নবীগঞ্জে লাশ উদ্ধারের পর চেয়ারম্যানকে গণধোলাই

নবীগঞ্জে লাশ উদ্ধারের পর চেয়ারম্যানকে গণধোলাই

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জে নিখোঁজের দুই দিন পর বিবিয়ানা নদী থেকে লিটন মিয়া (৪৮) নামে এক সবজি ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এর তিন দিন পর গত মঙ্গলবার নিহতের ভাই সালেহ আহমদ নবীগঞ্জ থানায় ছয়জনের নাম উলেস্নখ ও অজ্ঞাতনামা তিন থেকে চারজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেছেন (মামলা নং-১৬)। এদিকে লিটনের লাশ উদ্ধারের সময় স্থানীয় চেয়ারম্যান নোমান হোসেনকে নিহতের আত্মীয়-স্বজনরা হামলা, মারধর ও গণধোলাই দেওয়ার ঘটনায় ঘটেছে।

জানা যায়, ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের মধ্যসমত গ্রামের সিরাজ উদ্দিনের ছেলে লিটন গত ১৫ সেপ্টেম্বর ব্যবসার কাজে গিয়ে আর বাড়ি ফেরেননি।

তার সন্ধান না পেয়ে লিটনের ভাই নবীগঞ্জ থানায় শুক্রবার সাধারণ ডায়েরি করেন। এদিকে বৃহস্পতিবার রাতে কসবা গ্রামের রুবেল মিয়া নামের এক ব্যক্তি ইনাতগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান নোমান হোসেনকে ফোনে জানান, লিটন তার ভাই জুবেল মিয়ার দোকানে আটক রয়েছে। এ খবর জানার পরও চেয়ারম্যান নীরব থাকেন এবং কাউকে কিছু জানাননি।

অবশেষে শনিবার বিবিয়ানা নদী থেকে লিটনের লাশ উদ্ধারের সময় চেয়ারম্যান নোমান ঘটনাস্থলে গেলে নিহতের পরিবার হত্যাকান্ডের সঙ্গে চেয়ারম্যান পরোক্ষভাবে জড়িত থাকার অভিযোগে তার ওপর হামলা চালায়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে