ইটভাটা শ্রমিকদের সংঘর্ষে নিহত ১

ইটভাটা শ্রমিকদের সংঘর্ষে নিহত ১

ময়মনসিংহের ভালুকায় এক ইটভাটার দুই গ্রুপের শ্রমিকদের সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বিরুনীয়া ইউনিয়নের বাহিরপাথরে একটি ইটভাটায়। নিহত শ্রমিক জাহাঙ্গীর আলম (১৮) নেত্রকোনার কমলাকান্দা উপজেলার মাইজপাড়া এলাকার মৃত শাহেদ মিয়ার ছেলে।

এ ঘটনায় সোমবার রাতে নিহতের মামাতো ভাই কালা মিয়া বাদী হয়ে ১১ শ্রমিককে আসামি করে ভালুকা মডেল থানায় একটি মামলা করেছেন।

এদিকে পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত ১০ জনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করেছে।

এলাকাবাসী জানান, ওই ইটভাটায় নেত্রকোনা ও পঞ্চগড় জেলার পৃথক দুটি শ্রমিক দল ইট তৈরির কাজ করত। সকালে পঞ্চগড় জেলার শ্রমিকদের ইট বানানোর বালি শেষ হয়ে গেলে তারা নেত্রকোনা জেলার শ্রমিকদের কাছ থেকে বালু আনতে যায়।

এ সময় নেত্রকোনার শ্রমিকরা বালু দিতে রাজি না হলে দু’পক্ষের কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে পঞ্চগড় জেলার শ্রমিকরা বেলচা ও লাকড়ি দিয়ে নেত্রকোনা জেলার চার শ্রমিকের ওপর অতর্কিতে হামলা করে। এতে কমলাকান্দা উপজেলার বাসিন্দা জাহাঙ্গীর আলম (১৮), কালা মিয়া (৪০), সবুজ মিয়া (১৮) ও হাছান মিয়া (৩০) আহত হন।

আহতদের মধ্যে জাহাঙ্গীর ও কালা মিয়াকে প্রথমে ভালুকা সরকারি হাসপাতাল এবং পরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (মমেক) ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন থেকে সোমবার বিকালে জাহাঙ্গীর আলম মারা যায়।

খবর পেয়ে ভালুকা মডেল থানা পুলিশ ইটভাটায় অভিযান চালিয়ে পঞ্চগড়ের ১০ শ্রমিককে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেফতারকৃৃতরা হলেন, আব্দুর রাজ্জাক (১১), আব্দুল কুদ্দুস (২০), আ. সালাম (২৬), আসাদুজ্জামান (১৯), মিজানুর রহমান (২০), ফরিদুল ইসলাম (২৩), শিপন ইসলাম (১৮), মমতাজুর রহমান মতি (২১), জয়নাল ইসলাম (১৮) ও স্বপন (২৫)। সবাই পঞ্চগড় জেলার বাসিন্দা।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জীবন বর্মণ জানান, গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের পাঁচ দিন করে রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

ভালুকা মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন জানান, 'এ ঘটনায় নিহতের ভাই বাদী হয়ে ১১ জনকে আসামি করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে