logo
রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৫ আশ্বিন ১৪২৭

  সুলতান মাহমুদ রিপন   ২৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

ভালোই কাটল নাদাল জোকোভিচের

কালেরগর্ভে হারিয়ে যাচ্ছে আরেকটি বছর। নতুন বছরের প্রস্তুতির ফাঁকে এখন ধোঁয়া ওঠা চায়ের কাপে চুমুক দিয়ে স্মৃতিকাতর সময়টা। ২০১৯ সালটা কেমন কাটল? ক্রীড়াঙ্গনের বছর শেষের সালতামামি শুরু করা যাক আন্তর্জাতিক টেনিস দিয়ে।

টেনিসের বিদায়ী বছর মোটা দাগে ছিল রাফায়েল নাদালের। সেই সঙ্গে বছরটা মন্দ কাটেনি নোভাক জোকোভিচেরও। বাকি সবাইকে দর্শক বানিয়ে এই দুই তারকা ভাগাভাগি করে নিয়েছেন বছরের চারটি গ্র্যান্ড স্স্নাম ট্রফি। ছেলেদের টেনিসে সাফল্যের ব্যাটন পুরনোদের হাতে হাতে ঘুরলেও মেয়েদের টেনিসে দু্যতি ছড়িয়েছেন একঝাঁক নতুন মুখ। উড়েছে তারুণ্যের জয়কেতন। তবে ছিল না একাধিপত্য। ২০১৮ সালের মতো এবারও নারী এককে চারটি গ্র্যান্ড স্স্নাম জিতেছেন ভিন্ন চারজন। তাদের মধ্যে বাবার দুই পেয়েছেন ক্যারিয়ারের প্রথম গ্র্যান্ড স্স্নাম জয়ের স্বাদ।

তবে ছেলেদের সার্কিটের ছবিটা ছিল তার ঠিক উল্টো। তারুণ্যের ঝাপটা সামলে নাদাল দেখিয়েছেন বুড়ো হাতের ভেলকি। মে মাসে ইতালিয়ান ওপেনার ফাইনালে জোকোভিচের মুখোমুখি হওয়ার আগে ২০১৯ সালে নাদালের প্রাপ্তির খাতা ছিল শূন্য। আর সেখান থেকে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে পঞ্চমবারর্ যাংকিংয়ের শীর্ষে থেকে শেষ করেছেন বছর। ফরাসি ওপেন ও ইউএস ওপেন জিতে গ্র্যান্ড স্স্নাম শিরোপা সংখ্যা নিয়ে গেছেন ১৯-এ। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী সুইস তারকা রজার ফেদেরারের সর্বোচ্চ ২০টি গ্র্যান্ড স্স্নাম জয়ের রেকর্ডকে হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছেন স্প্যানিশ মহাতারকা। নাদালের সঙ্গে ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ পেয়েছিলেন ফেদেরারও। কিন্তু উইম্বলডনে পাঁচ সেটের মহাকাব্যিক ফাইনালে ফেদেরারের মুঠো থেকে জয় ছিনিয়ে নিয়ে ক্যারিয়ারের ১৬তম গ্র্যান্ড স্স্নাম ট্রফি উঁচিয়ে ধরেন সার্বিয়ান তারকা জোকোভিচ। এর আগে বছরের শুরুতে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার ফাইনালে সার্ব তারকা হারিয়েছিলেন নাদালকে। সেই ধাক্কা সামলে শেষভাগে এসে বছরটা রাঙিয়েছেন নাদাল। দুটি গ্র্যান্ড স্স্নামের পাশাপাশি স্পেনের হয়ে জিতেছেন ডেভিস কাপ। দীর্ঘদিনের বান্ধবীকে বিয়ে করে ব্যক্তিগত জীবনেও থিতু হয়েছেন। বিগ খ্রি'র রাজত্বে হানা দিতে না পারলেও প্রতিশ্রম্নতির ঝলক দেখিয়েছেন দুই তরুণ তুর্কি দানিল মেদভেদেভ ও স্টেফানোস সিৎসিপাস।

আর মেয়েদের টেনিসে প্রতিশ্রম্নতিকে গ্র্যান্ড স্স্নাম সাফল্যে অনুদিত করেছেন অস্ট্রেলিয়ার অ্যাশলি বার্টি ও কানাডার টিনএজ সেনসেশন বিয়াংকা আন্দ্রেস্কু।র্ যাংকিংয়ের ১৫ নম্বরে থেকে বছর শুরু করা বার্টি ফরাসি ওপেন ও টু্যর ফাইনালস জিতে উঠে এসেছেন শীর্ষে। বিয়াঙ্কার উত্থান আরও চমকপ্রদ। ১৭৮ থেকে এক লাফে উঠে এসেছেন শীর্ষে পাঁচে। ইউএস ওপেনের ফাইনালে হট ফেভারিট সেরেনা উইলিয়ামসকে হারিয়ে প্রথম কানাডিয়ান হিসেবে গ্র্যান্ড স্স্নাম এককে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কীর্তি গড়েন বিয়াঙ্কা। মা হওয়ার পর এ বছর নিজের সেরা ছন্দে ফেরার আভাস দিলেও ২৪তম গ্র্যান্ড স্স্নাম ট্রফিটা অধরাই রয়ে গেছে সেরেনার। মার্গারেট কোর্টের রেকর্ড ছোঁয়ার চাপেই যেন বারবার তীরে এসে তরী ডুবছে মার্কিন কিংবদন্তির। ইউএস ওপেনের আগে উইম্বলডনের ফাইনালেও সিমোনা হালেপের কাছে সরাসরি সেটে হেরেছিলেন সেরেনা। অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জিতে বছর শুরু করা নাওমি ওসাকা পরে আর কোনো চমক দেখাতে পারেননি, যা দেখিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের বিস্ময় বালিকা কোকো গাফ। উইম্বলডনের প্রথম রাউন্ডে পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন ভেনাস উইলিয়ামসকে সরাসরি সেটে হারিয়ে চারদিকে দারুণ হইচই ফেলে দিয়েছিলেন ১৫ বছর বয়সী গাফ। কিন্তু শেষ পর্যন্ত চতুর্থ রাউন্ডে তার স্বপ্নযাত্রা থামলেও ৮৭৫ থেকে বছর শেষের্ যাংকিংয়ের ৬৮ নম্বরে উঠে এসেছেন গাফ।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে