বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ থাকলে তদন্ত হওয়া উচিত কি-না।' এরপরই তিনি জানান, দুটি মামলা ছাড়া বাকিগুলো ইউপিএ আমলের। তার দাবি, ১০ বছরের ইউপিএ শাসনকালে ১২ লাখ কোটি রুপির দুর্নীতি হয়েছে।

আদানি ইসু্যতে অমিত শাহ বলেন, সুপ্রিম কোর্ট অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতিদের দিয়ে দুই সদস্যের কমিটি গঠন করেছে। যাদের কাছে যা প্রমাণ রয়েছে, তাদের (বিচারপতিদের) কাছে জমা দিন। দুর্নীতি করে থাকলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। প্রত্যেকের বিচার ব্যবস্থায় আস্থা রাখা উচিত।

গত ২৪ জানুয়ারি চাঞ্চল্যকর সেই অনুসন্ধানী প্রতিবেদনটি প্রকাশ করে হিনডেনবার্গ রিসার্চ ফার্ম। সেখানে বলা, দশককাল ধরে শেয়ার কারসাজি ও আর্থিক লেনদেনে প্রতারণা চালিয়ে আসছে আদানি গ্রম্নপ। কৃত্রিমভাবে শেয়ারের দর বহু গুণ বাড়িয়ে এই গ্রম্নপ বিপুল সম্পদ গড়েছে। গত কয়েক বছরে আদানি গ্রম্নপের কোম্পানির শেয়ার ৫০০ শতাংশের বেশি বেড়েছে। অবশ্য প্রতিবেদনটি প্রকাশের পর থেকেই আদানি গ্রম্নপের সব কোম্পানির শেয়ারের দাম পড়তে শুরু করে।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে