কুমিলস্নার ঘটনায় প্রতিবাদ ও নিন্দা অব্যাহত

কুমিলস্নার ঘটনায় প্রতিবাদ ও নিন্দা অব্যাহত

কুমিলস্নায় একটি পূজামন্ডপের ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেশের কয়েকটি জেলায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ওপর আক্রমণ, মন্দিরে-পূজা মন্ডপে হামলা ভাংচুরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে ওয়ার্কার্স পার্টি, সিপিবিসহ বিভিন্ন সংগঠন। এছাড়া এসব হামলার প্রতিবাদ জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরাও।

সরকারের কঠোর পদক্ষেপ চায় ওয়ার্কার্স পার্টি

দেশের বিভিন্ন এলাকায় মন্দিরে আক্রমণ ও পূজামন্ডপে ভাংচুরের ঘটনায় 'গভীর উদ্বেগ' প্রকাশ করে এর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি।

ক্ষমতাসীন

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের শরিক ওয়ার্কার্স পার্টির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম পলিটবু্যরোর সভা থেকে বৃহস্পতিবার এই আহ্বান জানানো হয়।

দলটি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলে, বিভিন্ন অজুহাতে মন্দির আক্রমণ, প্রতিমা ভাংচুর এখন ব্যাপকভাবেই ঘটছে, এমনকি লক্ষ্য করা যাচ্ছে, সাম্প্রদায়িক বিভিন্ন ঘটনায় যুক্ত ব্যক্তিরা নির্বাচনে প্রার্থী হিসাবেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে।

সাম্প্রদায়িক পরিস্থিতি সৃষ্টির কৌশল হিসেবে কিছু গোষ্ঠী বার বার দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করছে। বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি এই সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানাচ্ছে।

সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে রুখে দাঁড়ান : সিপিবি

কুমিলস্নায় কয়েকটি পূজামন্ডপে হামলা এবং প্রতিমা ভাংচুরের তীব্র নিন্দা জানিয়ে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)।

এক বিবৃতিতে সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম বলেন, কুমিলস্নার নানুয়ার দিঘীর পাড়ে এক পূজামন্ডপে কোরআন শরীফ অবমাননা করা হয়েছে বলে যে কাহিনী ছড়িয়ে দিয়ে যেভাবে পূজামন্ডপে হামলা চালিয়ে প্রতিমা ভাংচুর করা হয়েছে, তা গভীর ষড়যন্ত্রমূলক। অতীতেও বিভিন্ন সময়ে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে নানা গুজব ছড়িয়ে দিয়ে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা করা হয়েছে। এবারও নৈরাজ্য সৃষ্টির মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে পরিকল্পিতভাবে পূজামন্ডপে হামলা করা হয়েছে।

বিবৃতিতে সিপিবির নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে দমন করার বদলে, সরকার প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে পৃষ্ঠপোষকতা করে আসছে। বিচারহীনতার কারণে একের পর এক সাম্প্রদায়িক হামলা হচ্ছে।

ঢাবিতে মৌন প্রতিবাদ

কুমিলস্না, চাঁদপুর, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, বান্দরবানসহ সারা দেশে শারদীয় দুর্গোৎসবের মন্ডপে হামলা ও প্রতিমা ভাংচুরের প্রতিবাদে মৌন প্রতিবাদ করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে এই মৌন প্রতিবাদ জানান শিক্ষার্থীরা। এতে বিভিন্ন বর্ষের প্রায় পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন।

'সাম্প্রদায়িক হামলার দায় কি রাষ্ট্র এড়াতে পারে?' 'আমার মন্দিরে হামলা কেন?', 'দেশ ছাড়তে হুমকি কেন?, রাষ্ট্র জবাব চাই!','মানবসেবা যাদের ধর্ম তাদের ওপর হামলা কেন?' ইত্যাদি লেখা পস্ন্যাকার্ড হাতে নিয়ে প্রতিবাদ সভায় দাঁড়ান শিক্ষার্থীরা।

মৌন প্রতিবাদে অংশ নেওয়া আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী রাকিব সিরাজী বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা কখনোই সাম্প্রদায়িকতায় বিশ্বাসী নয়। আমরা প্রত্যাশা করি, অচিরেই যারা এসব কর্মকান্ডে লিপ্ত, তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে।'

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে