টাকার বিনিময়ে হত্যার মিশনে অংশ নিত তারা

টাকার বিনিময়ে হত্যার মিশনে অংশ নিত তারা

একটি হত্যাচেষ্টা মামলার তদন্তে এক চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, যারা টাকার বিনিময়ে হত্যা করে প্রত্যন্ত অঞ্চলে গা ঢাকা দিয়ে থাকত বলে পুলিশের ভাষ্য।

বুধবার চাঁদপুরের হাইমচর ও ঢাকার পলস্নবী এলাকা থেকে ওই তিনজনকে গ্রেপ্তার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের গুলশান বিভাগ।

গ্রেপ্তাররা হলেন- শাহ জামান ওরফে সাবু, দুলাল প্যাদা ও সাইফুল ইসলাম সুজন। তাদের কাছ থেকে একটি পিস্তল, একটি রিভলবার এবং তিন হাজার পিস ইয়াবা জব্দ করার তথ্য জানিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার একেএম হাফিজ আক্তার বলেন, ক্যান্টনমেন্ট থানার এক মামলায় মো. আরব আলী যিনি পেশায় একজন ঠিকাদার, তার মামলায় জানা যায়- তার কাছে থেকে চাঁদা দাবি করে হুমকি দেওয়া হয় এবং চাঁদা না দেওয়ায় গত ৩০ মার্চ দুপুরে ক্যান্টনমেন্ট থানাধীন ৩৩/এ বাসার সামনে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি করা হয়। আরব আলী গুলিবিদ্ধ হন। ক্যান্টনমেন্ট থানাধীন ওই ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে ঘটনার সঙ্গে জড়িত মো. শাহজাহান ওরফে সাবুকে চাঁদপুরের হাইমচর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পরবর্তীতে তার দেওয়া তথ্যমতে পলস্নবী থানার কালশী এলাকার বাউনিয়াবাঁধের একটি বাসা থেকে একটি রিভলবার এবং এক হাজার পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়। এ ছাড়া কালশী এলাকা থেকে মোহাম্মদ দুলাল প্যাদা ওরফে জিএমপি দুলাল ও মোহাম্মদ সাইফুল ওরফে সুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

হাফিজ আক্তার আরও বলেন, গ্রেপ্তারকৃতরা পালিয়ে থাকা সন্ত্রাসী ইব্রাহিম ও যুবরাজের পৃষ্ঠপোষকতায় এ ধরনের অপতৎপরতার সঙ্গে জড়িত রয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ চক্রে আরও ৮ থেকে ১০ জনের তালিকা আমরা পেয়েছি। তাদের বিরুদ্ধেও আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পেরেছি, তারা ভাড়ায় বিভিন্ন সময় কিলিং মিশনে অংশ নিত। এ ছাড়া পারস্পরিক যোগসাজশে মাদক ব্যবসা বিশেষ করে ভাষানটেক কালশী ক্যান্টনমেন্ট মাটিকাটা এলাকায় চাঁদাবাজি ও প্রভাব বিস্তারের জন্য অস্ত্র রাখত।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে