রাশিয়ান দূতাবাসের বক্তব্য 'অযৌক্তিক' বলছে টিআইবি

রাশিয়ান দূতাবাসের বক্তব্য 'অযৌক্তিক' বলছে টিআইবি

বাংলাদেশের সঙ্গে গ্যাস অনুসন্ধান ও গম কেনার চুক্তির বিষয়ে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) যে বিবৃতি দিয়েছিল তার পাল্টা প্রতিবাদ জানিয়েছে ঢাকাস্থ রাশিয়ার দূতাবাস। তবে রুশ দূতাবাসের বক্তব্যকে 'অযৌক্তিক' বলছে টিআইবি।

বৃহস্পতিবার

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ডক্টর ইফতেখারুজ্জামান বলেন, পশ্চিমা শক্তির সঙ্গে রাশিয়ার বৈরিতার বিষয়ে টিআইবির উদ্বেগকে যুক্ত করার চেষ্টা পুরোপুরি অযৌক্তিক এবং আত্মঘাতী। তিনি আরও বলেন, রাশিয়ান দূতাবাস যে বিষয়টি বুঝতে পারেনি, তাতে টিআইবি হতাশ হলেও অবাক হয়নি। কিন্তু রুশ দূতাবাস টিআইবির এই বক্তব্যকে 'পশ্চিমা শক্তির সঙ্গে সম্পৃক্ত' বলে বর্ণনা করে। যা নিয়ে আপত্তি জানায় সংস্থাটি।

টিআই-রাশিয়াকে ঢাকাস্থ রাশিয়ার দূতাবাস 'বিদেশি এজেন্ট' আখ্যা দেওয়ার বিষয়ে ডক্টর ইফতেখারুজ্জামান বলেন, রাশিয়ায় দুর্নীতির বিরুদ্ধে বিশ্বাসযোগ্য কাজের জন্য টিআই-রাশিয়াকে যে নিপীড়নের শিকার হতে হয়েছে, তা সর্বজনবিদিত।

দুর্নীতি নিয়ে কাজ করা সংস্থাটি বলেছে, বাংলাদেশের গম আমদানি বা গ্যাস অনুসন্ধানসহ কোনো ব্যবসায়িক চুক্তি ও পণ্য সরবরাহকারী দেশ নিয়ে আপত্তি নেই টিআইবির। তবে টিআইবির জন্য গুরুত্বপূর্ণ হলো- যথাযথ প্রক্রিয়া, দেশের অর্থের সর্বোত্তম ব্যবহার বা ভ্যালু ফর মানি এবং এই ধরনের চুক্তিতে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতিশ্রম্নতি পূরণে সহায়ক ভূমিকা পালন করা।

টিআইবি বলছে, টনপ্রতি ১০০ মার্কিন ডলারের ল্যান্ডিং খরচ এবং এই উচ্চ হারে ৫ লাখ টন পণ্যের চুক্তিতে কীভাবে ভ্যালু ফর মানি নিশ্চিত করা হয়েছে- এ বিষয়ে রাশিয়ান দূতাবাসের বিবৃতিতে কোনো গ্রহণযোগ্য যুক্তি খুঁজে পাওয়া যায়নি। এছাড়া জিটুজি ভিত্তিতে গম আমদানির খরচ উন্মুক্ত টেন্ডারিং পদ্ধতির চেয়ে কম এই দাবিটিও গ্রহণযোগ্য নয়।

টিআইবির বিবৃতিতে আরও বলা হয়, গ্যাস অনুসন্ধানের ক্ষেত্রে মার্কিন কোম্পানির সঙ্গে তুলনা করার প্রচেষ্টাও প্রাসঙ্গিক নয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে